বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দিঘার সমুদ্রসৈকতকে মুড়ে ফেলা হচ্ছে সিসিটিভি ক্যামেরায়, বাজবে রবীন্দ্রসঙ্গীতও‌
সৈকতনগরী দিঘায় আছড়ে পড়ল ভিড়।

দিঘার সমুদ্রসৈকতকে মুড়ে ফেলা হচ্ছে সিসিটিভি ক্যামেরায়, বাজবে রবীন্দ্রসঙ্গীতও‌

  • এই গরমের ছুটিতে সেখানে ভিড় জমিয়েছেন পর্যটকরা। তবে নানা অভিযোগ ওঠায় পর্যটকদের জন্য কয়েকটি নিয়ম বদল হয়েছে। এখন থেকে এখানে ভ্রমণের সময় কোনও পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে হবে। দিঘায় হোটেলে প্রবেশের পর সকলকে রেজিস্টারে নাম নথিভুক্ত করতে হবে। নেশাগ্রস্থ অবস্থায় সমুদ্রে নামা যাবে না।

গরীবের গোয়া বলতে দিঘাকেই বোঝায়। কম খরচে বাঙালির ‘‌ফেভারিট ডেস্টিনেশন’। এবার এই সমুদ্র সৈকতেই চলবে ‘২৪ ঘণ্টা নজরদারি’। মুড়ে ফেলা হবে সিসিটিভি নিরাপত্তায়। কোনও অসামাজিক কাজকর্ম যাতে না হয় তাই পদক্ষেপ করা হচ্ছে। তবে পর্যটকদের আকর্ষণ বাড়াতে সমুদ্রসৈকত জুড়ে বাজবে রবীন্দ্র সঙ্গীত।

ঠিক কী ঘটতে চলেছে দিঘায়?‌ এই বিষয়ে দিঘা শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের এক্সিকিউটিভ অফিসার মানস কুমার মণ্ডল সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘‌দিঘাকে আরও সুন্দর এবং নিরাপদ করতে উদ্যোগী হয়েছে প্রশাসন। আগেও দিঘাতে সিসিটিভি’‌র নিরাপত্তা ছিল। এবার সেই নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হচ্ছে। মদ্যপান এখানে যাতে করা না যায় তাও দেখা হবে।’‌

বাড়তি সংযোজন কী মিলবে?‌ পর্যটকদের জন্য বাড়তি আকর্ষণ হিসাবে সমুদ্রসৈকতে বাজবে রবীন্দ্রসঙ্গীত। ঘূর্ণিঝড় আমফান তছনছ করে দিয়েছিল দিঘা। তাই বাঙালির এই পর্যটন কেন্দ্রকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা করেছে প্রশাসন। স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছিলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পর্যটকদের কথা ভেবে দিঘার সমুদ্রসৈকতে শোনানো হবে রবীন্দ্রসঙ্গীত।

উল্লেখ্য, এই গরমের ছুটিতে সেখানে ভিড় জমিয়েছেন পর্যটকরা। তবে নানা অভিযোগ ওঠায় পর্যটকদের জন্য কয়েকটি নিয়ম বদল হয়েছে। এখন থেকে এখানে ভ্রমণের সময় কোনও পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে হবে। দিঘায় হোটেলে প্রবেশের পর সকলকে রেজিস্টারে নাম নথিভুক্ত করতে হবে। নেশাগ্রস্থ অবস্থায় সমুদ্রে নামা যাবে না এবং সমুদ্র সৈকতে বসে মদ্যপান করা যাবে না।

বন্ধ করুন