বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বড় ধসের পথে বঙ্গ–বিজেপি, অর্জুন সিংয়ের লম্বা তালিকা পৌঁছল অভিষেকের হাতে
উত্তরীয় পরিয়ে অর্জুন সিংকে দলে ফেরান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

বড় ধসের পথে বঙ্গ–বিজেপি, অর্জুন সিংয়ের লম্বা তালিকা পৌঁছল অভিষেকের হাতে

  • উত্তর ২৪ পরগণা জেলার পাঁচটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের নজর এখন বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্র। কারণ জেলার চারটি লোকসভা কেন্দ্র দমদম, বারাসত, বারাকপুর এবং বসিরহাট তৃণমূল কংগ্রেসের হাতে। শুধু বনগাঁ রয়েছে বিজেপির হাতে। এখানে ঘাসফুল ফোটানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অর্জুন সিংয়ের হাতে।

‘‌মিশন শ্যামনগর’‌। এখানেই আরও বড় ধস নামতে চলেছে বিজেপির সংগঠনে। আগামী সোমবার শ্যামনগরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা। আর সেখানেই বিজেপি ত্যাগ করে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা কাঁধে তুলে নেবেন একঝাঁক নেতা–কর্মী। এই যোগদানের একটি লম্বা তালিকা তৈরি করে ফেলেছেন সদ্য তৃণমূল কংগ্রেসে ফেরা অর্জুন সিং। আর সেই তালিকা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে পৌঁছে গিয়েছে।

বিষয়টি ঠিক কী ঘটতে চলেছে?‌ সূত্রের খবর, উত্তর ২৪ পরগণা জেলার পাঁচটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের নজর এখন বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্র। কারণ জেলার চারটি লোকসভা কেন্দ্র দমদম, বারাসত, বারাকপুর এবং বসিরহাট তৃণমূল কংগ্রেসের হাতে। শুধু বনগাঁ রয়েছে বিজেপির হাতে। এখানে ঘাসফুল ফোটানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অর্জুন সিংয়ের হাতে। আর অর্জুন সিং ঠিক কী বলছেন?‌ এই বিষয়ে তিনি বলেন, ‘‌আগামী লোকসভা নির্বাচনই এখন পাখির চোখ। রাজ্যের ৪২টি আসনেই জিতবে তৃণমূল। শূন্যতে নামবে বিজেপি।’‌

কোথায় এই ধস নামবে?‌ আগামী ৩০ মে শ্যামনগরের অন্নপূর্ণা জুটমিলে জনসভা করবেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই ভাটপাড়ার বিধায়ক পবন সিং বিজেপি ছেড়ে যোগ দেবেন তৃণমূল কংগ্রেসে বলে সূত্রের খবর। অর্জুন সিং তৃণমূল কংগ্রেসে ফেরায় ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে দল আরও শক্তিশালী হল বলে দাবি নেতৃত্বের। এখানেই একঝাঁক বিজেপি নেতা–কর্মী তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেবেন।

ঠিক কী বলেছেন সাংসদ?‌ সংবাদমাধ্যমে অর্জুন সিংয়ের বক্তব্য, ‘‌বিজেপিতে সংগঠন বলে কিছু নেই। গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি সরকার গঠন করবে বলে মিডিয়া প্রচার করেছিল। কিন্তু দিল্লির নেতারা জানতেন যে, বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় আসতে পারবে না। সংগঠন না থাকায় পঞ্চায়েত ভোটেও ওরা ধরাশায়ী হবে। বিজেপির সংগঠন খুবই দুর্বল। আরও দুর্বল হতে শুরু করেছে।’‌ এই ধস আটকাতে বুধবার বৈঠকে বসছেন শুভেন্দু অধিকারী। এখন দেখার শেষ পর্যন্ত কোনদিকে জল গড়ায়।

বন্ধ করুন