বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > দিল্লিতে বাবা-মায়ের সমাধিস্থলে পৌঁছে আবেগঘন শাহরুখ খান!
মা-বাবার সমাধিস্থলে শাহরুখ
মা-বাবার সমাধিস্থলে শাহরুখ

দিল্লিতে বাবা-মায়ের সমাধিস্থলে পৌঁছে আবেগঘন শাহরুখ খান!

  • অভিনেতার এই ব্যক্তিগত মুহূর্ত ধরা পড়ল পাপারাৎজিদের ক্যামেরায়।

দিল্লিতে বাবা-মায়ের সমাধিস্থলে গিয়ে শ্রদ্ধা জানালেন অভিনেতা শাহরুখ খান। নয়া দিল্লির সমাধিস্থলে কিং খানের সেই ছবি সামাজিক মাধ্যমে এখন রীতিমতো ভাইরাল। 

দিল্লিতে হাজির হলে বাবা মায়ের সমাধিস্থলে গিয়ে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করতে কখনই ভোলেন না শাহরুখ। বার বারই সেই ছবি ধরা পড়ে পাপারাৎজিদের ক্যামেরায়। এদিন সাদা শার্ট, কালো প্যান্টে পরে দেখা গেল অভিনেতাকে। রীতি মেনে রুমাল দিয়ে মাথা ঢেকেছিলেন তিনি। কবরে মাথা ঠেকিয়ে এদিন আর্শীবাদ নিলেন কিং খান। 

শাহরুখ খানের বাবা প্রয়াত তাজ মহম্মদ খান পেশোয়ার থেকে ভারতে এসেছিলেন। অভিনেতার ১৫ বছর বয়সে ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তাঁর বাবা। এরপরই ১৯৯০ সালে অভিনেতার মা লতিফ ফতিমা খানের দীর্ঘ রোগ ভোগের পর মৃত্যু হয়।

রানি মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে একটি প্রোমোশনাল ইভেন্টে কথা বলতে গিয়ে শাহরুখ জানিয়েছিলেন,  আকস্মিকভাবে মা-বাবার চলে যাওয়া এবং ফাঁকা বাড়ি তাঁকে প্রতিনিয়ত কষ্ট দিত। একাকিত্ব দুঃখ-কষ্ট সেই সময় গ্রাস করেছিল তাঁকে। তখনই বড় পর্দায় অভিনয় করার সুযোগ আসে তাঁর কাছে।

ডেভিড লেটারম্যানের টক শো-তে শাহরুখ জানিয়েছিলেন, মা-বাবার সঙ্গে যথেষ্ট সময় না কাটানোর জন্য আফসোস রয়ে গিয়েছে তাঁর মনে। তাই এখন বাবা হওয়ার পর নিজের সন্তানদের সঙ্গে তাই যতটা সম্ভব সময় কাটানোর চেষ্টা করেন অভিনেতা। তিনি আরো বলেন, তিনি ঠিক করেছেন বহুদিন বাঁচবেন এবং তাঁর সন্তানদের কখনো অনুভব হতে দেবেন না যে তাঁদের বাবা-মা থাকতেও নেই। তাই ফাঁক পেলেই তিনি তাঁদের সঙ্গে পড়াশুনো করেন, গল্প করেন, সময় কাটান, ঘুমান, এমনকি তাঁদের কোনো সমস্যা হলে তা সমাধানের চেষ্টা করেন। তবে বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডে সমস্যা হলে প্রচণ্ড বিরক্ত বোধ করেন তিনি। 

এক সাক্ষাৎকারে শাহরুখ জানিয়েছিলেন, বাবার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে খুব মিস করেন তিনি। শাহরুখের বলিউড ডেব্যিউয়ের আগেই বাবা-মা দুজনেকেই হারিয়েছেন অভিনেতা। সেই আক্ষেপ আজও তাড়া করে বেড়ায় তাঁকে। 

বন্ধ করুন