বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Yash-Ena: বন্ধু খোঁজার অ্যাপ বানাবেন যশ-এনা, আসছে শিলাদিত্য মৌলিকের ‘চিনে বাদাম’
যশের সঙ্গে জুটি বাঁধছেন এনা (ছবি সৌজন্যে ইনস্টাগ্রাম)
যশের সঙ্গে জুটি বাঁধছেন এনা (ছবি সৌজন্যে ইনস্টাগ্রাম)

Yash-Ena: বন্ধু খোঁজার অ্যাপ বানাবেন যশ-এনা, আসছে শিলাদিত্য মৌলিকের ‘চিনে বাদাম’

  • প্রযোজক এনার দ্বিতীয় ছবিতেও নায়কের ভূমিকায় যশ। পরিচালক শিলাদিত্য মৌলিকের ‘চিনে বাদাম’-এ প্রথমবার জুটিতে যশ-এনা। 

‘এসওএস কলকাতা’-র সঙ্গে প্রযোজক হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন এনা সাহা। টলিপাড়ার সবচেয়ে কনিষ্ঠ এই অভিনেত্রী-প্রযোজক এবার প্রস্তুত নিজের দ্বিতীয় ছবি নিয়ে। প্রথম ছবিতে ছোট একটি ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল এনাকে, কিন্তু এইবার নায়িকার ভূমিকায় থাকছেন এনা। আর বিপরীতে তাঁর ‘এওএস কলকাতা’ ছবির নায়ক যশ দাশগুপ্ত। 

ছবির নাম ‘চিনে বাদাম’, পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে ‘সোয়েটার’ খ্যাত শিলাদিত্য মৌলিক। এই ছবির সুবাদেই টলিউড পেতে চলেছে নতুন জুটি- যশ ও এনাকে। কেমন হবে এই ছবির গল্প? হিন্দুস্তান টাইমস বাংলাকে অভিনেত্রী-প্রযোজক এনা সাহা জানালেন, ‘একদম রোম্যান্টিক কমেডি ঘরনার ছবি। ছেলেটি (ঋষভ) বিদেশ থেকে টেকনোলজি নিয়ে পড়াশোনা করে দেশে ফিরেছে। মেয়েটি (তৃষ্ণা) গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে চাকরি খুঁজছে। তাঁরা একসঙ্গে মিলে একটি অ্যাপ তৈরি করবে। এটা বন্ধু খুঁজে পাওয়ার অ্যাপ, ডেটিং অ্যাপ নয় কিন্তু। সেই অ্যাপ তৈরির যে জার্নি তা দিয়েই সাজানো এই ছবির কাহিনি’। 

প্রযোজক এবং অভিনেত্রী, দুই গুরু দায়িত্ব এনার কাঁধে। নায়িকার গলায় কিন্তু আত্মবিশ্বাসের সুর, বললেন, 'আগের ছবিতে প্রযোজক হিসাবে সবটা আমার কাছে নতুন ছিল, সেইভাবেই প্ল্যান করা হয়েছিল যাতে আমার রোলটা ছোট হয় এবং আমি প্রোডাকশনে বেশি সময় দিতে পারি। যখন দেখলাম সেটা পরিপাটিভাবে হয়ে গিয়েছে, তখন মনে হল অভিনেত্রী হিসাবে আমি বেশি সময় দিতে পারব… এখন সেই কনফিডেন্সটা এসে গিয়েছে'। 

এসওএস কলকাতার পর এটাই যশের নতুন ছবি। অভিনেতা এক সাক্ষাত্কারে জানিয়েছেন, ‘সোয়েটার দেখে আমার দুর্দান্ত লেগেছিল আর এনার সঙ্গে তো আমি এসওএস কলকাতায় কাজ করেছি, তাই মুখিয়ে রয়েছি এই ছবিটার জন্য’। পরিচালকের কথায়, ‘একদম আজকের যুগের একটা প্রেম কাহিনি চিনা বাদাম, আমরা সকলেই মোবাইল অ্যাডিক্ট আজকের দিনে, যা আমাদের সম্পর্কগুলোকেও প্রভাবিত করছে। সম্পর্কের মধ্যে সেই উষ্ণতাটা হারিয়ে যাচ্ছে সচেতনভাবে কিংবা অবচেতনভাবে আমাদের এই মোবাইল অ্যাডিকশনের জেরে। সেটাই এই ছবির উপজীব্য। নিজের পেশাদার এবং ব্যক্তিগত জীবনকে ব্যালেন্স করতে গিয়ে ঋভষ ও তৃষার জীবনে কী জটিলতা তৈরি হবে তা ধরা পড়বে চিনে বাদামে’। 

যশ ও শিলাদিত্য মৌলিক দুজনেই এনার খুব কাছের বন্ধু, একদম ঘরোয়া পরিবেশে কাজ করতে পারবেন ভেবেই উচ্ছ্বসিত এনা। মূলত যশ ও এনাকে ঘিরেই তৈরি ছবির পুরো কাহিনি। সেপ্টেম্বরের শুরুতেই ফ্লোরে যাচ্ছে এই ছবি, আগামিকাল হবে ‘চিনে বাদাম’-এর শুভ মহরত। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে চলতি বছর ডিসেম্বরে বা আগামী বছরের একদম শুরুর দিকে মুক্তি পাবে এনার প্রযোজনা সংস্থা জারেক এন্টারটেনমেন্টের এই ছবি। 

বন্ধ করুন