বাংলা নিউজ > ছবিঘর > RCB vs KKR: কী কারণে বিরাটদের কাছে বশ্যতা স্বীকার KKR-এর? কোথায় ভুল হল কার্তিকদের?

RCB vs KKR: কী কারণে বিরাটদের কাছে বশ্যতা স্বীকার KKR-এর? কোথায় ভুল হল কার্তিকদের?

  • দুটি ম্যাচে শেষবেলায় জিতে মুখ বেঁচেছিল। কিন্তু রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে কলকাতা নাইট রাইডার্সের কঙ্কালসার চেহারাটা বেরিয়ে পড়ল। ৮২ রানে বশ্যতা স্বীকার করল কেকেআর। কী কারণে হারলেন দীনেশ কার্তিকরা, কোথায় ভুল হল, দেখে নিন একনজরে -
প্রথমে ভালো শুরু করেছিল ব্যঙ্গালোর। কিন্তু পঞ্চম ওভার থেকে খেলায় ফিরতে শুরু কলকাতা নাইট রাইডার্স। ১৫ ওভার পর্যন্ত সব ঠিকঠাক চলছিল। মাত্র ৭৪ রান তুলতে পেরেছিল ব্যাঙ্গালোর। কিন্তু ১৬ তম ওভার থেকে ঘুরে যায় খেলা। কমলেশ নাগরকোটির ঢিমেগতির বলের জন্য আগে থেকেই তৈরি ছিলেন। পরপর দু'বলে ছক্কা মারেন এবি ডে'ভিলিয়ার্স। সেই ওভারে ওঠে ১৮ রান। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
1/9প্রথমে ভালো শুরু করেছিল ব্যঙ্গালোর। কিন্তু পঞ্চম ওভার থেকে খেলায় ফিরতে শুরু কলকাতা নাইট রাইডার্স। ১৫ ওভার পর্যন্ত সব ঠিকঠাক চলছিল। মাত্র ৭৪ রান তুলতে পেরেছিল ব্যাঙ্গালোর। কিন্তু ১৬ তম ওভার থেকে ঘুরে যায় খেলা। কমলেশ নাগরকোটির ঢিমেগতির বলের জন্য আগে থেকেই তৈরি ছিলেন। পরপর দু'বলে ছক্কা মারেন এবি ডে'ভিলিয়ার্স। সেই ওভারে ওঠে ১৮ রান। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
শেষ পাঁচ ওভারে ৮৩ রান তোলে ব্যাঙ্গালোর। অথচ একটা সময় মনে হচ্ছিল, ১৭০ রান তুলতে বেগ পাবে ব্যাঙ্গালোর। সেখানে ১৯৫ রানের লক্ষ্যমাত্রা দেন বিরাট কোহলিরা। শারজা ক্রমশ স্লো হওয়া পিচে কাজটা সহজ ছিল না। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
2/9শেষ পাঁচ ওভারে ৮৩ রান তোলে ব্যাঙ্গালোর। অথচ একটা সময় মনে হচ্ছিল, ১৭০ রান তুলতে বেগ পাবে ব্যাঙ্গালোর। সেখানে ১৯৫ রানের লক্ষ্যমাত্রা দেন বিরাট কোহলিরা। শারজা ক্রমশ স্লো হওয়া পিচে কাজটা সহজ ছিল না। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
স্লো হয়ে যাচ্ছিল পিচ। সমস্যায় পড়ছিলেন বিরাট কোহলি। সমস্যায় পড়ছিলেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের ব্যাটসম্যানরাও। কিন্তু শারজায় একজন ‘সুপারম্যান’ ছিলেন - তিনি এবি ডে'ভিলিয়ার্স। তাঁর সৌজন্যেই ১৯৪ রান তোলে ব্যাঙ্গালোর। শেষপর্যন্ত ৩৩ বলে ৭৩ রানে অপরাজিত থাকেন। ছ'টি ছক্কা এবং পাঁচটি চার মারেন তিনি। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
3/9স্লো হয়ে যাচ্ছিল পিচ। সমস্যায় পড়ছিলেন বিরাট কোহলি। সমস্যায় পড়ছিলেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের ব্যাটসম্যানরাও। কিন্তু শারজায় একজন ‘সুপারম্যান’ ছিলেন - তিনি এবি ডে'ভিলিয়ার্স। তাঁর সৌজন্যেই ১৯৪ রান তোলে ব্যাঙ্গালোর। শেষপর্যন্ত ৩৩ বলে ৭৩ রানে অপরাজিত থাকেন। ছ'টি ছক্কা এবং পাঁচটি চার মারেন তিনি। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
প্রায় ১০ রানের কাছে তাড়া করতে নেমে একেবারেই ছন্দে ছিল না কেকেআর। ঢিমেতালে ব্যাটিং এবং একের পর এক উইকেট হারানোর ফলে একটা বলেরও জন্য রান তাড়া করে জয়ের মতো অবস্থায় ছিল না। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
4/9প্রায় ১০ রানের কাছে তাড়া করতে নেমে একেবারেই ছন্দে ছিল না কেকেআর। ঢিমেতালে ব্যাটিং এবং একের পর এক উইকেট হারানোর ফলে একটা বলেরও জন্য রান তাড়া করে জয়ের মতো অবস্থায় ছিল না। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
