বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Shah Rukh Khan: শেষ দৃশ্য দেখানো যাবে না ছেলে-মেয়েকে, তাই ‘অন্য’ভাবে ‘কাল হো না হো’ বানান শাহরুখ
‘কাল হো না হো’র শেষ দৃশ্য মনখারাপ করে দিতে পারে ছেলেমেয়েদের। (ফাইল ছবি)

Shah Rukh Khan: শেষ দৃশ্য দেখানো যাবে না ছেলে-মেয়েকে, তাই ‘অন্য’ভাবে ‘কাল হো না হো’ বানান শাহরুখ

  • ছবির শেষে শাহরুখের চরিত্রের মৃত্যু ছেলে-মেয়েকে দুঃখ দেবে। তাই এই ছবির অন্য একটি সংস্করণ বানান করণ এবং শাহরুখ। 

২০০৩ সালে মুক্তি পায় ‘কাল হো না হো’। শাহরুখ খানের জীবনের অন্যতম হিট ছবি। এই ছবির শেষে শাহরুখ অভিনীত চরিত্র আমন মারা যায়। বলিউড ছবির ইতিহাসে অন্যতম দুঃখের দৃশ্য এটি। কিন্তু এই দৃশ্যের কেমন প্রভাব পড়তে পারে শিশুমনের উপর? 

সোশ্যাল মিডিয়ায় হালে একটি ভিডিয়ো শেয়ার করেছেন শাহরুখের এক অনুরাগী। এক শিশু ছবিটির শেষ দৃশ্য দেখে কান্না ভাসিয়ে দিচ্ছে বলে দাবি করা হয়েছে সেখানে। দেখাও যায়, শিশুটি কাঁদছে। অনুরাগীর এই ভিডিয়োটির সূত্রে শাহরুখ বলেন, এই জন্যই নিজের ছেলে-মেয়েদের তিনি আসল ‘কাল হো না হো’র শেষটা দেখাননি। করণ জোহর তাদের জন্য আলাদা করে এডিট করে বানিয়ে দিয়েছিলেন ছবির অন্য একটা সংস্করণ।

যখন ছবিটি মুক্তি পায়, তখন শাহরুখের ছেলে আরিয়ানের বয়স ৬ বছর আর মেয়ে সুহানা ৩ বছরের। বাবাকে পর্দায় মরতে দেখলে তাদের মারাত্মক মনখারাপ হতে পারে বলে মনে হয়েছিল কিং খানের।

তবে এই ছবির মৃত্যুর দৃশ্য নিয়ে এর আগেও নানা আলোচনা হয়েছে। ছবির পরিচালক নিখিল আদবানি হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, একই সময়ে শাহরুখ ‘কাল হো না হো’ এবং ‘দেবদাস’ ছবির কাজ করেছিলেন। তাঁর নিজের ‘কাল হো না হো’র মৃত্যুদৃশ্যটি পছন্দ হয়নি। তিনি নাকি নিখিলকে বলেন, ‘ওটাকে (দেবদাস) বলে মৃত্যুদৃশ্য। এটা কোনও মৃত্যুদৃশ্য হল!’ তবে নিখিল বলেন, তিনি নাকি বোঝাতে চেয়েছিলেন, মৃত্যু মানেই শেষ নয়, ওটা কিছুটা থমকে যাওয়ার মতো। তাই ওভাবে দৃশ্যটি তৈরি করেন তিনি।

বন্ধ করুন