বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী রুদ্রনীলকে প্রচারে বাধা, অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে
রুদ্রনীল ঘোষ (ফাইল চিত্র)
রুদ্রনীল ঘোষ (ফাইল চিত্র)

ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী রুদ্রনীলকে প্রচারে বাধা, অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে

  • আলিপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন রুদ্রনীল। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে প্রচারে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুললেন ভবানীপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষ। আজ (শুক্রবার) সকালে ভবানীপুরের গোপালনগর মোড়ে ৭৪ নম্বর ওয়ার্ডে প্রচারে বেরিয়েছিলেন অভিনেতা তথা বিজেপি প্রার্থী রুদ্রনীল।তখন বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মী সমর্থকেরা এসে তাঁকে প্রচারে বাধা দেয় বলে অভিযোগ বিজেপির। এমনকি গালিগালাজ এবং ধাক্কাধাক্কিও করা হয় বলে অভিযোগ করেন তাঁরা। এই নিয়ে আলিপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন রুদ্রনীল ঘোষ। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল। 

বিজেপির তরফে অভিযোগ, এদিন সকাল সকাল প্রচারের রেবিয়েছিলেন বিজেপি কর্মীরা। সেই সময় বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মী তাঁদের বাধা দেন। এমনকি গালিগালাজ এবং ধাক্কাধাক্কিও করা হয় অভিযোগ তাঁদের। দলীয় কর্মীরা আরো অভিযোগ করেন, এই অঞ্চলে প্রচার করতে বারেবারেই তাদের বাধা দেওয়া হচ্ছে। পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগও তুলেছে বিজেপি। এই প্রসঙ্গে রুদ্রনীলের সাফ মন্তব্য, ‘প্রশাসনের সাহায্য পাচ্ছি না। সাহায্য পেলে আজকে প্রচার ছেড়ে থানায় আসতে হত না’।

অভিনেতার দাবি, ‘তৃণমূলের গুন্ডাদের বিরুদ্ধে মানুষ একজোট হতে চাইছেন। যেখানে যেখানে প্রচারে যাচ্ছি মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে বেরিয়ে এসে স্বাগত জানাচ্ছেন। ফুল, মালা দিচ্ছেন। তবে আমাদের প্রচারে বাঁধা সৃষ্টি করা হচ্ছে। মহিলাদের গালগাল দেওয়া হয়েছে’।  

উল্লেখ্য, ভোটের মাস খানেক আগে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন রুদ্রনীল ঘোষ। ভবানীপুর আসনে তাঁকে প্রার্থী করেছে বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গড় হিসেবেই পরিচিত কলকাতার ভবানীপুর কেন্দ্র। গত দুবার লড়াই করে এই আসন থেকে জিতে ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার এই আসনে লড়ছেন না মমতা। তিনি এই বার নন্দীগ্রামের প্রার্থী হওয়ায় এই কেন্দ্রে দাঁড়িয়েছেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। কংগ্রেসের হয়ে এই আসনে প্রার্থী হয়েছেন মহম্মদ সাদাব খান।

বন্ধ করুন