বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ফের বেলাগাম কল্যাণ, রাজ্যপালকে প্রেসিডেন্সি জেলে পোরার হুঁশিয়ারি তৃণমূল সাংসদের
কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

ফের বেলাগাম কল্যাণ, রাজ্যপালকে প্রেসিডেন্সি জেলে পোরার হুঁশিয়ারি তৃণমূল সাংসদের

  • এর পর ধনখড়কে রীতিমতো হুমকি দিয়ে কল্যাণ বলেন, ‘আমরা জানি রাজ্যপালের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করা যায় না। কিন্তু উনি তো সারা জীবন রাজ্যপাল থাকবেন না। তাই তৃণমূল কর্মীদের বলেছি থানায় থানায় ওর বিরুদ্ধে মামলা করতে।

নারদাকাণ্ডে অভিযুক্ত ৪ নেতা-মন্ত্রীর গ্রেফতারির পর থেকেই রাজ্যপালের উদ্দেশে বেনজির আক্রমণ শুরু করেছে তৃণমূল। রবিবার তার সমস্ত সীমা লঙ্ঘন করলেন দলের সাংসদ তথা আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে প্রেসিডেন্সি জেলে ভরার হুমকি দিলেন তিনি। 

নারদকাণ্ডে অভিযুক্তদের হয়ে সওয়াল করতে যাওয়ার পথে গত সোমবার রাজ্যপালকে ‘রক্তচোষা’ বলেছিলেন কল্যাণ। রবিবার তিনি বললেন, ‘রাজ্যপাল সকাল থেকে সন্ধে তৃণমূলের পিছনে লেগে রয়েছেন। ওনার ও ওনার সঙ্গে যাঁরা থাকেন তাঁদের ফোনের কল লিস্ট খতিয়ে দেখলে প্রমাণিত হবে রাজ্যপালের মদতেই হয়েছে এই গ্রেফতারি।’

এর পর ধনখড়কে রীতিমতো হুমকি দিয়ে কল্যাণ বলেন, ‘আমরা জানি রাজ্যপালের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করা যায় না। কিন্তু উনি তো সারা জীবন রাজ্যপাল থাকবেন না। তাই তৃণমূল কর্মীদের বলেছি থানায় থানায় ওর বিরুদ্ধে মামলা করতে। উনি যখন রাজ্যপাল থাকবেন না তখন ওঁর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা হবে। বলা যায় না, হয়তো প্রেসিডেন্সি জেলেই ওঁর ঠাঁই হবে।’

রাজ্যপালকে নিয়ে এহেন মন্তব্যে কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘উন্মাদের মতো কথা বলছেন কল্যাণবাবু। দলে ওঁর কোনও গুরুত্ব নেই।’

গত সোমবার নারদকাণ্ডে অভিযুক্ত তৃণমূলের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বিধায়ক মদন মিত্র ও কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করে সিবিআই। তার পর থেকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রয়েছেন তাঁরা। 

 

বন্ধ করুন