ব্যাঙ্গালোরের স্পিনের জালে আটকে পড়ল কলকাতা। ওয়াশিংটন সুন্দর ও যুজবেন্দ্র চহাল আট ওভারে দিলেন মাত্র ৩২ রান। নিলেন তিন উইকেট। ষষ্ঠ ওভার থেকে যে জালে পড়েছিলেন, তা থেকে আর বেরোতে পারলেন না নাইটরা। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
5/9ব্যাঙ্গালোরের স্পিনের জালে আটকে পড়ল কলকাতা। ওয়াশিংটন সুন্দর ও যুজবেন্দ্র চহাল আট ওভারে দিলেন মাত্র ৩২ রান। নিলেন তিন উইকেট। ষষ্ঠ ওভার থেকে যে জালে পড়েছিলেন, তা থেকে আর বেরোতে পারলেন না নাইটরা। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
ভুল কৌশল : শেষ ম্যাচেই প্রমাণ মিলেছিল, শারজায় ক্রমশ স্লো হচ্ছে পিচ। তা সত্ত্বেও মাত্র এক স্পিনারে খেলতে নামে কেকেআর। সুনীল নারিনের পরিবর্তে দলে আসেন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান টম ব্যান্টন। যে পিচ ক্রমশ স্লো হচ্ছে, তাতে এক স্পিনারে খেলতে নামা বড়সড় ভুল। (ছবি সৌজন্য আইপিএল) 
6/9ভুল কৌশল : শেষ ম্যাচেই প্রমাণ মিলেছিল, শারজায় ক্রমশ স্লো হচ্ছে পিচ। তা সত্ত্বেও মাত্র এক স্পিনারে খেলতে নামে কেকেআর। সুনীল নারিনের পরিবর্তে দলে আসেন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান টম ব্যান্টন। যে পিচ ক্রমশ স্লো হচ্ছে, তাতে এক স্পিনারে খেলতে নামা বড়সড় ভুল। (ছবি সৌজন্য আইপিএল) 
ওপেনিংয়ে ব্যান্টন : কিংস ইলেভন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ব্যর্থ হয়েছিলেন। কিন্তু চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে একা হাতে দলের রান তুলেছিলেন। তারপরও রাহুল ত্রিপাঠীকে সাতে নামানো হল। ওপেনিংয়ে ন্যূনতম ছন্দে ছিলেন না ব্যান্টন। নীতিশ রানা যে তিনে আহামরি ব্যাট করছেন, তেমন নয়। তাহলে ত্রিপাঠীকে নিদেনপক্ষে তিনে নামানো যেত। সাতে নেমে কার্যত কিছু করার ছিল না রাহুলের। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
7/9ওপেনিংয়ে ব্যান্টন : কিংস ইলেভন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ব্যর্থ হয়েছিলেন। কিন্তু চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে একা হাতে দলের রান তুলেছিলেন। তারপরও রাহুল ত্রিপাঠীকে সাতে নামানো হল। ওপেনিংয়ে ন্যূনতম ছন্দে ছিলেন না ব্যান্টন। নীতিশ রানা যে তিনে আহামরি ব্যাট করছেন, তেমন নয়। তাহলে ত্রিপাঠীকে নিদেনপক্ষে তিনে নামানো যেত। সাতে নেমে কার্যত কিছু করার ছিল না রাহুলের। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
জঘন্য ফিল্ডিং :  শুরু থেকেই খুব বাজে ফিল্ডিং করছিল কেকেআর। অ্যারন ফিঞ্চের ক্যাচ ফস্কান নাগরকোটি। শুভমন গিল, দীনেশ কার্তিক, ইয়ন মর্গ্যানরাও সহজ বল গলিয়েছেন। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
8/9জঘন্য ফিল্ডিং :  শুরু থেকেই খুব বাজে ফিল্ডিং করছিল কেকেআর। অ্যারন ফিঞ্চের ক্যাচ ফস্কান নাগরকোটি। শুভমন গিল, দীনেশ কার্তিক, ইয়ন মর্গ্যানরাও সহজ বল গলিয়েছেন। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
শেষ দুটি ম্যাচে জয় এসেছিল বটে। কিন্তু কেকেআরের পারফরম্যান্স একেবারেই ভালো ছিল না। ডেথ ওভারে দুর্দান্ত বোলিং এবং বিপক্ষের কাঁপুনির সৌজন্য ম্যাচ বেরিয়ে গিয়েছিল। সেখান থেকে দলের ফাঁকফোকর ঢাকার চেষ্টা করা হয়নি। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
9/9শেষ দুটি ম্যাচে জয় এসেছিল বটে। কিন্তু কেকেআরের পারফরম্যান্স একেবারেই ভালো ছিল না। ডেথ ওভারে দুর্দান্ত বোলিং এবং বিপক্ষের কাঁপুনির সৌজন্য ম্যাচ বেরিয়ে গিয়েছিল। সেখান থেকে দলের ফাঁকফোকর ঢাকার চেষ্টা করা হয়নি। (ছবি সৌজন্য আইপিএল)
অন্য গ্যালারিগুলি