বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > জাপান: ফুকুশিমার জল সমুদ্রে ছাড়া নিয়ে ক্ষুব্ধ চিন ও দক্ষিণ কোরিয়া

জাপান: ফুকুশিমার জল সমুদ্রে ছাড়া নিয়ে ক্ষুব্ধ চিন ও দক্ষিণ কোরিয়া

জাপানের দাবি প্রক্রিয়াজাত তেজস্ক্রিয় জল মানুষ বা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর নয় (REUTERS)

জাপান সরকার এবং ২০১১ সালের ভূমিকম্প এবং সুনামিতে বিকল হওয়া প্ল্যান্টের অপারেটর আইএইএ-এর অনুমোদনকে স্বাগত জানিয়েছে ৷ যদিও বেশিরভাগ জাপানি নাগরিক এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে জল থেকে কার্যত সমস্ত তেজস্ক্রিয়তা সরানো হয়েছে এবং তাই এটি প্রশান্ত মহাসাগরে নিঃসরণ করা সবচেয়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ ৷

জাপান সরকার নিজেদের নাগরিক ও তার প্রতিবেশীদের বোঝানোর জন্য প্রচার জোরদার করছে ৷ তাদের দাবি, প্রক্রিয়াজাত তেজস্ক্রিয় জল মানুষ বা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক নয় ৷

ফুকুশিমা দাইচি পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে ১২ লাখ টনেরও বেশি জল নিষ্পত্তি করার পরিকল্পনা নিয়েছে টোকিও ৷ আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি সংস্থা (আইএইএ) অবশেষে এটি অনুমোদন করেছে জানিয়ে তারা বলছে, নিষ্পত্তির পদ্ধতিটি ‘সামঞ্জস্যপূর্ণ' ছিল ৷ আইইএ রিপোর্টে আরো বলা হয়েছে, নিষ্কাশন করা জল পরিবেশের উপর ‘নগণ্য তেজষ্ক্রিয় প্রভাব' ফেলবে ৷

জাপান সরকার এবং ২০১১ সালের ভূমিকম্প এবং সুনামিতে বিকল হওয়া প্ল্যান্টের অপারেটর আইএইএ-এর অনুমোদনকে স্বাগত জানিয়েছে ৷

যদিও বেশিরভাগ জাপানি নাগরিক এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন যে জল থেকে কার্যত সমস্ত তেজস্ক্রিয়তা সরানো হয়েছে এবং তাই এটি প্রশান্ত মহাসাগরে নিঃসরণ করা সবচেয়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ ৷ তবে অনেকেই দ্বিমত পোষণ করেন, বিশেষ করে প্রতিবেশী দেশগুলির অনেকেই জাপানের সিদ্ধান্তে সমর্থন জানাননি ৷

দক্ষিণ কোরিয়ার বিরোধী রাজনীতিকরা টোকিওর সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দেশটির জাতীয় পরিষদে বসার পরিকল্পনা করছিলেন ৷ শনিবারও পার্লামেন্টের বাইরে সমাবেশের পরিকল্পনা করছে ডেমোক্র্যাটিক পার্টি ৷

চিন ক্ষোভ প্রকাশ করেছে

টোকিওতে চিনা রাষ্ট্রদূত উ জিয়াংহাও মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে বেইজিংয়ের এই পরিকল্পনার বিরোধিতার কথা তুলে ধরে বলেন, ‘একটি পারমাণবিক দুর্ঘটনা থেকে দূষিত জল সমুদ্রে ছাড়ার ঘটনা নজিরবিহীন৷’

জিয়াংহাও উল্লেখ করেছেন যে চিন উত্তর-পূর্ব জাপানের ১০টি জায়গা থেকে সমস্ত খাদ্যসামগ্রী আমদানি নিষিদ্ধ করেছে৷ ২০১১ সালের মার্চে ভূমিকম্প (রিখটার স্কেলে যার মাত্রা ছিলো ৯) এবং সুনামির পরে ফুকুশিমা প্ল্যান্টের তিনটি চুল্লির গলিত হওয়ার দ্বারা সবচেয়ে গুরুতরভাবে প্রভাবিত হয়েছিল এগুলি৷ চিন প্রস্তাব করে যে আমদানি নিষেধাজ্ঞা জাপানের বাকি অংশের জন্য জারি হতে পারে৷

