বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > আপোস করলেই লিড রোল মিলত, যৌবনে টাইপ কাস্ট হওয়া নিয়ে বিস্ফোরক নীনা গুপ্তা
নীনা গুপ্তা (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
নীনা গুপ্তা (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

আপোস করলেই লিড রোল মিলত, যৌবনে টাইপ কাস্ট হওয়া নিয়ে বিস্ফোরক নীনা গুপ্তা

  • নিজের শর্তেই জীবনে বাঁচতে ভালোবেসেছেন নীনা গুপ্তা। তাই সিঙ্গল মাদার হতেও দু-বার চিন্তা করেননি। ফের একবার বোল্ড আর বিউটিফুল অবতারে ধরা দিলেন অভিনেত্রী। 

নিজের পাবলিক ইমেজের সৌজন্যে একটা সময় কিভাবে নিজের কেরিয়ার পতনের সম্মুখীন হয়েছিল  সেই নিয়ে এবার মুখ খুললেন বলি অভিনেত্রী নীনা গুপ্তা । নিজের কেরিয়ারের শীর্ষে থেকেও টাইপকাস্ট হয়ে যাওয়ার সুবাদে কেরিয়ারের কি চরম ক্ষতি ডেকে এনেছিলেন, তা ব্যক্ত করেছেন অভিনেত্রী । উল্লেখ্য দীর্ঘ সময় ইন্ডাস্ট্রিতে কাটানোর পরও দুই বছর আগেই বাধাই হো ছবিতে অভিনয়ের সুবাদেই ফের লাইম লাইটে ফিরে এসেছেন নীনা গুপ্তা।

সম্প্রতি নেহা ধুপিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নীনা জানিয়েছেন তাঁর ফেলা আসা সময় নিয়ে আক্ষেপের কথা, তাঁর যৌবনের অপূর্ন ইচ্ছার ডালি। এবং উঠতি তারকাদের পরামর্শ দেন যাতে তাঁরা বিপথে না চলে যান, ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলেন পুরুষের তথা বড় নামের পিছনে না ছুটে কাজের পিছনে ছুটতে ।

টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানান এক সময় কি ভয়ঙ্কর স্ট্রাগলের মধ্যে দিয়ে তাঁকে যেতে হয়েছে ইন্ডাস্ট্রিতে। নীনা বলেন, ' যখনই কেউ দাবি করেন তাঁর অত্যন্ত কঠোর ইমেজ বর্তমান , জানতে হবে সেটা কিন্তু তৈরি করে দিয়েছে মিডিয়া । কারণ ব্যক্তিগত জীবনে কে কেমন তা মিডিয়ার জানা সম্ভব নয় । হয়তো পরিস্থিতির কারণেই ওই অভিনেতা বা অভিনেত্রী বাধ্য হন নিজের এমন কঠোর ভাবমূর্তি বজায় রাখতে । তাছাড়া নিজের বক্তব্য এবং মত প্রকাশের ক্ষেত্রেও সচেতনতা অবলম্বনের প্রয়োজন আছে । সকলেরই জানা উচিত কোথায় থামতে হয় । একজন পাবলিক ফিগার কোনো অসচেতন বক্তব্য রাখলে তার অনেক রকম মানে তৈরি হতে পারে যার ভালো খারাপ উভয় দিকই বর্তমান । একটা ডেকোরাম বজায় রাখা এক্ষেত্রে বিশেষ ভাবে জরুরি হয়ে পড়ে । ' নীনার বিশ্বাস, তাঁর স্বাধীনচেতা এবং স্বনির্ভর নারীর ভাবমূর্তির জেরেই যৌবনকালে লিড হিরোইনের রোল থেকে তিনি বঞ্চিত হয়েছেন। 

এছাড়াও ইন্ডাস্ট্রিতে ইমেজ দেখে চরিত্র নির্বাচনের তীব্র সমালোচনা করেন নীনা । নিজেও দীর্ঘদিন ভোগ করেছেন টাইপকাস্ট হয়ে কাটানোর যন্ত্রনা। অধিকাংশ সময়েই পাননি প্রধান চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ । ব্যাঙ্গের সুরে জানান সেক্ষেত্রে একজন ডাক্তার বা উকিলের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য সবসময় একজন আসল ডাক্তার বা উকিলকে ডেকে আনা উচিৎ । একজন অভিনেতা যে কোনও চরিত্রের জন্যই প্রস্তুত থাকবেন । তবে আজকাল পরিস্থিতি কিছুটা বদলেছে বলেই ধারণা তাঁর ।

সম্প্রতি নিজের জীবনের স্মৃতিকথা নিয়ে বই লেখার কথা জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী । দিল্লির করোল বাগের শৈশবকাল থেকে এবং ১৯৮০-এর দশকে ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামাতে যোগদান , অতঃপর ইন্ডাস্ট্রিতে দীর্ঘদিনের লড়াই উত্থান পতন নিয়ে লেখা এই বই পেঙ্গুইন রান্ডম হাউস ইন্ডিয়ার তরফ থেকে ২০২১সালেই প্রকাশিত হবে । জানিয়েছেন , ইন্ডাস্ট্রিতে সদ্য আগত বা পা দিতে চলা তরুণ প্রজন্মকে উৎসাহ এবং পরামর্শ দিতেই নিজের জীবনের হাল না ছাড়ার গল্প নীনা লিপিবদ্ধ করেছেন লকডাউনের দীর্ঘ অবসরে । দীর্ঘদিন ধরে বুকে চেপে রাখা যন্ত্রণাকে কাগজে ফুটিয়ে তুলতে পারায় আপাতত কিছুটা হলেও হালকা বোধ করছেন প্রবাদ প্রতিম অভিনেত্রী। 

বন্ধ করুন