বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2021 > IPL 2021: পুরনো অস্ত্রে ফের বিদ্ধ নাইট তারকা, টেকনিক না মস্তিষ্ক, গলদ কোথায়?
দীনেশ কার্তিক। ছবি- আইপিএল।
দীনেশ কার্তিক। ছবি- আইপিএল।

IPL 2021: পুরনো অস্ত্রে ফের বিদ্ধ নাইট তারকা, টেকনিক না মস্তিষ্ক, গলদ কোথায়?

  • রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে এই নিয়ে টানা তিনবার দীনেশ কার্তিকের উইকেট তুলে নিলেন যুজবেন্দ্র চাহাল।

গত মরশুমে ১৪.০৮ গড়ে তাঁর মোট সংগ্রহ ছিল মাত্র ১৬৯ রান। তবে সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ৯ বলে ২২ রান করে মরশুমের শুরুটা দারুণভাবে করেছিলেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের সহ-অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। আশা ছিল এ মরশুমে ফের নিজের স্বাভাবিক ছন্দে দেখা যাবে তাঁকে। কিন্তু মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে ক্রিজে থেকেও দলকে জেতাতে পারেননি। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরর বিরুদ্ধেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ হলেন কার্তিক।

আরসিবি বিরুদ্ধে ৩৮ রানে মরশুমের দ্বিতীয় ম্যাচ হারল কেকেআর। এ নিয়ে আরসিবি বিরুদ্ধে টানা তৃতীয় পরাজয় নাইট বাহিনীর। নীতিশ রানা আউট হলে ৮ম ওভারে অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যানকে সঙ্গ দিতে ক্রিজে আসেন কার্তিক। তবে পাঁচ বল খেলে মাত্র দু'রানের মাথায় এলবিডব্লু হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় কার্তিককে। বোলার যুজবেন্দ্র চাহাল। লেগ স্পিনারের গুগলি ঠিক করে পড়তে না পেরে সম্পূর্ণরূপে পরাস্ত হন তিনি। অদ্ভূতভাবে ব্যাঙ্গালোরের হয়ে এই নিয়ে টানা তিনবার তাঁর উইকেট তুলে নেন চাহাল।

শুধু চাহালই নন, রাশিদ খান, রাহুল চাহাররাও তাঁদের কব্জির মোচড়ে বারংবার অস্বস্তিতে ফেলেছেন তাঁকে। স্পিনের ভালো ব্যাটসম্যান হিসাবে পরিচিত কার্তিকের হঠাৎ করেই লেগ স্পিন জুজু দেখা দেয় গত মরশুমে। মরু শহরে অনুষ্ঠিত হওয়া আইপিএলে মোট ছয় বার লেগ স্পিনারের বিরুদ্ধে আউট হন কার্তিক। অথচ স্পিন খেলার জন্য প্রয়োজনীয় সুইপ, রিভার সুইপ, পায়ের ব্যাবহার সবই নখদর্পনে এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যানের। চেন্নাইয়ের ঘূর্ণি পিচে ছোট থেকে ক্রিকেট খেলে এসেছেন। তাহলে সমস্যাটা ঠিক কোথায়? 

বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন ক্রিকেটটা মাঠের থেকে মাথায় বেশি খেলা হয়। আর এখানেই সমস্যায় পড়তে হচ্ছে কার্তিককে। একুশ শতকের গোড়ার দিকে ভারতীয় দলের হয়ে প্রথম খেলার সুযোগ পেলেও কোনওদিনই দলে পাকা জায়গা করতে পারেননি। দলে জায়গা পেতে কোনও সময় খেলতে হয়েছে বিলেতের সুইং সহায়ক পরিবেশে ওপেনার হিসাবে, তো কখনও আবার শ্রীলঙ্কার ধুলোভরা মাঠে ফিনিশারের ভূমিকায়।

কেকেআর দলেও কোনওদিন তাঁর নির্দিষ্ট কোনও ব্যাটিং জায়গা পাকা হয়নি। গত মরশুমেই কোনও সময় তিন তো কোনদিন সাতে ব্যাট হাতে ক্রিজে নামতে হয়েছে। কার্তিক নানা চরিত্রেই একাধিকবার প্রমাণ করেছেন নিজেকে। তবে বিভিন্ন ভূমিকায় মানিয়ে নেওয়ার তাঁর দক্ষতা তাঁকে কোনও স্থিরতা দেয়নি। ব্যাটসম্যান হিসাবে কেকেআর দলে তাঁর ভূমিকা ঠিক কী, তা নিয়ে এখনও ধন্ধে সমর্থক থেকে বিশেষজ্ঞ অনেকেই। টেকনিকের বদলে গলদটা হয়ত কার্তিকের মস্তিষ্কেই বেশি। মরশুমের বেশিরভাগটাই এখনও বাকি। কেকেআরের দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটারদের একজন কার্তিক। শেষ চারে যেতে, 'ডিকে'-কে আবার শ্রীঘই নিজের ছন্দে দেখার আশা করবেন কেকেআর দর্শকরা।

বন্ধ করুন