বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কাঁথিতে তৃণমূলকে ‘হায়দরাবাদের একটা পার্টি’ বলে কটাক্ষ শুভেন্দুর
শুক্রবার কাঁথির ডরমেটরি ময়দানে শুভেন্দু অধিকারী। 
শুক্রবার কাঁথির ডরমেটরি ময়দানে শুভেন্দু অধিকারী। 

কাঁথিতে তৃণমূলকে ‘হায়দরাবাদের একটা পার্টি’ বলে কটাক্ষ শুভেন্দুর

  • বিজেপিতে যোগ দিলেন সৌমেন্দু অধিকারী-সহ তৃণমূলের ১৫ জন কাউন্সিলর

কাঁথিতে সৌমেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগদানের মঞ্চ থেকেই ফের একবার তৃণমূলকে আক্রমণ করলেন দাদা শুভেন্দু। শুক্রবার সন্ধ্যায় তৃণমূলকে ফের জবাব দিলেন তিনি। চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বললেন, ৩০ জানুয়ারির মধ্যে জেলায় নকল ভোটিং মেশিন দেখানোর লোক পাবে না তৃণমূল। 

এদিন কাঁথির ডরমেটরি ময়দানে শুভেন্দুর গলায় শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ছিল তৃণমূলের সমালোচনা। এই মাঠেই গত ২৩ ডিসেম্বর সভা করেছিল তৃণমূল। শুরুতে তিনি বলেন, ‘আমি ইংরাজি নববর্ষের থেকে বেশি কল্পতরু উৎসব পালন করি’। সবাইকে কল্পতরু উৎসবের শুভেচ্ছাও জানান তিনি। 

এর পরই তৃণমূলকে আক্রমণ শুরু করেন তিনি। কাঁথি-সহ রাজ্যের পুরসভা ও পুরনিগমগুলিতে নির্বাচন না হওয়ায় কাঠগড়ায় তোলেন রাজ্য সরকারকে। বলেন, ‘এই সরকার ভোটকে ভয় পায়। সবাইকে ঝুলিয়ে রেখেছে। আর ভোট করলেই পঞ্চায়েতের মতো অবস্থা হবে। ভোট লুঠ করবে আর পরের ভোটে হারবে। তাই পৌরসভা, করপোরেশনের ভোট করার ক্ষমতা নেই’। 

এর পরই মেদিনীপুর থেকে তৃণমূলকে উৎখাতের ডাক দেন তিনি বলেন। ‘আমি আর দিলীপ ঘোষ মিলে মাইনাস থাকা আসনগুলোকে প্লাস করতে করতে যাবো। আজ পয়লা জানুয়ারি, বছরের প্রথম দিন, শপথ নিলাম। প্রতিদিন এরকম যোগদান মেলা হবে। আগামিকাল হলদিয়া উন্নয়ন ব্লকের দাড়িবেড়িয়াতে হবে। গণতান্ত্রিক ভাবে, শিষ্টাচার মেনে ৩০ জানুয়ারির মধ্যে আমরা এমন পরিস্থিতি তৈরি করবো তাতে ভারতীয় জনতা পার্টি এখানে নিরঙ্কুশ নয়, ১০০ শতাংশ সাফল্যের জায়গায় পৌঁছে যাবে। তৃণমূল কংগ্রেস বুথে বাড়ি বাড়ি গিয়ে নকল ভোটিং মেশিন দেখানোর মতো লোক তারা খুঁজে পাবে না’। 

তৃণমূলকে উৎশৃঙ্খলের দল বলে দাবি করে শুভেন্দু বলেন, ‘২৩ তারিখে এখানে একটা মিছিল হয়েছে, কাদের মিছিল? উৎশৃঙ্খল কিছু লোক। বিজেপির পতাকা ছিঁড়েছে, আমার ছবি কোথাও ছিঁড়েছে, কোথাও কালি লাগিয়েছে। এর উত্তর দেওয়ার মতো আমাদের লোক আছে। কিন্তু আমি বলেছিলাম, না করতে দেও। এদের স্বরূপটা লোকে দেখুক’।

তৃণমূলের সভাকে ‘হায়দরাবাদের একটা পার্টির মিটিং’ বলে আক্রমণ করেন শুভেন্দু। বলেন, ‘আমি তো বাইরে ছিলাম। আমাকে ফোন করে লোকে বলছে, হায়দরাবাদে একটা পার্টি আছে, সেই পার্টির মিটিং হচ্ছে ডরমেটোরির মাঠে। পার্টির নামটা আমি আর বলছি না। ওটা কোনও পার্টির মিটিং ছিল না। এসেছিলেন গার্ডেনরিচ আর মেটিয়াবুরুজকে মিনি পাকিস্তান বলা মন্ত্রী আর তোলাবাজ ভাইপোর জ্যাঠামশাই’।

মেদিনীপুরে বিশ্বাসঘাতক জন্মায় বলে তৃণমূল সাংসদের মন্তব্যে বদলা নেওয়ার ডাক দেন নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক। বলেন, ‘২০০৯ সালে মহিষাদলে প্রণব মুখোপাধ্যায় প্রচারে এসে বলেছিলেন, আপনারা শুভেন্দুকে জেতান। ও মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করবে না। অমিত মিত্র রাজ্যের অর্থমন্ত্রী, আবগারি মন্ত্রী। চাকরি তো দিতে পারেননি বেকারদের ২০ টাকার পাউচ বিক্রির ব্যবস্থা করেছেন। সেই পাউচ খেয়ে, জর্জ ফার্নান্ডেজের টাকায় তৈরি তৃণমূল ভবনে বসে দলের এক সাংসদ বললেন, মেদিনীপুরে বিশ্বাসঘাতক জন্মায়। বদলা নেবেন না আপনারা? অবিভক্ত মেদিনীপুর প্রশাসনিকভাবে ত্রিখণ্ডিত। কিন্তু আমরা বদলা নেব এবারের নির্বাচনে’।

তৃণমূল কোম্পানি হয়ে গিয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। বলেন, ‘গত ১২ দিন ধরে সমানে গালাগালি করে যাচ্ছে। যত রকম গালাগালি। সোশ্যাল মিডিয়ায় কী একটা কোম্পানিকে নিয়ে এসেছে। ৪০০ কোটি না ৫০০ কোটি জানি না। আপনারা বলতে পারেন, আপনি তো ভিতরেই ছিলেন তাহলে কেন জানেন না? ওখানে জানার কোনও সুযোগ নেই। ওটা কোম্পানি, ওটা এখন আর পার্টি নেই। দেড়জনের পার্টি, পিসি আর ভাইপো। বাকিগুলোকে কর্মচারী করে দিয়েছে’। 

এদিনের সভায় শুভেন্দুর হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেন কাঁথি পুরসভার অপসৃত প্রশাসক সৌমেন্দু অধিকারী। তাঁর সঙ্গে বিজেপিতে যোগ দেন আরও ১৫ জন প্রাক্তন কাউন্সিলর। তাঁদের মধ্যে ১৩ জন সশরীরে সভায় হাজির ছিলেন। বাকি ২ জন শারীরিক অসুস্থতার জন্য চিঠি পাঠিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেন। এর ফলে ২১ আসনের কাঁথি পুরসভায় ১৫ জন প্রাক্তন কাউন্সিলর যোগ দিলেন বিজেপিতে। 

 

বন্ধ করুন