বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > 'বিজ্ঞপ্তি জারির এতপরে কেন এলেন?', ভবানীপুর উপনির্বাচন নিয়ে মামলার দ্রুত শুনানির আবেদন খারিজ হাই কোর্টে
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
কলকাতা হাইকোর্ট (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

'বিজ্ঞপ্তি জারির এতপরে কেন এলেন?', ভবানীপুর উপনির্বাচন নিয়ে মামলার দ্রুত শুনানির আবেদন খারিজ হাই কোর্টে

  • আইনজীবী সায়ন বন্দ্যোপাধ্যায়ের দায়ের করা জনস্বার্থ মামলার পরবর্তী শুনানি হবে ২০ সেপ্টেম্বর।

ভবানীপুর উপনির্বাচন নিয়ে মামলার দ্রুত শুনানির আবেদন খারিজ হাই কোর্টে। এই সংক্রান্ত দুটি মামলা দায়ের হয়েছিল আদালতে। তার মধ্যে একটি মামলা খারিজ করা হয়। আইনজীবী সায়ন বন্দ্যোপাধ্যায়ের দায়ের করা জনস্বার্থ মামলার পরবর্তী শুনানি হবে ২০ সেপ্টেম্বর। এই মামলাটির শুনানি আগামীকাল করার আবেদন করা হলেও তা খারিজ করেন কলকাতা হাই কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল। তাঁর প্রশ্ন, 'বিজ্ঞপ্তি জারির এতপরে কেন এলেন?'

উল্লেখ্য, রাজ্যের বেশ কয়েকটি বিধানসভা আসনই ফাঁকা। সেখানে প্রয়োজন উপনির্বাচন। তবে সেই আসনগুলিতে কবে উপনির্বাচন হবে, তা জানা নেই। এরই মধ্যে 'সাংবিধানিক সংকট' এড়াতে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কেন্দ্র ভবানীপুরে। আর এই নিয়ে আপত্তি তুলে মামলা দায়ের হয় হাই কোর্টে। আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্যর। তাঁর প্রশ্ন, শুধুমাত্র ভবানীপুরে কেন উপনির্বাচন হবে? আর এই প্রশ্ন করেই কলকাতা হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়।

রাজ্যে মোট ৫টি কেন্দ্রে উপনির্বাচন করার কথা। পাশাপাশি দু'টি কেন্দ্রে নির্বাচন করা হয়নি। এই সব কেন্দ্রগুলিতেই একসঙ্গে নির্বাচন করার কথা থাকলেও কলকাতার ভবানীপুর কেন্দ্রে উপনির্বাচন করার আর্জি জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যসচিব এইচকে দ্বিবেদী। মুখ্যসচিবের দাবি মেনে একটি আসনে উপনির্বাচন এবং রাজ্যের দুটি আসনে নির্বাচন করাতে সম্মত হয় কমিশন। এই ইস্যুতে দুটি পৃথক মামলা করেছেন আইনজীবী রমাপ্রসাদ সরকার এবং আইনজীবী সায়ন বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে রমাপ্রসাদ সরকারের দায়ের করা মামলার আবেদনটি খারিজ করে দেয় উচ্চ আদালত।

বন্ধ করুন