বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'বেসিক ইন্সটিংক্ট'-এ আমাকে ঠকিয়ে ‘ভ্যাজাইনা’ শ্যুট করা হয়েছিল': শ্যারন স্টোন
বেসিক ইন্সটিংক্ট-এর দৃশ্যে বেসিক ইন্সটিংক্ট
বেসিক ইন্সটিংক্ট-এর দৃশ্যে বেসিক ইন্সটিংক্ট

'বেসিক ইন্সটিংক্ট'-এ আমাকে ঠকিয়ে ‘ভ্যাজাইনা’ শ্যুট করা হয়েছিল': শ্যারন স্টোন

  • শ্যারনকে ঠকিয়ে অন্তর্বাস খুলতে বাধ্য করেছিল পরিচালক, কথা দিয়েছিল দেখা যাবে না গোপনাঙ্গ, যদিও কথা রাখেননি পল ভারহোভেন।

নব্বই দশকের ইরোটিক ফিল্মগুলির মধ্যে অন্যতম বেসিক ইন্সটিংক্ট (Basic Instinct)। ছবির লাগামছাড়া যৌনতা দেখে রীতিমতো ভিরমি খেয়েছিল পশ্চিমী দুনিয়ার মানুষজন। আজকের দিনে যে দৃশ্যগুলি খুব পরিচিত যা তিন দশক আগে খুব বেশি প্রচলিত ছিল না। এই ছবির সুবাদে সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিলেন শ্যারন স্টোন। প্রায় ২৯ বছর পর অভিনেত্রী দাবি করলেন এই ছবির শ্যুটিংয়ের সময় তাঁকে ঠকানো হয়েছিল। মিথ্যে কথা বলে তাঁকে অন্তর্বাস খুলতে বাধ্য করেছিলেন পরিচালক পল ভারহোভেন। 

সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে, ৬২ বছর বয়সী অভিনেত্রীর লেখা বই 'The Beauty of Loving Twice', এই বইয়ের পাতাতেই নিজের কেরিয়ার থেকে ব্যক্তিগত জীবনের নানান অজানা অধ্যায়ের কথা লিখেছেন শ্যারন। এই সম্পর্কেই ‘ভ্যানিটি ফেয়ার’কে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে নায়িকা জানিয়েছেন ১৯৯২ সালে 'বেসিক ইন্সটিংক্ট' শ্যুটিং চলাকালীন পরিচালক কথা দিয়েছিলেন কোনওভাবেই ছবিতে তাঁর গোপনাঙ্গ দেখানো হবে না, সেই বলে তাঁকে অন্তর্বাস খুলতে বাধ্য করিয়েছিলেন। কিন্তু ছবির প্রিভিউতে যখন ফাইনাল কাট তিনি পরিচালক ও অন্য সহকর্মীদের সঙ্গে বসে দেখছিলেন শ্যারন, তখন তিনি চমকে যান। ছবির ফাইনাল কাটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল তাঁর ভ্যাজাইনা। যা দেখে উত্তেজিত হয়ে পরিচালক পল ভারহোভেনকে থাপ্পড় কষাতে প্রোজেকশন রুমে তেড়ে গিয়েছিলেন তিনি। 

অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি পলকে সজোড়ে থাপ্পড় মারি, এবং সেখান থেকে বেরিয়ে আমার আইনজীবীকে ফোন করি। সে আমায় বলেছিল এই ছবির মুক্তি আমি আটকে দিতে পারি। সেই কথা শুনে পল আমায় বলে আমি শুধুই একজন অভিনেত্রী, একজন মহিলা..কিছুই করতে পারব না'। তবে শেষমেষ কেন এই দৃশ্য নিয়ে প্রতিবাদ জানাননি? অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি এই দৃশ্যটা রেখে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছিলাম শেষে কারণ এটা ছবির জন্য এবং ওই চরিত্রের সঙ্গে মানানসই ছিল। এবং অবশ্যই আমি সেটা শ্যুট করেছিলাম’। 

এই ইরোটিক থ্রিলারে এক লেখিকার (ক্রাইম নোভেলিস্ট) চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন শ্যারন, যার বিরুদ্ধে এক সংগীত শিল্পীকে খুনের অভিযোগ উঠে আসবে। সেই মার্ডার মিস্ট্রি সমাধানের দায়িত্বে ছিলেন অভিনেতা মাইকেল ডয়লাস। 

২০০২ সালে এই ছবির সিক্যুয়েল মুক্তি পায়। দুটি ছবিই সমান জনপ্রিয় সিনেপ্রেমীদের কাছে। 

বন্ধ করুন