বাংলা নিউজ > ময়দান > চ্যানেলরা TRP লুটেছে কিন্তু আসল সমস্যাটা তেমন বড় নয়, বিরাট-বোর্ড লড়াইয়ে উবাচ গম্ভীরের
বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও বিরাট কোহলি (ছবি:গেটি ইমেজ)

চ্যানেলরা TRP লুটেছে কিন্তু আসল সমস্যাটা তেমন বড় নয়, বিরাট-বোর্ড লড়াইয়ে উবাচ গম্ভীরের

  • ‘এটি একটি অভ্যন্তরীণ যুদ্ধ’ কোহলি ও বোর্ডের লড়াইকে বড় সমস্যা মানতে চান না গম্ভীর।

কোহলির নেতৃত্ব থেকে সরে যাওয়ার পরে বিসিসিআইয়ের সাথে বিরাটের সম্পর্ক নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বিরাট জানিয়েছিলেন তিনি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরেই টি টোয়েন্টি ক্রিকেটের নেতৃত্ব থেকে সরে যান। এরপরে বিসিসিআই তাকে একদিনের ক্রিকেটের নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেয়। এরপরে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ হেরে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেন। এরপরেই সমালোচনার ঝড় ওঠে। সকলেই বিরাট কোহলির সঙ্গে বোর্ডের লড়াইয়ে উত্তাপের আঁচ পেতে থাকেন। সমালোচকরাও সমালোচনা করতে থাকেন। এমন অবস্থায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড ও বিরাটের সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন গৌতম গম্ভীর।  

গৌতম গম্ভীর ‘অভ্যন্তরীণ যুদ্ধ’ হিসাবে বর্ণনা করেছেন যা বন্ধ দরজার পিছনে সমাধান করা যেতে পারে। টাইমস নাউ-এ কথা বলার সময় গম্ভীর বলেন, ‘আমি মনে করি এটি বন্ধ দরজার পিছনেও সমাধান করা যেত পারে। এটি একটি অভ্যন্তরীণ যুদ্ধ ছিল। এটি অনেক নতুন চ্যানেলের জন্য একটি দুর্দান্ত TRP ছিল তবে এটি ঠিক আছে। আপনি যদি এটির গভীরতায় যান তবে বিষয়টি সহজেই সমাধান করা যেতে পারে। এটি এত বড় সমস্যা নয়।’ 

গম্ভীর আরও বলেন, ‘সত্যি বলতে, আমি এর মধ্যে এমন কোনও বিতর্ক দেখতে পাচ্ছি না যেটা তৈরি করা হয়েছে। অধিনায়কত্বের কথা বললে, আমি মনে করি বিরাটের লাল বলের অধিনায়ক হিসেবে চালিয়ে যাওয়া উচিত ছিল। কিন্তু সাদা বলের অধিনায়কত্বের কথা বললে, একবার তিনি টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, তাকে ওডিআই অধিনায়কত্বও ছেড়ে দিতে হতই। বিসিসিআই এবং নির্বাচকরা সাদা বলের দৃষ্টিকোণ থেকে ঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিন্তু টেস্ট অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ানো বিরাটের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত ছিল। যা তার চালিয়ে যাওয়া উচিত ছিল।’

বন্ধ করুন