বাংলা নিউজ > টেকটক > কাজ শেষ হয়ে গেলেই পালাবে এই মাউজ! বসকে কিনে দিতে বলুন!
ফাইল ছবি: স্যামসাং (Samsung)

কাজ শেষ হয়ে গেলেই পালাবে এই মাউজ! বসকে কিনে দিতে বলুন!

  • স্যামসাংয়ের শেয়ার করা ভিডিয়োটিতে দেখা যাচ্ছে, একজন ব্যক্তি তাঁর নির্ধারিত অফিসের সময় সন্ধ্যা ৬টার পরেও কাজ করছেন। কিন্তু মজার বিষয় হল, মাউজটি আক্ষরিক অর্থেই একটি ইঁদুরের মতো ডেস্ক থেকে পালিয়ে যাচ্ছে।

মাউজ ছাড়া কম্পিউটার অচল। আর কম্পিউটার অচল মানেই কাজ বন্ধ। সেই ভাবনা থেকেই নতুন 'ব্যালেন্স মাউজ' আনল স্যামসাং। অফিস সময় পেরিয়ে গেলেই কাজ করা বন্ধ করে দেবে এই মাউজ। সংস্থার কোরিয়ান ইউটিউব চ্যানেলে এই অভিনব কনসেপ্ট প্রকাশ করা হয়েছে। এর ফলে কাজের শিফট শেষ হলেই আর কাজ করতে হবে না কর্মীদের। আর একইভাবে সময় শেষ হয়ে যাওয়ার ভয়ে সারাদিন দ্রুত কাজ করবেন তাঁরা।

অফিস ও ব্যক্তিগত জীবনের ভারসাম্য। বর্তমানে পেশার ক্ষেত্রে বেশ বিতর্কিত বিষয় এটি। অনেক চাকুরিজীবীর অভিযোগ, অতিরিক্ত কাজ করার ফলে তাঁদের স্বাস্থ্য এবং সম্পর্কে প্রভাব পড়ে। কোভিড -১৯ মহামারীর সময় থেকে এখন অনেকেরই ওয়ার্ক ফ্রম হোম। তাতে বাড়ির জন্য সময় বাড়লেও, কাজ ও ব্যক্তিগত জীবনের সীমারেখাটা যেন মুছে গিয়েছে।

স্যামসাংয়ের শেয়ার করা ভিডিয়োটিতে দেখা যাচ্ছে, একজন ব্যক্তি তাঁর নির্ধারিত অফিসের সময় সন্ধ্যা ৬টার পরেও কাজ করছেন। কিন্তু মজার বিষয় হল, মাউজটি আক্ষরিক অর্থেই একটি ইঁদুরের মতো ডেস্ক থেকে পালিয়ে যাচ্ছে।

মাউজটি হাতের নড়াচড়াকে চিহ্নিত করতে পারে। সময় পেরিয়ে গেলেই এর চাকা বেরিয়ে আসে এবং পালিয়ে যায়। এর ফলে কর্মী কাজ করতে গেলে তাতে বাধা পড়বে। এভাবেই অভিনব উপায়ে কাজের সময় বেঁধে দিতে সাহায্য করবে স্যামসাংয়ের এই 'ব্যালেন্স মাউজ'।

তবে জানিয়ে রাখা ভাল, আপাতত সম্পূর্ণ বিজ্ঞাপনের কনসেপ্ট হিসাবে এই মাউজ বানিয়েছে স্যামসাং। তাই আপনি চাইলেও আপাতত বসকে এই মাউজ গিফট করতে বলতে পারবেন না। 

বন্ধ করুন