বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Assembly: ‘‌ডোন্ট টাচ মাই বডি, আই অ্যাম মেল’‌, বিধানসভায় পোস্টার হাতে তৃণমূল বিধায়করা
বিধানসভা ভবন।

Assembly: ‘‌ডোন্ট টাচ মাই বডি, আই অ্যাম মেল’‌, বিধানসভায় পোস্টার হাতে তৃণমূল বিধায়করা

  • এই নয়া পোস্টার নিয়ে ঢুকতেই সবাই হেসে ওঠেন। তাতে বিরোধী বেঞ্চ যথেষ্ট বিড়ম্বনায় পড়েন। কারণ এটা ঘটতে পারে তা তাঁরা আন্দাজ করতে পারেননি। এই পোস্টারের নেপথ্যে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্ক রয়েছে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। দুর্নীতি ইস্যুতে সামান্য আয়োজন বিরোধীরা তুললেও জমাতে পারেননি বলেই খবর।

বিধানসভায় আজ, বৃহস্পতিবার বিশেষ অধিবেশন শুরু হয়েছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং অনুব্রত মণ্ডল জেলে যাওয়ার পর এটাই প্রথম বিধানসভার অধিবেশন। তাই বিরোধীরা সরকারপক্ষকে দুর্নীতির ইস্যুতে চেপে ধরতে পারে। কিন্তু সেই সুযোগ যাতে না পায় বিরোধীরা, তাই আজ তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়করা নয়া পোস্টার নিয়ে বিধানশভায় ঢুকতে শুরু করেছেন। যার ছত্রে ছত্রে রাজ্যের বিরোধী দলনেতাকে খোঁচা দেওযা হয়েছে।

ঠিক কী আছে সেই পোস্টারে?‌ বিধানসভা সূত্রে খবর, তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়করা এদিন নয়া পোস্টার নিয়ে বিধানসভায় ঢুকেছে। সেখানে লেখা, ‘‌মোদীজি বলছেন গোটা ভারতকে বিক্রি করতে চান তিনি। নির্মলা তাই— আমাদের সমস্ত ধারণা ব্যর্থ হতে চলেছে। আর শুভেন্দু বলছেন, ডোন্ট টাচ মাই বডি, আই অ্যাম মেল।’‌ নবান্ন অভিযানের দিন মহিলা পুলিশ শুভেন্দুকে ধরতে গেলে এই কথা বলেই চিৎকার করে উঠেছিলেন বিরোধী দলনেতা। তাই সবাই এখন এই কথাই লিখে বিধানসভায় ঢুকছেন। যাতে হাসির রোল উঠেছে। সেখানে বিরোধীদের দুর্নীতির অস্ত্র কার্যত ভোঁতা হয়ে গিয়েছে।

বিরোধীদের ভূমিকা ঠিক কী?‌ বিধানসভায় আজ দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তৃণমূল কংগ্রেসকে চেপে ধরতে যায় বিজেপি। তাই বৃহস্পতিবার বিধানসভায় ঢুকতে ঢুকতেই তাঁরা স্লোগান তুলেছেন, ‘চোর চোর চোর চোর/পিসি চোর, ভাইপো চোর, তৃণমূলের সবাই চোর’। আর সেখানেই উঠে আসে তৃণমূল কংগ্রেসের নয়া পোস্টার। যেখানে সবাই আওয়াজ তুলেছেন, ‘‌ডোন্ট টাচ মাই বডি, আই অ্যাম মেল’‌। এটা যে হবে তা ভাবতে পারেননি বিজেপি বিধায়করা। তাতে খানিকটা হকচকিয়ে যান বলে সূত্রের খবর।

ঠিক কী ঘটল বিধানসভায়?‌ এই নয়া পোস্টার নিয়ে ঢুকতেই সবাই হেসে ওঠেন। তাতে বিরোধী বেঞ্চ যথেষ্ট বিড়ম্বনায় পড়েন। কারণ এটা ঘটতে পারে তা তাঁরা আন্দাজ করতে পারেননি। এই পোস্টারের নেপথ্যে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্ক রয়েছে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। সেখানে দুর্নীতি ইস্যুতে সামান্য আয়োজন বিরোধীরা তুললেও বিশেষ জমাতে পারেননি বলেই খবর।

বন্ধ করুন