বাংলা নিউজ > টুকিটাকি > লোহার কড়াইয়ে রান্না করে অভ্যস্ত? জানুন সুস্থ থাকতে কোন কোন বিষয় নজরে রাখবেন
লোহার কড়াইয়ে তৈরি সবজি শীঘ্র কালো হয়ে যায়।
লোহার কড়াইয়ে তৈরি সবজি শীঘ্র কালো হয়ে যায়।

লোহার কড়াইয়ে রান্না করে অভ্যস্ত? জানুন সুস্থ থাকতে কোন কোন বিষয় নজরে রাখবেন

এক প্রাপ্তবয়স্ক মহিলার দৈনিক ১৮ মিলিগ্রাম আয়রনের প্রয়োজন হয়। আবার ৪ মাস পর্যন্ত লোহার কড়াইয়ে তৈরি খাবার বাচ্চাদের দেওয়া হলে তাদের হিমোগ্লোবিন স্তরে উন্নতি সম্ভব

শরীরে আয়রনের অভাব থাকলে লোহার কড়াইয়ে রান্না করে খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন অনেকে। মনে করা হয়, লোহার কড়াইয়ে রান্না করা খাবার খেলে স্বাস্থ্য লাভ সম্ভব। এক প্রাপ্তবয়স্ক মহিলার দৈনিক ১৮ মিলিগ্রাম আয়রনের প্রয়োজন হয়। আবার ৪ মাস পর্যন্ত লোহার কড়াইয়ে তৈরি খাবার বাচ্চাদের দেওয়া হলে তাদের হিমোগ্লোবিন স্তরে উন্নতি সম্ভব। তবে আপনাদের কী জানা আছে, এই বাসনগুলিকে সঠিক ভাবে ব্যবহার না-করলে বড়সড় কোনও স্বাস্থ্য সমস্যাকে আমন্ত্রণ জানাতে পারেন। লোহার কড়াইয়ে রান্নার আগে কোন কোন বিষয় লক্ষ্য রাখা উচিত, তা জেনে নিন—

লোহার বাসনে কী রাঁধবেন না

টক বা অম্ল জাতীয় জিনিস ভুলেও লোহার কড়াইয়ে রাঁধতে নেই। টক বা অম্ল লোহার সঙ্গে মিশে প্রতিক্রিয়া ঘটায়। যার ফলে খাবারে ধাতুর স্বাদ চলে আসতে পারে। তাই, কঢ়ি, রসম, সাম্বর ডাল বা টমেটোর কোনও পদ স্টেনলেস স্টিলের বাসনে রান্না করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

লোহার কড়াইয়ে তৈরি সবজি শীঘ্র কালো হয়ে যায়। কড়াইয়ের উপস্থিত লোহার জন্য এমনটি হয়। এটি স্বাস্থ্যের পক্ষেও ক্ষতিকর। দুটি কারণে সবজি কালো হয়ে যেতে পারে, প্রথমত বাসন ভালোভাবে পরিষ্কার না-হলে, দ্বিতীয়ত খাবার তৈরির পর সেটিকে লোহার বাসনে ছেড়ে দিলে। এমনটি একেবারেই করা উচিত নয়। লোহার কড়াইয়ে তৈরি সবজি শীঘ্র কোনও কাঁচ বা এনামেলের বাসনে রেখে দেওয়া উচিত।

সপ্তাহে কতদিন লোহার বাসনে রান্না করা উচিত

লোহার বাসনে রোজ রান্না করবেন না। সপ্তাহে দু থেকে তিনবার এতে রান্না করুন। হাল্কা ডিটারজেন্টের সাহায্যে লোহার বাসন ধোয়া উচিত। তার পর সঙ্গে সঙ্গে কাপড় দিয়ে কড়াই মুছে শুকিয়ে নেওয়া উচিত। খসখসে বা লোহার পুরনো স্ক্রাবার দিয়ে এই কড়াই পরিষ্কার করবেন না।

আবার লোহার বাসন তুলে রাখার আগে তাতে সরষের তেল লাগিয়ে রাখা উচিত। যাতে তাতে মরচে না-পড়ে যায়। পরিষ্কার ও শুকনো জায়গায় এই বাসন রাখবেন।

Disclaimer- এই প্রতিবেদনে প্রদত্ত তথ্যের যথার্থতা ও বাস্তবিকতা সুনিশ্চিত করার যথাসম্ভব চেষ্টা করা হয়েছে। তবে এর নৈতিক দায়িত্ব হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার নয়। তাই পাঠকদের কাছে আবেদন জানানো হচ্ছে, যে কোনও উপায় অবলম্বনের পূর্বে যথাযথ সাবধানতা অবলম্বন করবেন। চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে পিছপা হবেন না। আপনাদের তথ্য সমৃদ্ধ করাই আমাদের উদ্দেশ্য।

বন্ধ করুন