বাংলা নিউজ > ছবিঘর > উপকূলের ১০ লাখ মানুষকে সরানো হবে, তৈরি থাকবে বিদ্যুৎ-মোবাইলের টিম : মমতা

উপকূলের ১০ লাখ মানুষকে সরানো হবে, তৈরি থাকবে বিদ্যুৎ-মোবাইলের টিম : মমতা

  • ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’-এর আশঙ্কায় উপকূলবর্তী এলাকায় ১০ লাখ মানুষকে সরানো হবে। সোমবার এমনটাই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইসঙ্গে দ্রুত পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার জন্য একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করছে রাজ্য। যদিও আলিপুর আবহওয়া অফিসের তরফে জানানো হয়েছে, বাংলায় সম্ভবত ঘূর্ণিঝড়ের দাপট তেমন থাকবে না। মূলত ওড়িশায় তাণ্ডব চলবে। বাংলার পূর্ব মেদিনীপুর নিয়ে কিছুটা চিন্তা আছে।
মমতা জানিয়েছেন, উপকূলের কাছে বসবাসকারী ১০ লাখ মানুষকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই)
1/4মমতা জানিয়েছেন, উপকূলের কাছে বসবাসকারী ১০ লাখ মানুষকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই)
যাঁদের সরিয়ে আনা হবে, তাঁদের ৪,০০০ টি কেন্দ্রে রাখা হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএনআই)
2/4যাঁদের সরিয়ে আনা হবে, তাঁদের ৪,০০০ টি কেন্দ্রে রাখা হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএনআই)
মমতা জানান, বিদ্যুৎ পরিষেবা ঠিক করার জন্য ১,০০০ দলকে তৈরি রাখা হয়েছে। মোবাইল পরিষেবা স্বাভাবিক করার জন্য ৪০০ টি দলকে তৈরি রাখা হয়েছে বলে জানান মমতা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই)
3/4মমতা জানান, বিদ্যুৎ পরিষেবা ঠিক করার জন্য ১,০০০ দলকে তৈরি রাখা হয়েছে। মোবাইল পরিষেবা স্বাভাবিক করার জন্য ৪০০ টি দলকে তৈরি রাখা হয়েছে বলে জানান মমতা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই)
মমতা দাবি করেছেন, রাজ্যের ২০ টি জেলায় ভালোমতো প্রভাবে ফেলবে ‘ইয়াস’।  তবে আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব বেশি পড়বে। বাংলায় সবথেকে বেশি চিন্তা পশ্চিম মেদিনীপুর নিয়ে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএনআই)
4/4মমতা দাবি করেছেন, রাজ্যের ২০ টি জেলায় ভালোমতো প্রভাবে ফেলবে ‘ইয়াস’।  তবে আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব বেশি পড়বে। বাংলায় সবথেকে বেশি চিন্তা পশ্চিম মেদিনীপুর নিয়ে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএনআই)
অন্য গ্যালারিগুলি