বাড়ি > বায়োস্কোপ > বিজয় মালিয়ার মামলার তদন্তকারী CBI দলই সুশান্তের মৃত্যু রহস্যের কিনারা করবে
গঠিত হয়েছে সিবিআইয়ের বিশেষ তদন্তকারী দল 
গঠিত হয়েছে সিবিআইয়ের বিশেষ তদন্তকারী দল 

বিজয় মালিয়ার মামলার তদন্তকারী CBI দলই সুশান্তের মৃত্যু রহস্যের কিনারা করবে

  • সিবিআইয়ের জয়েন্ট ডিরেক্টর মনোজ শশীধর, আইপিএস অফিসার গগণদীপ গম্ভীর এবং নূপুর প্রসাদ অংশ হচ্ছেন সুশান্ত মামলার তদন্তে গঠিত সিবিআইয়ের বিশেষ দলের। 

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা  এফআইআর দায়ের করেছে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে। এবং সিবিআইয়ের এফআইআরে নাম রয়েছে রিয়া চক্রবর্তীসহ মোট ছয় জনের। সুশান্ত সিং রাজপুতের পরিবারের তরফে পাটনা পুলিশের কাছে দায়ের করা এফআইআরের ভিত্তিতেই সিবিআই বৃহস্পতিবার এই এফআইআর দায়ের করেছে। যেখানে মূল অভিযুক্ত হিসাবে উল্লেখিত রয়েছে রিয়া চক্রবর্তী,তাঁর বাবা ইন্দ্রজিত চক্রবর্তী, মা সন্ধ্যা চক্রবর্তী, ভাই শৌভিক চক্রবর্তী, অ্যসোটিয়েট স্যামুয়েল মিরান্ডা এবং ম্যানেজার শ্রুতি মোদীর নাম।

সিবিআইয়ের যে বিশেষ তদন্তকারী দলের হাতে এই হাই প্রোফাইল মামলার কিনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে  তাঁরা এই মুহূর্তে তদন্ত করছে অগস্টাওয়েস্টল্যান্ড চপার কাণ্ড ও বিজয় মালিয়ার জালিয়াতির কাণ্ডের। এই তদন্তকারী দল অ্যান্টি-কোরাপশন-৬ নামেও পরিচিত। যাঁর নেতৃত্বে রয়েছে গুজরাত ক্যারেডের আইপিএস অফিসার মনোজ শশীধর। বর্তমানে সিবিআইয়ের জয়েন্ট ডিরেক্টর তিনি। ২০১৬ সালের জুন মাসে এই তদন্তকারী দলটি গঠন করা হয় সেই সময়কার সিবিআই স্পেশ্যাল ডিরেক্টর রাকেশ অস্তানার অধীনে। তারপর থেকে গত চার বছর ধরে এই দুটি মামলার তদন্ত করেছে তাঁরা। চার বছর পর প্রথম কোনও মামলার তদন্তভার গেল অ্যান্টি-কোরাপশন ৬-এর হাতে। মনোজ শশীধরের সঙ্গে  আইপিএস অফিসার গগণদীপ গম্ভীর (ব্যাচ ২০০৪) এবং এসপি নূপুর প্রসাদ এই তদন্তকারী দলের অংশ হচ্ছেন। 

গুজরাত ক্যারেডের সিনিয়ার এসএসপি গগণদীপ গম্ভীর বিহারের ভূমিকন্যা। মজফ্ফরপুরে জন্ম এই আইপিএস অফিসারের। গত দেড় বছর ধরে সিবিআইয়ের অংশ এই দুঁদে অফিসার। 

বাঁ দিক থেকে, মনোজ শশীধর, গগণদীপ গম্ভীর এবং নুপূর শর্মা 
বাঁ দিক থেকে, মনোজ শশীধর, গগণদীপ গম্ভীর এবং নুপূর শর্মা 

শীঘ্রই এই তদন্তের জন্য দিল্লি থেকে মুম্বই পৌঁছাবে সিবিআইয়ের বিশেষ তদন্তকারী দল। তবে আপতত স্ট্যাটেজি তৈরি করছে সিবিআই। ঘুঁটি সাজিয়ে তবেই ময়দানে নামবে এই দল। বিহার পুলিশের সঙ্গে ইতিমধ্যেই যোগাযোগ করা হয়েছে বলে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। বিহার পুলিশের তদন্তকারী দলও ইতিমধ্যেই সুপ্রিম কোর্টে সুশান্ত মামলার তদন্ত রিপোর্ট জমা দিয়েছে। সিবিআইয়ের হাতেও সমস্ত নথি তুলে দিয়েছে তাঁরা।

মহারাষ্ট্র পুলিশ এই মামলায় শুরু থেকেই বিহার পুলিশের জুরিসডিকশন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। এই মামলার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়ার অধিকার বিহার সরকারের রয়েছে কিনা সেই নিয়েও তাঁদের তরফে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। এই মামলার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবে দেশের সর্বোচ্চ আদালত। আগামী সপ্তাহে এই রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট। অন্যদিকে বুধবারই সুপ্রিম কোর্ট তিনদিনের সময় দিয়েছিল মহারাষ্ট্র সরকারকে, সুশান্ত মামলার মুম্বই পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট আদালতের জমা দেওয়ার। শনিবার শেষ হবে সেই সময়সীমা। 

অন্যদিকে অপর কেন্দ্রীয় সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট এই মামলার সঙ্গে জড়িত আর্থিক কেলেঙ্কারির মামলার তদন্ত করছে। সেই মামলায় আজ, ইডির দফতরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে রিয়া চক্রবর্তীকে। 

বন্ধ করুন