বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সদ্যোজাত সন্তানের মায়েদের কমপক্ষে ১ বছর বাড়ি থেকে কাজের সুপারিশ কেন্দ্রের
সদ্যোজাত সন্তানদের মায়েদের কমপক্ষে ১ বছর বাড়ি থেকে কাজের সুপারিশ কেন্দ্রের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
সদ্যোজাত সন্তানদের মায়েদের কমপক্ষে ১ বছর বাড়ি থেকে কাজের সুপারিশ কেন্দ্রের (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

সদ্যোজাত সন্তানের মায়েদের কমপক্ষে ১ বছর বাড়ি থেকে কাজের সুপারিশ কেন্দ্রের

  • কমপক্ষে এক বছরের জন্য বাড়ি থেকে কাজের জন্য উৎসাহ প্রদানের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সদ্যোজাত সন্তানের মায়েদের বাড়ি থেকে কাজের জন্য উৎসাহ প্রদানের পরামর্শ দিল কেন্দ্র।করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে নার্সদের সন্তানদের সুরক্ষিত রাখার জন্য সব রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। কমপক্ষে এক বছরের জন্য বাড়ি থেকে কাজের জন্য উৎসাহ প্রদানের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্রের চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘যেখানে সম্ভব, সেখানে নিয়োগকারীদের বাড়ি থেকে কাজে সবুজ সংকেত দেওয়ার জন্য পরামর্শ প্রদান করা যেতে পারে। সন্তানের জন্মের তারিখের পর থেকে সদ্যোজাত সন্তানের মায়েদের (যে মায়েরা তাঁদের সন্তানের স্তন্যপান করিয়ে থাকেন) ক্ষেত্রেও কমপক্ষে এক বছরের জন্য সেই সুযোগ মিলতে পারে।’ সঙ্গে চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সদ্যোজাত সন্তানের মায়েদের রক্ষা করার পাশাপাশি বাড়ি থেকে কাজ করার সুযোগ দিলে পেশায় থাকতে পারবেন তাঁরা।’

২০১৭ সালের মাতৃত্বকালীন সুযোগ-সুবিধা (সংশোধিত) আইনের ৫ (৫) ধারার আওতার বাড়ি থেকে কাজের সংক্রান্ত নিয়মের প্রয়োগ করে সব রাজ্যকে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্র। যে আইন অনুযায়ী, যদি কোনও কাজ বাড়ি থেকে করার সুযোগ থাকে, তাহলে মহিলাদের সেই অনুমতি দিতে হবে। মাতৃত্বকালীন সুযোগ পাওয়ার পরও বাড়ি থেকে কাজ করার অনুমতি পেতে পারেন মহিলা। তবে নিয়োগকারী এবং মহিলা - দু'পক্ষকেই কাজের বিষয়ে একমত হতে হবে।

বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, করোনা পরিস্থিতিতে সদ্যোজাত সন্তানের মায়েরা যদি নিয়মিত অফিসে যান, তাহলে ঝুঁকির মাত্রা বেশি হয়। রাস্তাঘাটে বা অফিসে করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসার আশঙ্কা থাকে। ফলে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থেকে যায়। যা সংশ্লিষ্ট তাঁদের ক্ষেত্রে বিপজ্জনক তো হবেই, তাঁর সন্তানও করোনায় সংক্রমিত হতে পারেন। সেই পরিস্থিতিতে সদ্যোজাত সন্তানের মাযেদের বাড়ি থেকে কাজের পরামর্শ দিয়ে ভালো পদক্ষেপ করা হয়েছে। যদিও বাস্তবে নার্স মায়েরা সেই সুযোগ পাবেন, তা নিয়ে ধন্দে আছে সংশ্লিষ্ট মহল।

বন্ধ করুন