বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > প্রতারণা ও মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার ফলতার তৃণমূলি প্রধান সনাতন প্রামাণিক
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

প্রতারণা ও মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার ফলতার তৃণমূলি প্রধান সনাতন প্রামাণিক

  • পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, এক মাছ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাঁকে ফেরত দেননি সনাতন। টাকা চাইতে গেলে মাছ ব্যবসায়ীকে তিনি মারধর করেন বলে অভিযোগ। এর পর পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন ওই ব্যবসায়ী।

ব্যবসায়ীকে প্রতারণা ও মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার ফলতার দেবীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলি প্রধান সনাতন প্রামাণিক। বুধবার নিজের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর আগে তোলা না দেওয়ায় এক ইঞ্জিনিয়ারকে ক্লাবে তুলে নিয়ে গিয়ে ব্যাপক মারধর করার অভিযোগ ছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সেই ঘটনায় আদালত থেকে জামিন পান সনাতন।

পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, এক মাছ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাঁকে ফেরত দেননি সনাতন। টাকা চাইতে গেলে মাছ ব্যবসায়ীকে তিনি মারধর করেন বলে অভিযোগ। এর পর পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন ওই ব্যবসায়ী। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার সনাতনকে বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে ফলতা থানার পুলিশ।

বলে রাখি, গত মাসে ফলতায় এক ইঞ্জিনিয়ার দম্পতি গাছের নার্সারি করার জন্য নিজেদের কেনা জমির সামনে মাটি ফেলেছিলেন। সেজন্য ওই দম্পতির কাছে ২ লক্ষ টাকা তোলা চান সনাতন। অত টাকা তিনি দিতে পারবেন না বলায় ইঞ্জিনিয়ারকে প্রকাশ্যে মারধর করেন সনাতন ও তাঁর সাঙ্গপাঙ্গরা। এর পর তাঁকে ক্লাবে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধর করা হয়। স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হন সনাতনের স্ত্রীও। এই ঘটনায় রাজ্যজুড়ে শোরগোল পড়ে। ওদিকে আত্মসমর্পণ করে আদালত থেকে জামিন পান সনাতন। যাতে সেই ঘটনায় জেলযাত্রার হাত থেকে রক্ষা পান তিনি।

যদিও বিজেপির দাবি, সনাতনের গ্রেফতারি আসলে মানুষের চোখে ধুলো দেওয়ার চেষ্টা। ইঞ্জিনিয়ার ও তাঁর স্ত্রীকে মারধরের ঘটনা সংবাদমাধ্যমে সম্প্রচারিত হওয়ায় যে ভাবে জনমনে প্রভাব পড়েছিল তা থেকে বাঁচতেই সনাতনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। রাজ্যের পঞ্চায়েতে পঞ্চায়েতে শাসকদলের এই ধরণের নেতারা ঘুরে বেড়াচ্ছেন বহাল তবিয়তেই। বিজেপির আশঙ্কা, খুব দ্রুত জামিনও হয়ে যাবে সনাতন প্রামাণিকের।

 

বন্ধ করুন