তার কথায়, ‘চিন কী পদক্ষেপ নেবে, পরবর্তী পর্যায়ে আমরা কী করব, তা নির্ভর করছে জাপানের নিষ্কাশন পরিকল্পনার উন্নয়নের উপর৷'

পরিবেশবাদীদের প্রতিবাদ

পরিবেশবাদী গোষ্ঠীগুলিও এই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে সরব হয়েছে৷ বুধবার সোলে বিক্ষোভকারীরা এ নিয়ে প্রতিবাদ জানান৷ জাপান সরকারের পরিকল্পনার সমর্থনে আইএইএ-র পেশ কর রিপোর্ট প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা৷ গ্রিনপিস টোকিওকে সমুদ্রের আইন সংক্রান্ত জাতিসংঘের কনভেনশন লঙ্ঘনের জন্য অভিযুক্ত করেছে৷

টোকিও-ভিত্তিক সিটিজেনস নিউক্লিয়ার ইনফরমেশন সেন্টারের সেক্রেটারি জেনারেল হাজিমে মাতসুকুবো এ বিষয়ে উদ্বেগে কথা জানান৷

ডয়চে ভেলেকে তিনি জানান, ‘আমরা এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে কোনোভাবে একমত নই৷ আমরা বিশ্বাস করি সরকারের কাছে আরো অনেক ভালো বিকল্প আছে৷ এখানে আরো ট্যাঙ্ক নির্মাণ না করার কোনো কারণ নেই, ভূগর্ভস্থ জলাধার তৈরি করা যেতো৷ রেডিওনিউক্লাইড অপসারণের জন্য আরো ভাল প্রক্রিয়াকরণের ব্যবস্থা চালু করা যেতো৷'

তার কথায়, ‘জাপান এ সবের পরিবর্তে সবচেয়ে সহজ এবং সস্তার বিকল্পটি বেছে নিয়েছে৷ আমি মনে করি তারা এই বিকল্প বেছে নিয়েছে কারণ এটি ব্যয়বহুল নয়৷'

আইএইএ-র সমস্যা

মাতসুকুবো বলেন, জাপান সরকার আইএইএ-এর সমর্থনের অভিব্যক্তিকে ব্যবহার করছে৷ প্রায় নিশ্চিতভাবে গ্রীষ্মের শেষের আগে এটি শুরু হওয়ার কথা৷ তবে এর জন্য কোনো স্পষ্ট রোডম্যাপ নেই৷

তার প্রশ্ন, ‘টেপকো বলছে যে জল ছেড়ে দেওয়া সামগ্রিক ডিকমিশন পরিকল্পনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু পাওয়ার স্টেশনটি স্থিতিশীল এবং বিচ্ছিন্ন করার জন্য কখনও বিশদ সময়সূচি ছিল না, তাহলে কেন এটি প্রয়োজনীয়?'

মাতসুকুবো আইএইএর স্বাধীনতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন৷ তিনি উল্লেখ করেছেন যে এটি পারমাণবিক শক্তি উৎপাদনকারী দেশগুলির অর্থায়নে চলে এবং মূলত পারমাণবিক শক্তির প্রচারের দায়িত্বপ্রাপ্ত৷ জাপানের পারমাণবিক সেক্টরের ব্যর্থতার পরিপ্রেক্ষিতে, অন্তত ফুকুশিমা প্লান্টে নয়, টেপকো এবং জাপান সরকারের দেওয়া তথ্যের সত্যতা নিয়েও প্রশ্ন করা উচিত৷

মাতসুকুবোর কথায়, ‘সরকার বলছে এএলপিএস (অ্যাডভান্সড লিকুইড প্রসেসিং সিস্টেম) জল থেকে বিভিন্ন রেডিওনিউক্লাইড অপসারণ করছে যাতে এটিকে আগের তুলনায় পাতলা করে সমুদ্রে ছেড়ে দেওয়া যায়৷ কিন্তু জলের কোনো আলাদা পরীক্ষা করা হয়নি, তাহলে আমরা কীভাবে নিশ্চিত হতে পারি?'

