বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > আমাজনের এজেন্ট বলে ফোন, প্রাক্তন আমলাকে প্রতারণা করতে গিয়ে ধৃত পাঁচ
শপিং সাইটে লোভনীয় অফারের টোপ, আইএএস অফিসারকে প্রতারণায় ধৃত ভিনরাজ্যের ৫ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
শপিং সাইটে লোভনীয় অফারের টোপ, আইএএস অফিসারকে প্রতারণায় ধৃত ভিনরাজ্যের ৫ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

আমাজনের এজেন্ট বলে ফোন, প্রাক্তন আমলাকে প্রতারণা করতে গিয়ে ধৃত পাঁচ

  • দক্ষিণ শহরতলীতে ঘাঁটি গেড়ে চলছিল প্রতারণা চক্র 

অনলাইনে নামি বিপণন সংস্থার অফারের সামগ্রী কিনতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হলেন প্রাক্তন আইএএস অফিসার। ওই বয়স্ক বৃদ্ধিকে লোভনীয় অফারের আছিলায় তাঁর 8০ হাজার টাকার প্রতারণা করার অভিযোগ উঠল সাইবার জালিয়াতদের বিরুদ্ধে। ঘটনায় দক্ষিণ শহরতলী রিজেন্ট পার্ক ও গলফ গ্রীন এলাকা থেকে ভিনরাজ্যের ৫ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল পুলিশ। বুধবার অভিযুক্তদের বিধাননগর আদালতে তোলা হলে পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রতারণার শিকার হওয়া ৮০ বছরের প্রাক্তন আইএএস অফিসারের নাম পিকে ভার্মা (৮০)। প্রতারিত হওয়া ওই বৃদ্ধ সল্টলেকের বাসিন্দা। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, ধৃতদের মধ্যে মণীশকুমার ঝা বিহারের বাসিন্দা, কার্তিক কুমার, প্রিয়াংশু শর্মা, রাকেশ কুমার ও দীপক কুমার ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা। এই পাঁচ অভিযুক্ত কলকাতায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকছিল একইসঙ্গে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে একই পদ্ধতিতে আর্থিক প্রতারণা চালাচ্ছিল বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, অভিযুক্তদের কাছ থেকে ১৯টি এটিএম কার্ড, ৪টি প্যান কার্ড, ৬টি সিম, ৪টি মোবাইল ফোন, একটি রাউটার, ব্যাঙ্ক পাশবুক, চেক বই ও আঁধার কার্ড বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ।

বিধান নগর সাইবার ক্রাইম থানায় তিনি অভিযোগ দায়ের করেন যে, দু'টি পৃথক ফোন নম্বর থেকে তাঁকে এক অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির ফোন করে। নিজেকে আমাজনের কর্মী বলে ভুয়ো পরিচয় দেয়। একইসঙ্গে সংস্থার ডিসপ্যাচ অফিসার বলেও নিজেকে জাহির করে অভিযুক্ত। তারপর ওই শপিং সাইটে উপলব্ধ বিভিন্ন সামগ্রীর উপর লোভনীয় ছাড়ের অফার দেয়। তারপর তাঁকে সেই দ্রব্যগুলো কেনার জন্য চাপ দিতে থাকে বলে অভিযোগ। এরপর বাধ্য হয়ে ওই বৃদ্ধ দ্রব্যগুলো কেনার জন্য ৪০ হাজার ৬৮৬ টাকা তাদের বলে দেওয়া ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেন। তারপর থেকেই ওই প্রতারিত আইএএস অফিসারের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় অভিযুক্তরা।

প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার দ্বারস্থ হন ওই প্রাক্তন আইএএস অফিসার। তারপরেই বিধাননগর সাইবার ক্রাইম থানার পুলিশ তদন্তে নেমে ওই পাঁচজন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে।

 

বন্ধ করুন