বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Sayak-Pallabi: ‘রক্তের সম্পর্কের চেয়েও দামি..’,সায়কের হাতে রাখি বাঁধতে মুম্বই থেকে হাজির পল্লবী

Sayak-Pallabi: ‘রক্তের সম্পর্কের চেয়েও দামি..’,সায়কের হাতে রাখি বাঁধতে মুম্বই থেকে হাজির পল্লবী

সায়ক-পল্লবীর অভিনব বন্ডিং

রক্তের সম্পর্কের চেয়েও বেশি দামি মনের বন্ধন! রাখি সেলিব্রেশনের মাঝে এই বার্তাই দিলেন অভিনেতা সায়ক চক্রবর্তী ও পল্লবী মুখোপাধ্যায়। 

বৃহস্পতিবার দেশজুড়ে পালিত হল রাখির উৎসব। দাদা-ভাইদের হাতে রাখি বেঁধে এই বিশেষ দিনটা সেলিব্রেট করে দিদি-বোনেরা। জমাটি উপহার সঙ্গে মিষ্টিমুখ- আজ উৎসবের মেজাজে আম জনতা থেকে সেলেবরা। দিনভর সোশ্যাল মিডিয়ায় ভেসে উঠেছে তারকাদের রাখি বন্ধন উৎসেবর ঝলক। এদিন অভিনেতা সায়ক চক্রবর্তীর সোশ্যাল মিডিয়া পেজেও উঠে এসেছে রাখির সেলিব্রেশনের ছবি। ছোটপর্দার অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ সায়ক, আপতত ‘কাঞ্চি’ সিরিয়ালে দেখা যাচ্ছে তাঁকে।

সায়কের রাখি সেলেব্রেশনের ছবি দেখলে মন ভরে উঠবে। এদিন ‘বোন’ পল্লবীর হাতে রাখি পরলেন সায়ক। অভিনেতার এই বোন এখন হিন্দি টেলিভিশন দুনিয়ার পরিচিত মুখ। সূদূর মুম্বই থেকে পল্লবী এসেছেন নিজের পাতানো দাদার হাতে রাখি পরাতে। তবে এই প্রথম নয়, সায়ক জানিয়েছেন সব কাজ ফেলে গত ১১ বছর ধরে সায়কের হাতে রাখি বাঁধছেন ‘ব্যারিস্টার বাবু’ খ্যাত পল্লবী মুখোপাধ্যায়।

এদিন হিন্দুস্তান টাইমসকে সায়ক জানান, 'আমাদের সম্পর্কটা রক্তের সম্পর্কের চেয়ে অনেক বেশি। প্রত্যেক বছর মুম্বই থেকে ও আসে আমার হাতে রাখি বাঁধতে। আমার কোনওদিন মনেই হয়নি ও আমার পাতানো বোন। আমার সঙ্গে ওর সম্পর্কটা মনের। সেই স্ট্রাগলের দিন থেকে একসঙ্গে, ওর যতই কাজ থাক রাখির দিন ও আমাকে রাখি বাঁধবেই'।

‘করুণাময়ী রাণী রাসমণি’ খ্যাত অভিনেতার কথায় এটা তাঁর জীবনের সেরা রাখি। বোন দারুণ সারপ্রাইজ দিয়েছে তাঁকে। তিনি বললেন, ‘কলকাতায় এসে পল্লবী একটা রিসর্ট বুক করে আমার জন্য। এটা গোটাটাই সারপ্রাইজ ছিল, আমাকে রিসর্টের তরফে ফোন করা হয়েছিল, গিয়ে দেখি সব আয়োজন সেরে বসে আছে ও’।

রাখি মানে তো উপহার দেওয়া-নেওয়ার পর্ব। পল্লবীকে কী গিফট দিলেন সায়ক? অভিনেত্রী বোনকে ব্যাগ উপহার দিয়েছেন সায়ক। পরিবর্তে পল্লবী সায়ককে সারা বছরের ফোন রিচার্জ করে দিয়েছেন।

হিন্দুস্তান টাইমসকে পল্লবী বলেলন, ‘আমার বাবা-মা সেপারেটেড। আমি ছোট থেকে যৌথ পরিবার পায়নি। কিন্তু ভগবান আমাকে আমার ভাই উপহার দিয়েছে। আমাদের রক্তের নয়, ঘামের সম্পর্ক। জীবনের সবচেয়ে কঠিন সময়টা আমরা একে অপরের সঙ্গে ছিলাম, আছি আর থাকব। আমার তো মনে মনের সম্পর্কটাই আসল, রক্তের সম্পর্কটা নয়।’ এত দীর্ঘ সময় ধরে নিজেদের মধ্যে কোনওদিন ইগোর সমস্যা আসতে দেননি, এটাই তাঁদের সফল সম্পর্কের সমীকরণ।

সায়কের কথায়, ‘ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করলে নাকি বন্ধু বা বোন বা পরিবার পাওয়া যায় না- এটা মিথটা আমি অস্বীকার করতে চাই। তোমার জানো সৌমিতৃষা কুণ্ডু আমার খুব ভালো বন্ধু। এছাড়াও সৈরিতি (বন্দ্যোপাধ্যায়) আর আয়েন্দ্রী (রায়) আমার খুব কাছের, ওরাও আমাকে রাখি বাঁধে। এই সম্পর্কগুলোই তো সেরা পাওয়া আমার কাছে’।

 

 

বন্ধ করুন