সমগ্র জম্মু ও কাশ্মীর অঞ্চল এবং গিলগিট বাল্টিস্তান-সহ লাদাখ অঞ্চল বরাবরই ভারতের আইনি এবং অবিচ্ছেদ্য অংশ।
সমগ্র জম্মু ও কাশ্মীর অঞ্চল এবং গিলগিট বাল্টিস্তান-সহ লাদাখ অঞ্চল বরাবরই ভারতের আইনি এবং অবিচ্ছেদ্য অংশ।

গিলগিট-বাল্টিস্তানে নির্বাচনের তোড়জোড়, পাকিস্তানের উদ্যোগে তীব্র প্রতিবাদ দিল্লির

  • বলপূর্বক ও বেআইনি ভাবে দখল করা অঞ্চলের উপর পাকিস্তান সরকারের কোনও আইনি অধিকার নেই।

পাক অধিকৃত গিলগিট বাল্টিস্তান অঞ্চলে পাকিস্তানের নির্বাচন আয়োজনের সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানাল ভারত। সোমবার দিল্লিতে পাক দূতাবাসের শীর্ষস্থানীয় আধিকারিককে এই বিষয়ে দিল্লির আপত্তির কথা ফোনে জানানো হয়েছে।

এ দিন এক বিবৃতিতে বিদেশ মন্ত্রকে তরফে জানানো হয়েছে, ‘পরিষ্কার জানানো হয়েছে যে, কেন্দ্রশাসিত সমগ্র জম্মু ও কাশ্মীর অঞ্চল এবং গিলগিট বাল্টিস্তান-সহ লাদাখ অঞ্চল বরাবরই ভারতের আইনি এবং অবিচ্ছেদ্য অংশ।’

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, ‘বলপূর্বক ও বেআইনি ভাবে দখল করা অঞ্চলের উপর পাকিস্তান সরকারের কোনও আইনি অধিকার নেই।’

উল্লেখ্য, সমগ্র জম্মু ও কাশ্মীর এবং গিলগিট বাল্টিস্তান-সহ লাদাখ অঞ্চলকে ২০০৯ সালে প্রায়-প্রাদেশিক এলাকা বলে ঘোষণা করে পাকিস্তান সরকার। 

ইমরান খান সরকারের এক আবেদনের ভিত্তিতে গত ৩০ এপ্রিল পাক সুপ্রিম কোর্ট ২০১৮ সালের গিলগিট-বাল্টিস্তান অর্ডার সংশোধন করে ওই অঞ্চলে কার্যনির্বাহী শাসন ব্যবস্থা চালু করার প্রক্রিয়া বাস্তবায়িত করার নির্দেশ দিয়েছে।

গিলগিট-বাল্টিস্তানে বর্তমান প্রশাসনের মেয়াদ ফুরোতে চলেছে আগামী ২৪ জুন। তার ৬০ দিনের মধ্যে ওই অঞ্চলে নির্বাচন করার বিধি রয়েছে পাক সংবিধানে।

ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের দাবি, পাকিস্তানের জবরদখল করা অঞ্চলে আইনত নির্বাচন আয়োজন করা অসম্ভব। ওই অঞ্চল অবিলম্বে খালি করে দিতে ইসলামাবাদকে এর আগেও বার্তা দিয়েছে মন্ত্রক। 

এ দিন বিদেশ মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, পাক দূতাবাসের উচ্চপদস্থ কূটনীতিককে ফোনে এই বিষয়ে সাবধান করা হয়েছে। বিদেশ মন্ত্রকের বিবৃতিতেও বলা হয়েছে, ‘এমন পদক্ষেপে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখের অংশ অবৈধ ভাবে দখল করার বিষয়টি আড়াল করা যায় না। ওই অঞ্চলের মানুষের মানবাধিকা লঙ্ঘন এবং স্বাধীনতা হরণ করেছে পাকিস্তান।’

 

বন্ধ করুন