বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Liquor Discount: এবার মদে ‘আনলিমিটেড ডিসকাউন্ট’, সরকারের নয়া নীতিতে মুখে হাসি সুরাপ্রেমীদের
২০২২-২৩ নয়া আবগারি নীতি অনুযায়ী, ১ জুন থেকে মদের উপর আনিলিমিটেড ছাড় দেওয়ার নিয়ম কার্যকর করতে চলেছে দিল্লি।
২০২২-২৩ নয়া আবগারি নীতি অনুযায়ী, ১ জুন থেকে মদের উপর আনিলিমিটেড ছাড় দেওয়ার নিয়ম কার্যকর করতে চলেছে দিল্লি।

Liquor Discount: এবার মদে ‘আনলিমিটেড ডিসকাউন্ট’, সরকারের নয়া নীতিতে মুখে হাসি সুরাপ্রেমীদের

  • Liquor Discount: ২০২২-২৩ নয়া আবগারি নীতি অনুযায়ী, ১ জুন থেকে মদের উপর আনিলিমিটেড ছাড় দেওয়ার নিয়ম কার্যকর করতে চলেছে। এই নীতির আওতায় কোনও মদ বিক্রেতা, 'টু প্লাস টু' ও 'একটা কিনলে একটা ফ্রি' এবং ইচ্ছে হলে ধার্য মূল্যের অনেক কমেই মদ বিক্রি করতে পারেন।

সুরাপ্রেমীদের জন্য সুখবর। এবার থেকে মদে পেতে পারেন ২৫ শতাংশেরও বেশি ছাড়। মদ বিক্রিতে আর ছাড়ের ঊর্ধ্বসীমা বেঁধে দেওয়া হবে না। এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের পথেই দিল্লির সরকার। এতদিন পর্যন্ত মদের উপর ২৫ শতাংশ পর্যন্তই ছাড় পাওয়া যেত। কিন্তু সেই নিয়ম বদলাচ্ছে। ২০২২-২৩ নয়া আবগারি নীতি অনুযায়ী, ১ জুন থেকে মদের উপর আনিলিমিটেড ছাড় দেওয়ার নিয়ম কার্যকর করতে চলেছে। এই নীতির আওতায় কোনও মদ বিক্রেতা, 'টু প্লাস টু' ও 'একটা কিনলে একটা ফ্রি' এবং ইচ্ছে হলে ধার্য মূল্যের অনেক কমেই মদ বিক্রি করতে পারেন।

আবগারি দফতেরর এক বর্ষীয়ান অধিকর্তা জানিয়েছেন, এই প্রস্তাব আগামী সপ্তাহে ক্য়াবিনেট মিটিংয়ে উত্থাপিত করা হবে। সেখানে এই প্রস্তাব পুনরায় খতিয়ে দেখে এতে অনুমোদন দেওয়া হবে। তবে শোনা যাচ্ছে মন্ত্রিসভার বাকি মন্ত্রীরাও চান যে মদ বিক্রির ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট এই ছাড়ের পরিমাণ তুলে দেওয়া হোক। বরং এই ছাড়ের পরিমাণ মদ বিক্রেতাদের উপরই ছেড়ে দেওয়া শ্রেয় বলে মনে করছেন তাঁরা। তবে এতদিন পর্যন্ত আমদানিকৃত বিদেশি মদে বিক্রেতারা ২৫ শতাংশ ছাড় দিতেন, দেশে তৈরি মদে পাওয়া যেত ১৫ শতাংশ ছাড় ও বিয়ারে মিলত ১০ শতাংশ ছাড়। তবে এই ছাড়ের নিয়ম খুব শীঘ্রই বদল হতে চলেছে।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারি মাসে এই ২৫ শতাংশ ছাড়টুকুও পাননি সুরাপ্রেমীরা। তার পিছনে অবশ্য একটি কারণ রয়েছে। গত ফেব্রুয়ারিতে মদের দোকানগুলি মদের ধার্য মূল্যের উপর ৫০ শতাংশ হারে মদের উপর ছাড় দিচ্ছিল এবং একটা কিনলে একটা বিনামূল্যে এই অফার চালু করেছিল। ফলে বিভিন্ন মদের দোকানে দোকনে উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। এতে রাজধানীর রাস্তায় যানজট সৃষ্টি হয়। ব্যাহত হয় ট্র্য়াফিক। এর ফলস্বরূপ একপ্রকার ছাড়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে বাধ্য হয় দিল্লির সরকার। তবে স্থানীয় বিক্রেতারা এর ঘোর বিরোধিতা করে এবং সরকার ও তার আবগারি নীতির বিরুদ্ধে মামলাও দায়ের করেন।

বন্ধ করুন