বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, সৌমিত্র খাঁর দাবি ঘিরে শোরগোল
প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, সৌমিত্র খাঁর দাবি ঘিরে শোরগোল

  • সৌমিত্র খাঁর দাবি অবাস্তব ও মনগড়া বলে জানিয়েছেন প্রসূনবাবু। তিনি বলেন, ১৯৯২ সাল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে রয়েছি। তৃণমূলই আমাকে রাজনৈতিক পরিচয় দিয়েছে। শেষ ব্যক্তি হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে থাকবো।

ফের বিস্ফোরক সৌমিত্র খাঁ। এবার তাঁর দাবি, বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন হাওড়ার তৃণমূল সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার হাওড়ায়, দিলীপ ঘোষের সামনে দাঁড়িয়ে একথা বলেন তিনি। সৌমিত্র খাঁয়ের দাবিকে মশকরা বলে মন্তব্য করেছেন প্রসূনবাবু। তৃণমূলের দাবি, দলীয় কর্মীদের মধ্যে বিভ্রান্তি তৈরি করতে একথা বলেছেন সৌমিত্র। 

বুধবার হাওড়ায় এক সভায় সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘একজন ক্রিকেটার আগেই চলে গিয়েছেন। ফুটবলারও আর থাকবেন না। বিজেপিতে চলে আসবেন। বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়।’

সৌমিত্র খাঁর দাবি অবাস্তব ও মনগড়া বলে জানিয়েছেন প্রসূনবাবু। তিনি বলেন, ১৯৯২ সাল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে রয়েছি। তৃণমূলই আমাকে রাজনৈতিক পরিচয় দিয়েছে। শেষ ব্যক্তি হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে থাকবো। তাছাড়া দলবদল করলে হাওড়ার মানুষের কাছে কী জবাব দেব’? প্রসূনবাবু বলেন, ‘সম্ভবত সৌমিত্র আমাকে নিয়ে মশকরা করেছে।’

বলে রাখি, হাওড়ায় তৃণমূলের অন্দরের কোন্দল দীর্ঘদিনের। বিশেষ করে হাওড়ার শহরাঞ্চলে গোষ্ঠীকোন্দল ভাঙনে পরিণত হয়েছে। গত কয়েক মাস ধরে দলের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখছেন ডোমজুড়ের বিধায়ক তথা মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। দল ছেড়েছেন হাওড়া শহর তৃণমূলের সভাপতি লক্ষ্মীরতন শুক্লা। প্রাক্তন মেয়র তথা চিকিৎসক রথীন চট্টোপাধ্যায়ও দলের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে সরব হয়েছেন। দলের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন বালির বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়াও। এই পরিস্থিতিতে সৌমিত্র খাঁর দাবি নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে তৃণমূলের অন্দরেই। 

 

বন্ধ করুন