বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Akshay-Twinkle: ‘তোমার মতো কাউকে বিয়ে করব না’, পঞ্চম মোলাকাতে অক্ষয়কে বলেছিলেন টুইঙ্কল, তারপর..

Akshay-Twinkle: ‘তোমার মতো কাউকে বিয়ে করব না’, পঞ্চম মোলাকাতে অক্ষয়কে বলেছিলেন টুইঙ্কল, তারপর..

অক্ষয়কে কেন একথা বলেন টুইঙ্কল?

Akshay-Twinkle: পাঁচ নম্বর ডেটে গিয়ে অক্ষয়কে স্বামী হিসাবে রিজেক্ট করে দিয়েছিলেন টুইঙ্কল। অক্ষয়ের সপাট জবাব অচিরেই মনের রং বদলে দেয় রাজেশ খান্না কন্যার। কী এমন বলেছিলেন অক্ষয়? 

হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম সফল দম্পতি অক্ষয় কুমার ও টুইঙ্কল খান্না। জীবনের চড়াই উতরাইয়ের ২২তম বছর পার করে ফেলল এই জুটি। ২২তম বিবাহবার্ষিকীতে বউকে নিয়ে আবেগঘন অক্ষয়। অন্য়দিকে বরের দেওয়া আদুরে উপহার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাগ করে নিয়েছেন টুইঙ্কল। পাশাপাশি ফাঁস করেছেন নিজেদের প্রেমের কাহিনির এক অজানা দিক।

এদিন টুইঙ্কল ফাঁস করলেন পঞ্চম ডেটে গিয়ে অক্ষয়কে সরাসরি বলেছিলেন, আক্কির মতো কাউকে জীবনেও বিয়ে করবেন না তিনি, তারপর কী এমন ঘটেছিল, যা বদলে গিয়েছিল এই প্রেম কাহিনির দিশা? বরের সেই কীর্তিও এদিন সামনে আনলেন প্রাক্তন অভিনেত্রী।

এদিন অক্ষয়ের সঙ্গে একটি রোম্যান্টিক ভিডিয়ো শেয়ার করে নেন টুইঙ্কল। এদিন অক্ষয়ের দেওয়া একটি কার্ডও সবার সঙ্গে ভাগ করে নেন মিসেস ফানি বোনস। সেই কার্ডে একটি কার্টুন আঁকা রয়েছে, যার উপর লেখা টুইঙ্কলের ডাক নাম টিনা। সেই কার্ডে অক্ষয়ের প্রশ্ন, ‘আমাদের দাম্পত্য কি ঠিক পথে চলছে?’ এরপর এই সফল ইনিংসের যাবতীয় ক্রেডিট নিজেকে দিয়ে অভিনেতা লিখেছেন, তাঁর ধৈর্যের জন্যই এই সম্পর্ক অটুট। পাশাপাশি টুইঙ্কলকে ‘রানি’ বলেও ডাকেন খিলাড়ি কুমার।

এদিন অক্ষয় ঘরণী জানান, ‘আমাদের পঞ্চম ডেটে আমি ওকে বলেছিলাম, তোমার মতো কাউকে আমি কোনওদিন বিয়ে করব না। পালটা জবাবে ও (অক্ষয়) বলেছিলাম, আমার তো মনে পড়ছে না আমি তোমাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছি বলে। এই লাইন শুনে আমি ফিদা হয়ে গিয়েছিলাম’।

এরপর টুইঙ্কল আরও লেখেন, ‘দু দশক পার হয়ে গিয়েছে, আমরা একসঙ্গে একটা জীবন গড়েছি, দুই সন্তানকে মানুষ করেছি। আমাদের পরিবার বড় হয়েছে… কাজ, বন্ধুত্ব, পোষ্য, স্বাধীনতা আর স্থিরতায় ভরপুর একটা জীবন’।

পরে যদিও এই ভিডিয়ো মুছে দেন টুইঙ্কল, বদলে অক্ষয়ের দেওয়া কার্ডের ছবি এবং নিজেদের একটি ফটো শেয়ার করেন। সেই পোস্টে পঞ্চম ডেটের ঘটনা সরিয়ে ফেলেন টুইঙ্কল।

এদিন স্ত্রীর সঙ্গে একটি মিষ্টি ছবি শেয়ার করে বিবাহবার্ষিকীর শুভেচ্ছা ভাগ করে নেন আক্কি। লেখেন, ‘দুজন অসম্পূর্ণ মানুষ কী সুন্দরভাবে ২২ বছর একসঙ্গে কাটিয়ে দিল!! শুভ বিবাহবার্ষিকী টিনা’। 

১৯৯৯ সালে ‘জুলমি’ আর ‘ইন্টারন্যাশনাল খিলাড়ি’ সিনেমায় কাজ করেন একসাথে অক্ষয় আর টুইঙ্কল। ২০০১ সালে বিয়ে করেন তাঁরা। লা বক্স অফিসে সুপার ফ্লপ হওয়ার পর অভিনয় কেরিয়ারে ইতি টেনেছিলেন টুইঙ্কল।আপাতত অভিনয় থেকে অনেক দূরে, একজন লেখিকা হিসেবে নিজের কেরিয়ার গড়ে নিয়েছেন। ২০১৮ সালে সিনেমা জগতে কামব্যাক করেন টুইঙ্কল খান্না, তবে দ্বিতীয় ইনিংসে অভিনেত্রী নয়, প্রোডিউসারের ভূমিকায়। আর বাল্কির ‘প্যাডম্যান’এর প্রোডিউসার ছিলেন টুইঙ্কল, যেখানে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাঁর স্বামী অক্ষয় কুমার।

বন্ধ করুন