বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Mid day meal: শীতকালীন আনাজের দাম নিয়ন্ত্রণে, পড়ুয়াদের মিড ডে মিলের পাতে সপ্তাহে ৩ দিন ডিম

Mid day meal: শীতকালীন আনাজের দাম নিয়ন্ত্রণে, পড়ুয়াদের মিড ডে মিলের পাতে সপ্তাহে ৩ দিন ডিম

মিড ডে মিল খাচ্ছে পডুয়ারা (প্রতীকী ছবি)

অনেক স্কুলই আবার পড়ুয়াদের সপ্তাহে একদিন পোল্ট্রি মাংসও খাওয়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শীতকালে আনাজের দাম নিয়ন্ত্রণের মধ্যে থাকার ফলে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মুর্শিদাবাদের বেশ কয়েকটি স্কুল। জেলার হরিহরপাড়া, নওদা-সহ বিভিন্ন জায়গার স্কুলে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

শীতের মরশুমে কমেছে শাক সবজির দাম। যার ফলে মিড ডে মিলে পড়ুয়াদের পাতে দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের সবজি। প্রতিদিন আলাদা আলাদা মেনু থাকছে মিড ডে মিলের পাতে। সবজির দাম কমে যাওয়ায় এবার মিড ডে মিলে সপ্তাহে ৩ দিন ডিম দেওয়া হবে। আগামী মার্চ মাস পর্যন্ত শীতকালীন সবজি থাকছে। তাই এই সময় পর্যন্ত পড়ুয়াদের মিড ডে মিলের পাতে তিনদিন করে ডিম দেওয়া হবে বলে মুর্শিদাবাদের জেলা প্রশাসন ও শিক্ষা দফতরের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তবে শুধু ডিম নয়, অনেক স্কুলই আবার পড়ুয়াদের সপ্তাহে একদিন পোল্ট্রি মাংসও খাওয়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শীতকালে আনাজের দাম নিয়ন্ত্রণের মধ্যে থাকার ফলে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মুর্শিদাবাদের বেশ কয়েকটি স্কুল। জেলার হরিহরপাড়া, নওদা সহ বিভিন্ন জায়গার স্কুলে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে বাজারে সবজি মিলছে খুব সস্তায়। পাইকারিতে আলু মিলছে ১০ থেকে ১২ টাকা কেজি দরে। আবার পাইকারিতে ফুলকপি, বাঁধাকপি আড়াই থেকে তিন টাকা কেজি দরে মিলছে। শীতকালীন অন্যান্য সবজি যেমন সিম, মূলো, পালং, গাজরও মিলছে কম টাকায়। মিড ডে মিলের খরচের জন্য পড়ুয়াদের মাথাপিছু যে অর্থ বরাদ্দ রয়েছে সেই অর্থের মধ্যে এখন পড়ুয়াদের সপ্তাহে ৩ দিন ডিম দেওয়া সম্ভব হবে বলে মনে করছে শিক্ষা দফতর।

হরিহরপাড়া হাইস্কুল সূত্রে জানা গিয়েছে, এই স্কুলে প্রতিদিন গড়ে ১৩০০ জন পড়ুয়াকে খাওয়ানো হয়। এখন শীতকালীন আনাজের দাম নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে। ফলে পাইকারি কিনলে অনেকটাই সাশ্রয় হয়। সেই টাকা দিয়ে একদিন পড়ুয়াদের মুরগির মাংস খাওয়ানো যেতেই পারে বলে জানিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। এদিকে, সোমবার নওদার বালি গান্ধী মেমোরিয়াল হাইস্কুলে পড়ুয়াদের পাতে ছিল ভাত, ডাল, আলু কুমড়ো এবং ডিমের তরকারি। এই স্কুলে সপ্তাহে একদিন পোল্ট্রির মাংস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হামিদ বিশ্বাস। এ বিষয়ে হরিহর পাড়া ব্লকের বিডিও রাজা ভৌমিক জানান, শীতকালীন আনাজের দাম এখন নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রয়েছে। তাই সপ্তাহে ৩ দিন ডিম খাওয়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অনেক স্কুলে মুরগির মাংস দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী মার্চ মাস পর্যন্ত এরকম চলবে।

বন্ধ করুন