বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Mamata Banerjee: ‘আমাদের সময় বিক্ষোভের কথা ভাবতেই পারতাম না’ H.S-এ বিক্ষোভ নিয়ে অবাক মমতা
দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে মমতা। (PTI)

Mamata Banerjee: ‘আমাদের সময় বিক্ষোভের কথা ভাবতেই পারতাম না’ H.S-এ বিক্ষোভ নিয়ে অবাক মমতা

  • তিনি যেমন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কেন্দ্র সরকার ও বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন হয়েছিলেন তেমনিই উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্যদের বিক্ষোভ নিয়ে প্রথমবার মুখ খোলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘উচ্চ মাধ্যমিকে পাশ করতে পারিনি বলে এখানে বিক্ষোভ হচ্ছে, ওখানে বিক্ষোভ হচ্ছে। এগুলো কী?’

গত শুক্রবার প্রকাশিত হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল। তারপর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্য পড়ুয়াদের বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। কোথাও টায়ার পুড়িয়ে আবার বিভিন্ন জায়গায় পথ অবরোধ করে চলছে উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্যদের বিক্ষোভ, যা নজিরবিহীন। কারণ অতীতে কোনওদিন উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্য পড়ুয়াদের বিক্ষোভ এ রাজ্যে দেখা যায়নি। এবার উচ্চমাধ্যমিক পড়ুয়াদের বিক্ষোভ নিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিস্মিত তা তিনি বুঝিয়ে দিলেন।

গতকালই দিল্লি থেকে ফিরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দক্ষিণেশ্বরে গিয়েছিলেন। সেখানে একটি মিউজিয়ামের উদ্বোধন করতে গিয়ে একাধিক বিষয় নিয়ে বক্তব্য রাখেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি যেমন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কেন্দ্র সরকার ও বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন হয়েছিলেন তেমনিই উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্যদের বিক্ষোভ নিয়ে প্রথমবার মুখ খোলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘উচ্চ মাধ্যমিকে পাশ করতে পারিনি বলে এখানে বিক্ষোভ হচ্ছে, ওখানে বিক্ষোভ হচ্ছে। এগুলো কী? আমাদের সময় এইসব কথা ভাবতেই পারতাম না।’ বিক্ষোভ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘এটা পড়ুয়াদের দোষ না, যারা গাইড করছে তাদের দোষ।’ এরপর তিনি পড়ুয়াদের কাজী নজরুল ইসলাম, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের বই পড়ার পরামর্শ দেন।

প্রসঙ্গত, উচ্চমাধ্যমিকে ফল প্রকাশের পরে অকৃতকার্য পড়ুয়াদের বিক্ষোভ সবচেয়ে বেশি দেখা যাচ্ছে উত্তরবঙ্গে। পড়ুয়াদের অনেকেরই দাবি, রাজ্য সরকার বর্তমানে চাকরি দিতে পারছে না। তাই তাদের ফেল করিয়ে দেওয়া হচ্ছে। উচ্চমাধ্যমিকে অকৃতকার্যদের পক্ষে সওয়াল করে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষও বলেছিলেন, পড়াশোনা করেও পড়ুয়ারা ফেল করছে। অথচ পড়াশোনা না করেও ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ নম্বর পাচ্ছে অনেকে। এর জন্য রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থাকে দায়ী করেন দিলীপ ঘোষ।

বন্ধ করুন