বাড়ি > ময়দান > সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বালাই নেই, ভিয়েতনামে ফুটবল লিগ শুরু হল কানায় কানায় ভরা স্টেডিয়ামে
ভিয়েতনাম ফুটবল লিগের খেলা চলছে ভরা গ্যালারিতে। ছবি- রয়টার্স।
ভিয়েতনাম ফুটবল লিগের খেলা চলছে ভরা গ্যালারিতে। ছবি- রয়টার্স।

সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বালাই নেই, ভিয়েতনামে ফুটবল লিগ শুরু হল কানায় কানায় ভরা স্টেডিয়ামে

  • অল্প কিছু মানুষের মুখে ছিল মাস্ক।

লকডাউনের পর নতুন করে ফুটবল শুরু হলেও প্রায় সব দেশই হয় দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে ম্যাচ আয়োজনের নির্দেশ দিয়েছে, নাহলে অল্প সংখ্যক সমর্থকদের মাঠে ঢোকার অনুমতি দিয়েছে। ব্যতিক্রম শুধু ভিয়েতনাম। সেখানে জাতীয় ফুটবল লিগ শুরু হল কোনও রকম বিধি-নিষেধ ছাড়াই ভরা গ্যালারিতে।

করোনা মহামারির জন্য গত মার্চে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল ভিয়েতনামের ফুটবল লিগ। লকডাউনের পর শুক্রবারই শুরু হয় ভি লিগ-১। প্রথম দিনেই স্টেডিয়ামে দেখা যায় হাজার হাজার সমর্থকদের।

সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বালাই ছিল না কারও মধ্যে। কাঁধে কাঁধ ঠেকিয়ে সকলে বসেছিলেন দর্শকাসনে। অল্প কিছু মানুষের মুখে ছিল মাস্ক। মাঠে ঢোকার সময় দর্শকদের জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন স্টেডিয়ামকর্মীরা। থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থাও ছিল। তবে ভাইরাস নিয়ে বিন্দুমাত্র আতঙ্ক ছিল না কারও মধ্যে। 

নাম দিন স্টেডিয়ামের ৩০ হাজার দর্শকাসন কার্যত কানায় কানায় পূর্ণ ছিল প্রথম দিনেই। দর্শকদের স্পষ্ট বলতে শোনা যায় যে, ভাইরাস সংক্রমণের ভয় থাকলে তাঁরা মাঠেই আসতেন না।

ভিয়েতনামে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা মাত্র ৩২৮। সেদেশে কেউ মারা যাননি ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। যেভাবে বিপুল হারে করোনা টেস্টের ব্যবস্থা করে ভিয়েতনাম এবং কেন্দ্রীয় কোয়ারান্টাইন ব্যবস্থা গড়ে তোলে, তা বাকি দেশগুলির প্রশংসা কুড়িয়েছে। সেকারণেই করোনা ভাইরাসের উপর নিয়ন্ত্রণ কায়েম করে সবার আগে অর্থনৈতিক পরিকাঠামো পুনরায় সুদৃঢ় করার কাজে নেমে পড়েছে ভিয়েতনাম।

বন্ধ করুন