বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > PCOS প্রভাব ফেলতে পারে আপনার ত্বক আর চুলে! জানুন কীভাবে হবে সমস্যার সমাধান
ত্বক ও চুলে পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রোমের প্রভাব। 
ত্বক ও চুলে পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রোমের প্রভাব। 

PCOS প্রভাব ফেলতে পারে আপনার ত্বক আর চুলে! জানুন কীভাবে হবে সমস্যার সমাধান

  • বর্তমানে ১০ জন নারীর মধ্যে ২-৩ জন এই সমস্যায় ভুগছেন!

PCOS-র পুরো কথা হল পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রোম। যা প্রভাব ফেলে ফিমেল হরমোন তথা ইস্ট্রোজেন ও প্রোজেস্টেরনের ওপর। এবং একজন নারীর পুরুষ হরমোন টেস্টাস্টেরনের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। যার ফলে মহিলাদের আর্লি মেনোপোজ, বান্ধত্য, পিরিয়ডস সময় মতো বা সঠিক পরিমাণে না হওয়ার মতো নানা প্রতিবন্ধকতা দেখা দিতে পারে। সঙ্গে পিসিওএস-র ফলে ওজন বেড়ে যাওয়া, শরীরে অবাঞ্ছিত লোম, চুল পড়ার মতো নানা সমস্যাও দেখা যায়। 

একজন নারী শরীরে থাকা হরমোনের তারতম্যের ফলে এই সময় ত্বক ও চুলে নানা ধরনের পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। যেগুলো-র থেকেও অনেকসময় বোঝা যায় কোনও মহিলা PCOS-এর সমস্যায় ভুগছেন--

১. পিসিওএস-র ফলে ত্বকে কালো ছোপ পড়ে। এগুলো সাধারণত লক্ষ্য করা যায় ঘাড়ের পিছনে, বগলে, হাঁটু ও কনুইতে। শরীরে ইনসুলিন রেজিসটেন্স ও মোটা হওয়ার মতো সমস্যাও দেখা যায়। 

২. মুখে আবাঞ্ছিত লোম নিয়ে অনেকেই এই সময় লজ্জায় পড়েন। ঠোঁটের ওপর, থুতনিতে, গালে লোম গজাতে শুরু করে। অনেকের পা ও হাতেও এই সমস্যা দেখা দেয়। 

৩. যাঁরা পিসিওএসের সমস্যায় ভুগছেন, তাঁদের কাছে ব্রণ খুব সাধারণ একটা ব্যাপার। তাই হঠাৎ করে যদি ব্রণ-র সমস্যা দেখা যায় তবে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। সাধারণত মুখের নীচের অংশ অর্থাৎ থুতনি, চিবুক, গালে ব্রণ হয় এক্ষেত্রে। 

৪. পিসিওএসের ফলে শরীরে অ্যান্ড্রোজেন হরমোন বেশি মাত্রায় তৈরি হতে থাকে। যার ফলে শরীরে অবাঞ্চিত লোমের পাশাপাশি, চুল পড়ার মতো সমস্যাও দেখা যায়। কারও কারও চুল অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে পড়ে। 

কী করবেন

এই ধরনের কোনও সমস্যা দেখা দিলে অবিলম্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। সাধারণত USG-র মাধ্যমে পরীক্ষা করে দেখা হয় ওভারিতে সিস্ট আছে কি না। ডান বা বাঁ দিকের ওভারি, অনেক সময় দুটো ওভারিতেই থাকতে পারে একাধিক ফলিকেলস বা সিস্ট। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই চিকিৎসকেরা জীবনযাত্রা পরিবর্তনের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। অর্থাৎ সঠিক সময়ে ঘুম থেকে ওঠা, শরীরচর্চা, সঠিক ডায়েট ও সঠিক সময়ে ঘুমোতে যাওয়া। পাশাপাশি যাঁদের PCOS-র সমস্যা আছে, তাঁদের ধুমপান ও মদ্যপান এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।

বন্ধ করুন