বাংলা নিউজ > ক্রিকেট > অনেকে আমার নাম করে কিন্তু আসলে....সেরা ফিনিশারের নাম বলে দিলেন এবি ডি’ভিলিয়ার্স

অনেকে আমার নাম করে কিন্তু আসলে....সেরা ফিনিশারের নাম বলে দিলেন এবি ডি’ভিলিয়ার্স

এবি ডি ভিলিয়ার্সের মতে বিশ্বের সেরা ফিনিশার হলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি (ছবি-এএফপি)

এবি এমন একটা কথা জানিয়েছেন যা শুনে ভারতের ক্রিকেট ভক্তেরা বেশ খুশি হবেন। এতদিন এবিকে বিশ্বের অন্যতম সেরা ফিনিশার বলা হত, এবার তিনি জানিয়েছেন যে ক্রিকেট বিশ্বের সেরা ফিনিশার কে। এবি ডি ভিলিয়ার্সের মতে বিশ্বের সেরা ফিনিশার হলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

মাঠে এমন কোনও শট নেই যেখানে এই খেলোয়াড় খেলতে পারে না, মাঠে এমন কোনও জায়গা নেই যেখানে বল যেতে পারে না। এমন কোনও বোলার নেই যিনি এই ব্যাটারকে ভয় পান না। হ্যাঁ, আমরা যে খেলোয়াড়ের কথা বলছি তিনি হলেন মিস্টার ৩৬০। তার মানে ক্রিকেট মাঠের প্রত্যেক দিকেই তিনি শট খেলার জন্য সম্পূর্ণ ফিট। যেখান থেকে ক্রিকেটের সংজ্ঞা শুরু হয়, সেই সবকিছুকে ভেঙে দিতে পারেন তিনি। এখন নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন আমরা কার কথা বলছি। আমরা এবি ডি’ভিলিয়ার্স অর্থাৎ দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন অধিনায়কের কথা বলছি। কেন হঠাৎ এবি-র প্রসঙ্গ উঠছে? কারণ এবি এমন একটা কথা জানিয়েছেন যা শুনে ভারতের ক্রিকেট ভক্তেরা বেশ খুশি হবেন। এতদিন এবিকে বিশ্বের অন্যতম সেরা ফিনিশার বলা হত, এবার তিনি জানিয়েছেন যে ক্রিকেট বিশ্বের সেরা ফিনিশার কে।

এবি ডি'ভিলিয়ার্স এই খেলোয়াড়ের বড় ভক্ত

আসলে, এবি ডি'ভিলিয়ার্সের মতে বিশ্বের সেরা ফিনিশার হলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ডি'ভিলিয়ার্স বলেছেন যে, ‘সেরা ফিনিশারের কথা উঠলে অনেকে আমার নাম করেন। কিন্তু আসলে সেরা ফিনিশার হলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।’ ধোনিই তাঁর আদর্শ সেটা বুঝিয়ে দেন এবি। যখনই ভারত সমস্যায় পড়ত, ধোনি সহজেই ম্যাচটি এমনভাবে নিয়ে যেতেন যেন কিছুই হয়নি। ২০১১ বিশ্বকাপ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ডি ভিলিয়ার্স বলেছেন, ‘যে সময় শ্রীলঙ্কা দল ভারতকে হারানোর জন্য প্রস্তুত ছিল, পরপর তিনটি উইকেট পড়ে গিয়েছিল, সেই সময়টা ছিল কঠিন, সেই সময়েও ধোনি দুর্দান্ত পারফর্ম করেছিলেন এবং ২৮ বছর পর দলকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন।’

ধোনি এমন একজন অধিনায়ক যিনি নিজের পাশাপাশি অন্যদেরও সাহায্য করেন। এরপরে ধোনির সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে এবি বলেন, ‘ধোনি একজন খেলোয়াড় নন, ধোনি এমন একজন অধিনায়ক যিনি নিজের খেলার পাশাপাশি অন্য খেলোয়াড়দেরও সাহায্য করে থাকেন। অর্থাৎ দল সমস্যায় পড়লে শুধু নিজেদের নিয়ন্ত্রণই করে না, অন্য প্রান্তের ব্যাটসম্যানকেও বলে দেন কী করতে হবে। এজন্য আমি তাঁর বড় ভক্ত।’ আমরা যদি ডি ভিলিয়ার্স যা বলে তা বিশ্বাস করি, তবে তাও সঠিক, কারণ এখন পর্যন্ত বিশ্বে যত ফিনিশার দেখা গেছে তার মধ্যে ধোনিই এক নম্বরে। গড় বা রান করার কথাই বলি না কেন, ধোনির কোনও মিল নেই।

বর্তমানে ভারতীয় দল এশিয়া কাপের ফাইনালে খেলছে। কিছু দিন পরেই ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ অভিযানে নামবে রোহিত অ্যান্ড কোম্পানি। এমন আবহে টিম ইন্ডিয়া এখনও ধোনির অভাব বুঝতে পারে। কারণ এখনও তাদের কাছে ধোনির মতো ফিনিশারের অভাব রয়েছে। এছাড়াও যুবরাজের মতো অল রাউন্ডারের অভাবও রয়েছে দল। এমন আবহে রোহিত কোম্পানির কাছে বিশ্বকাপ জয়ের অভিযান যে সহজ হবে না সেটা বলাই যায়। কারণ ধোনি এখনও দলে থাকলে সেই দল অনেকটাই এগিয়ে থাকে। ২০২৩ সালের আইপিএল-এ গোটা ক্রিকেট বিশ্ব সেটা দেখেছে।

রোহিতদের প্রস্তুতির রোজনামচা, পাল্লা ভারি কোন দলের, ক্রিকেট বিশ্বকাপের বিস্তারিত কভারেজ, সঙ্গে প্রতিটি ম্যাচের লাইভ স্কোরকার্ড বিস্তারিত ক্রীড়াসূচি - এর জন্য চোখুন HT Bangla - তে

বন্ধ করুন