বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ব্যাঙ্ককের অ্যাকাউন্ট নিয়ে প্রশ্ন? দেড় ঘণ্টায় রুজিরার জিজ্ঞাসাবাদ শেষ CBI-এর
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়র বাড়ির সামনে পুলিশি প্রহরা। (ফািল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়র বাড়ির সামনে পুলিশি প্রহরা। (ফািল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

ব্যাঙ্ককের অ্যাকাউন্ট নিয়ে প্রশ্ন? দেড় ঘণ্টায় রুজিরার জিজ্ঞাসাবাদ শেষ CBI-এর

  • দুপুর ১ টা ১০ মিনিট নাগাদ অভিষেকের বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার দল।

ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদ হল না। বরং সকাল থেকে চূড়ান্ত নাটকীয়তার মধ্যেই দেড় ঘণ্টার মতো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরাকে জিজ্ঞাসাবাদ করল সিবিআই। মঙ্গলবার দুপুর ১ টা ১০ মিনিট নাগাদ অভিষেকের বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার দল।

কয়লাকাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মঙ্গলবার সকাল ১১ টা ৩৫ মিনিট নাগাদ হরিশ মুখার্জি রোডে অভিষেকের বাড়ি ‘শান্তিনিকেতনে’ ঢোকে সিবিআই। দলে ছিলেন ছ'জন আধিকারিক এবং তিনজন আইনজীবী। সূত্রের খবর, বাড়ির নিচের তলে জিজ্ঞাসাবাদ পর্ব চলে। সেখানে প্রাথমিক প্রশ্নের পর বিদেশের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত একাধিক প্রশ্ন করা হয়। বিদেশে রুজিরার বিদেশে অ্যাকাউন্ট আছে কিনা, তা জানতে চাওয়া হয়। অ্যাকাউন্ট থাকলে সেই সংক্রান্ত তথ্য জানাতে বলে সিবিআই। একইসঙ্গে বিদেশি অ্যাকাউন্ট থেকে কোথায় কোথায় বিনিয়োগ করা হয়েছে বা লেনদেন কোথায় কোথায় হয়েছে, তা জানতে চাওয়া হয় বলে সূত্রের খবর।

তবে পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে, সে বিষয়ে সিবিআইয়ের তরফে কিছু জানানো হয়নি। সূত্রের খবর, রুজিরার সঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদের পর্ব নিয়ে নিজাম প্যালেসের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক সারবেন সিবিআই আধিকারিকরা। রুজিরার উত্তরের নির্যাস বিশ্লেষণ করা হবে। অভিষেকের শ্যালিকা মেনকা গান্ধী যে উত্তর দিয়েছেন, তার সঙ্গে রুজিরার বয়ান মিলিয়ে দেখবে সিবিআই। তার ভিত্তিতে পরবর্তী পদক্ষেপ নির্ধারণ করা হবে। এমনিতেই রুজিরার জিজ্ঞাসাবাদ পর্বের ভিডিয়োগ্রাফ করা হয়েছে। ভিডিয়ো কলে অভিষেক-পত্নীর উত্তরও জানানো হয়েছে বলে সূত্রের খবব।

অন্যদিকে একটি মহলের খবর, রুজিরার নাগরিকত্ব নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে তথ্য চেয়ে মেল করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। বিষয়টি নিয়ে সরকারিভাবে কিছু জানানো হয়নি। তবে ওই অংশের দাবি, ২০১০ সালে দিল্লিতে এমবিএ পড়তে গিয়েছিলেন রুজিরা। ২০১০ এবং ২০১৭ সালে তিনি ভারতের নাগরিকত্বের দাবি জানিয়েছেন। কিন্তু ২০১৯ সালে তা খারিজ হয়ে যায় বলে সূত্রের খবর। কলকাতায় সিবিআই সূত্রে খবর, রুজিরাকে নাগরিকত্বের বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়। প্রশ্ন তালিকায়

বন্ধ করুন