উদ্ধারকাজের ছবি  (AFP)
উদ্ধারকাজের ছবি  (AFP)

বিশাখাপত্তনমে গ্যাস লিকে মৃত ১২, পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে, আশ্বাস পুলিশের

বৃহস্পতিবার রাতে ফের ছড়িয়েছিল আতঙ্ক। 

অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমে এলজি পলিমার্স প্ল্যান্ট থেকে গ্যাস লিক হয়ে এখনও পর্যন্ত মৃত ১২। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে এই গ্যাস লিক হয়ে যাতে প্রায় হাজার জন অসুস্থ হয়ে পড়েন। কেমিক্যাল প্ল্যান্টে পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে বলে জানিয়েছেন বিশাখাপত্তনমের পুলিশ কমিশনার আর কে মিনা। 

যেখানে গ্যাস লিক হয়েছিল, তার সংলগ্ন পাঁচটি গ্রামের মানুষদের অন্যত্র সরিয়ে দিয়েছে প্রশাসন। কিন্তু বাকিদের চিন্তার কারণ নেই ও তাঁরা নিজেদের বাড়িতেই থাকতে পারেন বলে আশ্বস্ত করেছেন পুলিশকর্তা। 

বিশাখাপত্তনমের অদূরে বেঙ্কাটপুরামে স্টাইরিন গ্যাস লিক হয়েছিল। মৃতদের মধ্যে ছয় ও নয় বছরের দুটি শিশু আছে। নিহতদের সবাই বেঙ্কটপুরাম ও গোপালপট্টনম গ্রামের নিবাসী বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে নতুন করে আতঙ্ক ছড়ায় যখন আবার ওই প্ল্যান্ট থেকে ধোঁয়া উড়তে দেখা যায়।শয়ে শয়ে গ্রামবাসী নিজেদের বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে আসেন। কিন্তু খুব দ্রুতই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে প্রশাসন। পুলিশ জানায় যে চিন্তার কিছু নেই, সবাই বাড়ি ফিরে যান। 

রেফ্রিজারেশন ইউনিটের ত্রুটির থেকেই এই প্ল্যান্টে গ্যাস লিক হয়ে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে। প্রায় ৩০০ জন অসুস্থ এখনও হাসপাতালে ভর্তি। মৃতদের পরিবারকে এক কোটি টাকা করে দেবে রাজ্য সরকার। গুরুতর আহতদের চিকিত্সার জন্য দশ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে। টিডিপি নেতা ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু এলজি পলিমার্সের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার দাবি করেছেন। 

অন্যদিকে এই ঘটনার জন্য রাজ্য সরকার ও পুলিশ প্রশাসনকে নোটিস পাঠিয়েছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। কেন্দ্রের তরফ থেকে রাজ্যকে যাবতীয় সাহায্য দেওয়া হবে বলে গতকাল জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। 

 

বন্ধ করুন