বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ > পুরভোটের লড়াই > পুরভোটের লক্ষ্যে ৩ পুরনিগমে TMC'র '১০ দিগন্ত', শিলিগুড়ির ইস্তেহার নেপালিতেও
ইস্তেহার প্রকাশ সৌগত রায়ের
ইস্তেহার প্রকাশ সৌগত রায়ের

পুরভোটের লক্ষ্যে ৩ পুরনিগমে TMC'র '১০ দিগন্ত', শিলিগুড়ির ইস্তেহার নেপালিতেও

  • প্রতিটি পুরনিগমের ইস্তেহারই মূলত মানুষের বিভিন্ন সমস্যার কথা উল্লেখ করে সেগুলি সমাধানে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।

রাজ্যের ৪ পুরনিগমে ২২ জানুয়ারি ভোট হওয়ার কথা রয়েছে তবে কোভিডের বাড়বাড়ন্তের কারণে আদৌও ভোট করা উচিত হবে কিনা তা নিয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকেই সিদ্ধান্ত নিতে বলেছে হাইকোর্ট। তারই মধ্যে ১০ দফা প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচনী ইস্তেহার প্রকাশ করল তৃণমূল কংগ্রেস। বিধাননগর, চন্দননগর এবং শিলিগুড়ি এই তিন পুরনিগমের ইস্তেহার শুক্রবার তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রকাশ করা হয়েছে।

এরমধ্যে বিধান নগর এবং চন্দননগরের ইস্তেহার বাংলা, হিন্দি এবং ইংরেজি ভাষায় প্রকাশ করা হলেও লক্ষ্যণীয়ভাবে শিলিগুড়ির ইস্তেহার এই তিনটি ভাষার পাশাপাশি নেপালি ভাষাতেও প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রতিটি পুরনিগমের ইস্তেহারই মূলত মানুষের বিভিন্ন সমস্যার কথা উল্লেখ করে সেগুলি সমাধানে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। ১০ দফা প্রতিশ্রুতি থাকা তৃণমূলের এই ইস্তেহারের নাম দেওয়া হয়েছে '১০ দিগন্ত'।

সংক্ষেপে জেনে নেওয়া যাক এই তিন পুরনিগমের ইস্তেহারের বিষয়বস্তু।

১) বিধাননগর পুরনিগম: বিধাননগর এলাকায় মানুষের জল যন্ত্রণার সমস্যা দীর্ঘদিনের। সেই কথা মাথায় রেখে ইস্তেহারের প্রথমেই জল যন্ত্রণার সমস্যা বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে দীর্ঘস্থায়ী ভাবে সমাধান করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি সড়ক পরিকাঠামো উন্নয়ন , খাল সংস্কার, জল সরবরাহের জন্য মাস্টার প্ল্যান তৈরি। পাশাপাশি শহরকে আবর্জনা মুক্ত রাখার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে, শহরের নিরাপত্তার জন্য ৪০০টি নতুন সিসিটিভি লাগানোর কথাও বলা হয়েছে তৃণমূলের ইস্তেহারে। সেইসঙ্গে পার্ক গুলির উন্নয়ন, পুরকর্মীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা, শহরকে ডেঙ্গু মুক্ত করা এবং করোনা টিকা প্রদানের উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

২) চন্দননগর পুরনিগাম: চন্দননগর পুর এলাকায় বিশেষভাবে নজরে এসেছে গৃহহীনদের আশ্রয়দানের বিষয়টি। ইস্তেহারে উল্লেখ করা হয়েছে, গৃহহীনদের জন্য আরও ৫০ টি শয্যার আশ্রয় কেন্দ্র তৈরি করা হবে। এছাড়াও খাল সংস্কার এবং প্রতিটি বাড়িতে ১০০ শতাংশ পানীয় জল সরবরাহ বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে চন্দননগরের ইস্তেহারে।

৩) শিলিগুড়ি পুরনিগাম: শিলিগুড়ি পুরনিগমের বিশেষভাবে জোর দেওয়া হয়েছে নিরাপত্তার উপরে। তৃণমূলের ইস্তেহারে বলা হয়েছে, আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে গোটা শহরকে ১০০ শতাংশ সিসিটিভির নজরদারির আওতায় আনা হবে। এর পাশাপাশি পর্যটনের উপরও জোর দেওয়া হয়েছে । জোড়াপানি, ফুলেশ্বরী এবং মহানন্দা নদীর ধারে নৌবিহারের সুবিধা, খাবারের স্টল, জগিং ট্র্যাক এবং বেঞ্চের মতো সুবিধাসহ একটি রিভার ফ্রন্ট নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন