বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Firhad Hakim: ‘‌‌শহরের ফুটপাত ভবঘুরে মুক্ত করা হবে’, কেমন করে?‌ জানিয়ে দিলেন মেয়র‌

Firhad Hakim: ‘‌‌শহরের ফুটপাত ভবঘুরে মুক্ত করা হবে’, কেমন করে?‌ জানিয়ে দিলেন মেয়র‌

সাংবাদিক বৈঠকে মেয়র ফিরহাদ হাকিম। (নিজস্ব চিত্র)

শহরের ভবঘুরেদের এক ছাতার তলায় নিয়ে আসা হবে।‌ আর সমস্ত ভবঘুরেদের কলকাতা পুরসভার শেল্টার হোমে থাকতে হবে। তাছাড়া বহিরাগতরা আর ভবঘুরে হয়ে থাকতে পারবে না। ফুটপাত থেকে ভবঘুরেদের সরানো হবে। একইসঙ্গে নতুন করে আর শহরের রাস্তায় ভবঘুরেদের ঠাঁই দেওয়া হবে না।

কলকাতা শহরের সৌন্দর্যায়ন আগে করা হলেও তা প্রতিনিয়ত চলছে। বেদখল হয়ে যাওয়া ফুটপাত হকারের কাছ থেকে মুক্ত করা হয়েছিল। নতুন করে পার্কিংয়ের অ্যাপ আনা হয়েছে। আলিপুর–সহ শহরের নানা জায়গায় গাড়ি পার্কিংয়ের বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে। এবার শহরের সৌন্দর্যায়ন বাড়ানোর লক্ষ্যে ফুটপাতগুলি ভবঘুরে–মুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। আজ, শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে সেই কথা জানালেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

কেমন করে সেটা সম্ভব হবে? কলকাতা পুরসভা সূত্রে খবর, শহরের ভবঘুরেদের এক ছাতার তলায় নিয়ে আসা হবে।‌ আর সমস্ত ভবঘুরেদের কলকাতা পুরসভার শেল্টার হোমে থাকতে হবে। তাছাড়া বহিরাগতরা আর ভবঘুরে হয়ে থাকতে পারবে না। ফুটপাত থেকে ভবঘুরেদের সরানো হবে। একইসঙ্গে নতুন করে আর শহরের রাস্তায় ভবঘুরেদের ঠাঁই দেওয়া হবে না। মেয়রের এই উদ্যোগকে কলকাতাবাসী স্বাগত জানিয়েছেন। তাতে ফুটপাত দিয়ে চলাচল করা সহজ হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ঠিক কী বলেছেন মহানাগরিক?‌ আজ, শুক্রবার ফুটপাত থেকে ভবঘুরেদের সরানো নিয়ে কলকাতার মেয়র বলেন, ‘‌কলকাতার ফুটপাত সম্পূর্ণ খালি করতে হবে। বাড়ি থেকে এসে ভবঘুরেরা বসে পড়ছে সেটা মেনে নেওয়া হবে না। শহরকে সুন্দর করে তুলতে হবে। সার্দার্ন অ্যাভিনিউ, কালীঘাট, রাসবিহারী–সহ দক্ষিণ কলকাতার বিভিন্ন এলাকার ফুটপাতগুলি নোংরা হয়ে যাচ্ছে। নাগরিকদের যাতায়াতের সমস্যা হচ্ছে। তাই জঞ্জাল ব্যবস্থাপনা বিভাগকে ভবঘুরে গণনার কাজ করতে বলেছি।’‌

কেমন করে গণনার কাজ শুরু হবে?‌ এই বিষয়ে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম নির্দেশ দেন জঞ্জাল বিভাগকে। তিনি বলেন, ‘‌বোরো ভিত্তিক গণনার কাজ করতে হবে। কোথায় কত ফুটপাতে ভবঘুরে আছে, সংসার বানিয়ে বহিরাগতরা বসে রয়েছে সেটা আগে জানতে হবে। এলাকাভিত্তিক ফুটপাত দখল করে রাখা নিয়ে রিপোর্ট তৈরি করতে হবে। আর এমন কোনও দখলের খবর পেলেই পুলিশকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। সকলের আধার কার্ড আছে কিনা, বহিরাগত কারা আছেব খতিয়ে দেখা হবে। আর ভবঘুরেদের জন্য কলকাতা পুরসভা বিভিন্ন জায়গায় আরবান হোম শেল্টার বানিয়েছে। সেখানে এইসব ফুটপাতবাসীদের ঢুকিয়ে দিতে হবে। তাদের জন্যই ওই ব্যবস্থা করা হয়েছে।’‌

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন