বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Ranu Mandal: দু'বেলা খাবার জুটছে না রাণু মণ্ডলের, ‘কোনও জানোয়ার একটু খাবার আনে না’!
খাবার জুটছে না রানুর। 
খাবার জুটছে না রানুর। 

Ranu Mandal: দু'বেলা খাবার জুটছে না রাণু মণ্ডলের, ‘কোনও জানোয়ার একটু খাবার আনে না’!

  • রানাঘাট থেকে মুম্বই যাওয়ায় যাঁরা একসময় তাঁকে নিয়ে মাতামাতি করেছি, এখন তাঁরাই তাঁকে ভুলতে বসেছে। দু'বেলা পেট ভরে খাবার জুটছে না রানু মণ্ডলের। 

একসময় রানাঘাট থেকে মুম্বই উড়ে গিয়েছিলেন। হিমেশ রেশামিয়ার সঙ্গে গানের রেকর্ডও করেছিলেন। তবে যতটা সময় নিয়ে উঠেছিলেন, তার থেকে অনেক সময়ে পড়েছেন নীচে ফের! এখন এমন অবস্থা যে খাবারও জোটে না দু'বেলা। নিজের মুখেই সেকথা স্বীকার করে নিলেন রানু মণ্ডল। সঙ্গে আফশোস, ‘সবাই নিজের লাইক বাড়াতে আসে, কেউ খাবার আনে না।’

প্রায় রোজই এখনও রানু মণ্ডল-কে কোনও না কোনও ইউটিউবারের চ্যানেলে দেখা যায়। তবে সেখানে তাঁকে দিয়ে গান গাওয়ানো, নাচ করানোর থেকে ‘ভাঁড়ামো’ বেশি হয় বলে মত নেট-নাগরিকদের। তাই তো ‘লতাকণ্ঠী’ ভাইরাল গায়িকার এখন দু’বেলা দু’মুঠো খাবার জোটে না। 

সংবাদ প্রতিদিনকে রাণু সেপ্রসঙ্গে জানান, ‘কোনও জানোয়ার একটু খাবার আনে না। শুধু লাইক পাওয়ার আশায় ভিডিয়ো করে। খিদেয় পেট তোঁ চোঁ করলে গলা দিয়ে আওয়াজ বেরবে কী করে।’ আরও পড়ুন: রানু মণ্ডল নাকি বিয়ে করেছেন! সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে গোপন ছবি, পাত্রটি কে

বাড়ির বাইরে একটা মরচে পড়া টিউবওয়েল থেকে জল আনতে হয় বাড়িতে। কিন্তু গেট খুলে সেখানেও যেতে পারেন না। কারণ, গেট খুললেই ঢুকে আসে ইউটিউবাররা। মাঝে মাঝে খিদে-তেষ্টায় তিতিবিরক্ত হয়ে যখন গালাগালি দেন, থুতু ছেটান, তখন পাড়াপড়শিভাবে তিনি পাগল। মানসিক ভারসাম্য হারিয়েই এমন করছেন। 

তবে এখন আর আগের মত স্টেশনের সামনে বাটি হাতে বসতে পারেন না! বাড়ির বাইরে পা রাখলেও অনুরোধ ভেসে  আসে ‘একটা গান শোনান না’। কিন্তু খাবার দেয় না কেউ। লিকার চা-বিস্কুট খেয়ে সকালে পেট ভরান। দুপুরে ৫টাকার সেদ্ধ চাউমিন জোটে কোনও না কোনও দিন। আর রাতে বেশিরভাগ সময়তেই ঘুমোতে যেতে হয় খালি পেটে। হাল এতটাই খারাপ!

বন্ধ করুন