বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আবাস যোজনায় দুর্নীতির অভিযোগের মধ্যেই রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় দল

আবাস যোজনায় দুর্নীতির অভিযোগের মধ্যেই রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় দল

প্রতীকী ছবি

চিঠিতে জানানো হয়েছে, গ্রামে গ্রামে গিয়ে প্রকল্পের সুবিধাভোগী হিসাবে নির্বাচিতদের সঙ্গে কথা বলবেন তাঁরা। তারা প্রকৃতই আবাস যোজনার ঘর পাওয়ার যোগ্য কি না তাও তাঁরা খতিয়ে দেখবেন।

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় রাজ্যের প্রায় প্রতিটি গ্রাম থেকে এসেছে দুর্নীতির অভিযোগ। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর কেন্দ্র আবাস যোজনার বরাদ্দ দিতেই বেরিয়ে পড়েছে দুর্নীতির পাহাড়। সেকথা কানে গিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারেরও। এবার দুর্নীতির বহর দেখতে পশ্চিমবঙ্গে দল পাঠাচ্ছে তারা। কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, ২টি কেন্দ্রীয় দল পূর্ব মেদিনীপুর ও মালদা জেলা পরিদর্শন করবে।

বুধবার কেন্দ্রের তরফে নবান্নে পাঠানো চিঠিতে জানানো হয়েছে, ৩ জন করে ২টি দল চলতি সপ্তাহেই রাজ্যে পৌঁছবে। দলে থাকবেন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন দফতরের পদস্থ কর্তারা। একটি দল পূর্ব মেদিনীপুর ও অপর দলটি মালদায় প্রকল্পের কাজ খতিয়ে দেখবে।

চিঠিতে জানানো হয়েছে, গ্রামে গ্রামে গিয়ে প্রকল্পের সুবিধাভোগী হিসাবে নির্বাচিতদের সঙ্গে কথা বলবেন তাঁরা। তারা প্রকৃতই আবাস যোজনার ঘর পাওয়ার যোগ্য কি না তাও তাঁরা খতিয়ে দেখবেন। এমনকী এর আগে প্রকল্পের অধীনে নির্মিত বাড়িগুলির অবস্থাও পরীক্ষা করবে তারা। নির্মান সামগ্রীর মানে কোনও আপস হয়েছে কি না খতিয়ে দেখবে তা-ও।

রাজ্যে আবাস যোজনায় সব থেকে বেশি দুর্নীতি ধরা পড়েছে পূর্ব মেদিনীপুরে। তৃণমূলের দাবি, ২০১৮ সালে এই প্রকল্পের তালিকা যখন তৈরি হয়েছিল তখন সেখানকার দায়িত্বে ছিল অধিকারী পরিবার। ফলে এই দুর্নীতির দায় তাদের। কিন্তু সেকথা মানতে রাজি নয় বিজেপি। তাদের দাবি, পঞ্চায়েত থেকে জেলা পরিষদ সব তৃণমূলের দখলে। তাহলে দুর্নীতির দায় কী করে অধিকারীদের হতে পারে?

বলে রাখি, রাজ্যে কেন্দ্রীয় দলের সফরের অভিজ্ঞতা বিশেষ সুবিধার নয়। ২০২০ সালে করোন সংক্রমণের সূচনাকালে রাজ্যে কেন্দ্রীয় দল পাঠিয়েছিল নয়া দিল্লি। তাদের সঙ্গে চরম অসহযোগিতার অভিযোগ ওঠে তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে।

 

বন্ধ করুন