বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > অনিল কন্যার ছোট মেয়ের বিয়েতে কেন আমন্ত্রিত ছিল না বলিউড? জবাব দিলেন নবদম্পতি
রিয়া কাপুর ও করণ বোলানি (ছবি ইনস্টাগ্রাম)
রিয়া কাপুর ও করণ বোলানি (ছবি ইনস্টাগ্রাম)

অনিল কন্যার ছোট মেয়ের বিয়েতে কেন আমন্ত্রিত ছিল না বলিউড? জবাব দিলেন নবদম্পতি

  • গত ১৪ই অগস্ট সাত পাকে বাঁধা পড়েন রিয়া কাপুর ও করণ বুলানি। রীতিমতো কার্ড পাঠিয়ে বলিউডি বন্ধুদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করল কাপুর ও বুলানি পরিবার। 

চুপিসাড়ে গাঁটছড়া বেঁধেছেন অনিল কাপুর ও সুনীতা কাপুরের ছোট মেয়ে রিয়া কাপুর। গত ১৪ই অগস্ট ঘরোয়া অনুষ্ঠানের মাধ্যমেই চার হাত এক হয় রিয়া কাপুর ও করণ বুলানির। রিয়া-করণের বিয়েতে বলিউডের একঝাঁক মুখ চোখে পড়েছে ঠিকই, কিন্তু তাঁরা সকলেই কাপুর পরিবারের অংশ। এবার সামনে এল রিয়া-করণের তরফে ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুদের পাঠানো এক বিশেষ কার্ড। সেই কার্ডে নিজেদের বিয়ের সুখবর বলিউডি বন্ধুদের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন নবদম্পতি, সেই কার্ডের ঝলক ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করে নিয়েছেন জ্যাকি শ্রফের স্ত্রী আয়েশা শ্রফ। 

সেই কার্ড শুক্রবার ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে নবদম্পতিকে আর্শীবাদ দেন আয়েশা। সেখানে কাপুর ও বুলানি পরিবারের তরফে ক্ষমা প্রার্থনা করা হয়েছে বিয়ের অনুষ্ঠানে সকলকে শামিল না করতে পারবার জন্য। ওই কার্ডে লেখা রয়েছে, ‘খুব আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি গত ১৪ই অগস্ট একটা ছোট্ট অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে রিয়া ও করণ বিয়ের পর্ব সেরেছে। বর্তমানের পরিস্থিতি এমনই যে আমরা আমাদের ভালোবাসার মানুষদের সঙ্গে এই আনন্দ ভাগ করে নিতে পারছি না। আমরা ভীষণ মিস করেছি এই খুশির মুহূর্তে আপনাদের পাশে না পেয়ে, তবে আপনারা সবাই আমাদের হৃদয়ে রয়েছে। রিয়া আর করণ ওঁদের নতুন জীবন শুরু করেছে, আর এই যাত্রাপথে আমরা শুধু ওঁদের জন্য আপনাদের আর্শীবাদ আর ভালোবাসা চাই। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার অপেক্ষায়…. তারপর সকলে মিলে আমরা এই আনন্দ উদযাপন করব’। 

আয়েশা শ্রফের পোস্ট করা সেই কার্ড
আয়েশা শ্রফের পোস্ট করা সেই কার্ড

এই কার্ডে নাম উল্লেখ রয়েছে অনিল,সুনীতা থেকে সোনম, আনন্দ,হর্ষবর্ধনসহ কাপুর পরিবারের পোষ্য রাসেলেরেও। রিয়া-করণের এই বিয়ের অনুষ্ঠানে শামিল হয়েছিল গোটা কাপুর খানদান। জাহ্নবী, খুশি, অর্জুন, অংশুলা, সান্যা থেকে বনি কাপুর, সঞ্জয়-মহদীপ কাপুররা পৌঁছেছিলেন নবদম্পতিকে আর্শীবাদ আর ভালোবাসায় ভরিয়ে দিতে। 

পরিচালক করণ বুলানির সঙ্গে ১২ বছর ধরে প্রেম সম্পর্কে আবদ্ধ ছিলেন রিয়া, অবশেষে পরিণতি পেল এই প্রেম কাহিনি।

রিয়ের দিনের অভিজ্ঞতা শেয়ার করে রিয়া লেখেন, ‘১২ বছর পর আমার নার্ভাস হওয়া বা আনন্দে গদগদ হওয়া– এই দুটির মধ্যে কোনওটাই হওয়া উচিত ছিল না। কারণ তুমি আমার প্রিয় বন্ধু, সবচেয়ে প্রিয় মানুষ। বুঝতে পারিনি অভিজ্ঞতা ঠিক কেমন হতে চলেছে’।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি এমন একটা মেয়ে যে ১১টায় বাবা-মা ঘুমিয়ে পড়ার আগেই বাড়ি ঢুকে যাই। সেই আমি ওই দিন কান্না পেয়েছিল, কাঁপছিলাম। আমার পেট ব্যথা করছিল… কারণ আমি বুঝতেই পারিনি অনুভূতি এরকম হতে চলেছে। আশা করি দুজনে এমন এক পরিবার গড়ব যে পরিবারে আমাদের জীবনে যত ভালবাসা রয়েছে সবাই এক হবে…।’

বন্ধ করুন