বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > কলকাতা পুরভোটের প্রচারে তৃণমূল এখন 'ভুবনমুখী'

কলকাতা পুরভোটের প্রচারে তৃণমূল এখন 'ভুবনমুখী'

ভুবন বাদ্যকর।

এবার কলকাতা পুরভোটে তাঁর জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাচ্ছে তৃণমূল। ক্রমেই তৃণমূলের প্রচারের মুখ হয়ে উঠছেন ভুবন বাদ্যকার।

কয়েক দিন আগেই 'কাঁচা বাদাম' গানটি গেয়ে সারাবিশ্বে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন দুবরাজপুরের বাদাম বিক্রেতা ভুবন বাদ্যকর। তাঁর সেই গানকে ইতিমধ্যেই কলকাতা পুরসভা ভোটের প্রচারের কাজে লাগিয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল।এবার কলকাতা পুরভোটে তাঁর জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাচ্ছে তৃণমূল। ক্রমেই তৃণমূলের প্রচারের মুখ হয়ে উঠছেন ভুবন বাদ্যকর।

গত কয়েক দিন ধরেই তৃণমূলের বেশ কয়েকজন নেতার সঙ্গে পুরভোটের প্রচারে দেখা গিয়েছে ভুবন বাদ্যকরকে। শনিবার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল প্রার্থী অমল চক্রবর্তীর সঙ্গে প্রচারে দেখা গিয়েছিল এই বাদাম বিক্রেতাকে। আর ওই দিনই সন্ধ্যায় ভুবন বাদ্যাকরকে দেখা গেল মদন মিত্রের সঙ্গে। এককথায় পুরভোটের প্রচারে তৃণমূল এখন ভুবনমুখী।

প্রচারের জন্য ভুবন বাদ্যকারকে ব্যবহার করছে তৃণমূল, আর তাতেই বিকল্প আয়ও বাড়ছে এই বাদাম বিক্রেতার। খুশি প্রান্তিক এই ফেরিওয়ালা। কয়েক দিন আগেই ভুবন বাদ্যকর অভিযোগ করেছিলেন, তাঁর গানের জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে ইউটিউবাররা লক্ষ লক্ষ টাকা কামিয়ে নিচ্ছেন। অথচ তাঁর সিকিভাগও পাচ্ছেন না তিনি। গানের কপিরাইটের দাবিতে তিনি পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছিলেন।

তবে এখন বিকল্প আয়ের মুখ দেখতে পেরে খুশি ভুবন বাদ্যকর এবং তাঁর স্ত্রী আদরি বদ্যকর। তৃণমূল সূত্রের খবর, পুরভোটে প্রচারের জন্য মদন মিত্র তাঁকে ২০ হাজার টাকা দিয়েছেন। একইসঙ্গে ফল প্রকাশের দিন ১৪৪ কেজি বাদাম অর্ডার দিয়েছেন তাঁর কাছে।

ভুবনের স্ত্রী আদরি বাদ্যকার জানান, 'এখন আয় বাড়ায় আমরা ভালো রয়েছি।' অন্যদিকে ভুবনের কথায়, 'যেভাবে হোক শিল্পীর অবস্থা ফিরুক সেটাই চাই।'

বন্ধ করুন