জুনের প্রথম দিকে টেপকোর জারি করা একটি রিপোর্ট দেখায় যে ৭০ শতাংশের বেশি জল নির্গত হওয়ার কারণে এএলপিএল সিস্টেমের সঙ্গে প্রক্রিয়া করার পরেও বিকিরণ থেকে দূষণমুক্ত করার আইনি মান পূরণ করে না৷  সংস্থাটি তখন বলেছিল, প্রয়োজনীয় মানগুলি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত জল শুদ্ধ করার প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যাবে তারা৷ 

বিশ্বের পারমাণবিক বিপর্যয়ের ১২ বছরেরও বেশি সময় পরে, জাপানের আশা, ঘটনাস্থলের স্টোরেজ ট্যাঙ্কগুলি থেকে জল ছেড়ে দেওয়া দীর্ঘস্থায়ী ডিকমিশন প্রক্রিয়ার আরেকটি যুগান্তকারী ঘটনা হবে৷এতে কমপক্ষে ৪০ বছর সময় লাগবে বলে আশা করা হচ্ছে ৷ তবে পারমাণবিক জ্বালানি সংগ্রহ এবং অপসারণের জন্য প্রযুক্তির প্রয়োজন, যা এখনো ঠিক হয়নি ৷

স্থানীয় বিরোধিতা

টেম্পল ইউনিভার্সিটির টোকিও ক্যাম্পাসের রাজনীতির অধ্যাপক হিরোমি মুরাকামি বলেন, ‘স্থানীয় জনগণ এবং উত্তর-পূর্ব জাপানের মৎস্যজীবীরা ক্রমাগত এই পরিকল্পনার বিরুদ্ধে ৷ কারণ তাদের ধারণা, এটি তাদের ব্যবসা এবং জীবনযাত্রায় গুরুতর প্রভাব ফেলবে ৷ কিন্তু জাপানের অনেকের বক্তব্য, দুর্ঘটনাস্থল থেকে আরো বেশি জল সংরক্ষণ করা সম্ভব ৷'

তার কথায়, ‘আস্থা অর্জন করতে টেপকোকে আরো খাটতে হবে৷ জাপানের সঙ্গে রাজনৈতিক এবং ব্যবসায়িক বিশ্বের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক নিয়ে সবসময় প্রশ্ন থাকবে, কিন্তু আমরা এখন এই পরিস্থিতিতে আছি ৷ আমাদের ধরে নিতে হবে এটাই সেরা পদক্ষেপ ৷'

 

ঘরে বাইরে খবর
বন্ধ করুন

Latest News

বিতকর্কে থোড়াই কেয়ার, ঘরোয়া ক্রিকেট ছেড়ে IPL-র জন্য প্রস্তুতি শুরু ইশানের 'যে সব জায়গায় জনবিন্যাস বদলে গিয়েছে সেখানে নিয়মিত ধর্ষণ করা হয় হিন্দু মেয়েদের' বিপাকে রবীন্দ্রন, বাইজুস থেকে বাইজুকে ছেঁটে ফেলতে NCLT-তে আবেদন ৪ বিনিয়োগকারীর প্রথা ভাঙল উচ্চমাধ্যমিকের দর্শনে, কোন প্রশ্নটা কঠিন? বাকিটা কেমন? জানালেন শিক্ষক 'আমি লজ্জিত', শ্রীদেবীর মেয়ে হয়েও তেলুগু ভাষা জানেন না! অনুশোচনা জাহ্নবীর ব্রহ্মোস, মিগের ইঞ্জিন কেনা হবে, ৩৫০০০ কোটির ৪টি চুক্তিকে সবুজ সংকেত কেন্দ্রের গাজওয়া-ই-হিন্দ ফতোয়া! দারুল উলুম দেওবন্দের বিরুদ্ধে এইআইআর করার নির্দেশ সূর্যাস্তের সময় সাতপাক থেকে হলদি: রকুলপ্রীত-জ্যাকির বিয়ের কোন ৭ মুহূর্ত নজর কাড়ল? মেসিদের জন্য দরজা বন্ধ করল চিন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে খেলবে আর্জেন্তিনা সন্দেশখালিতে জনরোষের মুখে শাহজাহান ঘনিষ্ঠ TMC নেতা, ভাঙচুর হল বাড়ি

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.