বাংলা নিউজ > ছবিঘর > আবেগ উস্কে আজ কলকাতার রাজপথে নামছে দোতলা বাস, ছবিতে দেখুন নতুন রূপ

আবেগ উস্কে আজ কলকাতার রাজপথে নামছে দোতলা বাস, ছবিতে দেখুন নতুন রূপ

  • এবার আর যাত্রী পরিবহণের জন্য নয়। অজানা কলকাতাকে নতুন করে চেনাতে শহরে প্রমোদভ্রমণের জন্য সূচনা করা হচ্ছে এই দোতলা বাসের। আপাতত ৫১ আসনের এই দোতলা বাস দুটি পুজো পরিক্রমা ও প্যান্ডেল হপিংয়ের জন্য ব্যবহার করা হবে।
প্রায় ১০০ বছর পুরনো ইতিহাস নতুনত্ব ও আধুনিকতার মোড়কে ফিরল কলকাতায়। ১৯২৬ সালে কলকাতার রাস্তায় প্রথম দোতলা বাস চলে। নানা সমস্যার জন্য সেই বাসের চাকা থামে ২০০৫–এ। আজ, মঙ্গলবার ফের শহরে চাকা গড়াবে দোতলা বাসের। নবান্ন থেকে দুটি নীল–সাদা রঙের ডবল ডেকার বাস এদিন উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
1/4প্রায় ১০০ বছর পুরনো ইতিহাস নতুনত্ব ও আধুনিকতার মোড়কে ফিরল কলকাতায়। ১৯২৬ সালে কলকাতার রাস্তায় প্রথম দোতলা বাস চলে। নানা সমস্যার জন্য সেই বাসের চাকা থামে ২০০৫–এ। আজ, মঙ্গলবার ফের শহরে চাকা গড়াবে দোতলা বাসের। নবান্ন থেকে দুটি নীল–সাদা রঙের ডবল ডেকার বাস এদিন উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
তবে এবার আর যাত্রী পরিবহণের জন্য নয়। অজানা কলকাতাকে নতুন করে চেনাতে শহরে প্রমোদভ্রমণের জন্য সূচনা করা হচ্ছে এই দোতলা বাসের। এই পরিষেবার মাধ্যমে কলকাতায় পর্যটনে প্রসার ঘটানোই লক্ষ্য রাজ্য সরকারের। আপাতত ৫১ আসনের এই দোতলা বাস দুটি পুজো পরিক্রমা ও প্যান্ডেল হপিংয়ের জন্য ব্যবহার করা হবে। পরে পর্যটকরা এতে করেই ঘুরে দেখবেন শহর কলকাতা। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
2/4তবে এবার আর যাত্রী পরিবহণের জন্য নয়। অজানা কলকাতাকে নতুন করে চেনাতে শহরে প্রমোদভ্রমণের জন্য সূচনা করা হচ্ছে এই দোতলা বাসের। এই পরিষেবার মাধ্যমে কলকাতায় পর্যটনে প্রসার ঘটানোই লক্ষ্য রাজ্য সরকারের। আপাতত ৫১ আসনের এই দোতলা বাস দুটি পুজো পরিক্রমা ও প্যান্ডেল হপিংয়ের জন্য ব্যবহার করা হবে। পরে পর্যটকরা এতে করেই ঘুরে দেখবেন শহর কলকাতা। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
অত্যাধুনিক এই বাসে রয়েছে স্বয়ংক্রিয় দরজা, চওড়া সিঁড়ি, মেট্রোর মতো গন্তব্য–চিহ্নিত বোর্ড, প্যানিক বটন, সিসি টিভি ইত্যাদি। পুরনো ডবল ডেকার বাসগুলিতে দুটি দরজা থাকলেও এটিতে থাকছে কেবল একটি। ৫১ সিটের এই বাসের ওপরতলায় থাকবে ১৬টি সিট। সেগুলি অবশ্যই খুব আরামদায়ক। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রিয় নীল–সাদা রঙে রাঙানো হয়েছে বাস দুটি। ছাদ–খোলা এই দুটি বাসই বিএস–৪ গোত্রের। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
3/4অত্যাধুনিক এই বাসে রয়েছে স্বয়ংক্রিয় দরজা, চওড়া সিঁড়ি, মেট্রোর মতো গন্তব্য–চিহ্নিত বোর্ড, প্যানিক বটন, সিসি টিভি ইত্যাদি। পুরনো ডবল ডেকার বাসগুলিতে দুটি দরজা থাকলেও এটিতে থাকছে কেবল একটি। ৫১ সিটের এই বাসের ওপরতলায় থাকবে ১৬টি সিট। সেগুলি অবশ্যই খুব আরামদায়ক। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রিয় নীল–সাদা রঙে রাঙানো হয়েছে বাস দুটি। ছাদ–খোলা এই দুটি বাসই বিএস–৪ গোত্রের। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
পশ্চিমবঙ্গ পরিবহণ নিগম ৯০ লক্ষ টাকা খরচ করে বাস দুটি তৈরি করিয়েছে। এগুলি গড়ে তুলেছে জামশেদপুরের সংস্থা ‘বেবকো’। ধাপে ধাপে এরকম আরও ১০টি দোতলা বাস নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে পরিবহণ দফতর। শহর দেখানোর পাশাপাশি আগামীদিনে যাত্রী পরিবহণেও দোতলা বাস ব্যবহার করা হবে কিনা তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতর সূত্রে কিছু জানা যায়নি। তবে দোতলা বাসের সঙ্গে বাঙালির মনে যে নস্টালজিয়া ফিরছে, তা পরিষ্কার। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
4/4পশ্চিমবঙ্গ পরিবহণ নিগম ৯০ লক্ষ টাকা খরচ করে বাস দুটি তৈরি করিয়েছে। এগুলি গড়ে তুলেছে জামশেদপুরের সংস্থা ‘বেবকো’। ধাপে ধাপে এরকম আরও ১০টি দোতলা বাস নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে পরিবহণ দফতর। শহর দেখানোর পাশাপাশি আগামীদিনে যাত্রী পরিবহণেও দোতলা বাস ব্যবহার করা হবে কিনা তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতর সূত্রে কিছু জানা যায়নি। তবে দোতলা বাসের সঙ্গে বাঙালির মনে যে নস্টালজিয়া ফিরছে, তা পরিষ্কার। ছবি সৌজন্য :‌ টুইটার
অন্য গ্যালারিগুলি