বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কয়লা সঙ্কটের জেরে লেবাননে ব্ল্যাকআউট, অন্ধকার নেমে এসেছে ৬০ লক্ষ মানুষের উপর!
অন্ধকারে ডুবেছে লেবাননের ৬০ লক্ষ মানুষ (ছবি সৌজন্যে টুইটার)
অন্ধকারে ডুবেছে লেবাননের ৬০ লক্ষ মানুষ (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

কয়লা সঙ্কটের জেরে লেবাননে ব্ল্যাকআউট, অন্ধকার নেমে এসেছে ৬০ লক্ষ মানুষের উপর!

  • এমনিতেই অর্থনৈতিক ভাবে লেবাননের অবস্থা টালমাটাল। এই আবহে বিদ্যুতের অভাবে মধ্য প্রাচ্যের এই দেশের ৬০ লক্ষ মানুষের উপর নেমে এসেছে অন্ধকার।

কয়লা সঙ্কটের জেরে বন্ধ হয়ে গিয়েছে লেবাননের সবথেকে বড় দুটি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র। আর এর জেরে অন্ধকার নেমে এসেছে গোটা দেশের উপর। বিদ্যুতের অভাবে আরও সঙ্কটের মুখে দেশটি। এমনিতেই অর্থনৈতিক ভাবে লেবাননের অবস্থা টালমাটাল। এই পরিস্থিতিতে বিদ্যুতের অভাবে মধ্য প্রাচ্যের এই দেশের ৬০ লক্ষ মানুষের উপর নেমে এসেছে অন্ধকার। সরকারি বিদ্যুৎ কোম্পানি সেনাবাহিনীর রিজার্ভ তেল ব্যবহার করে সাময়িকভাবে বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু করতে পারলেও এই সমাধানসূত্র দীর্ঘস্থায়ী নয় বলে জানিয়েছে সেদেশের সরকার।

লেবাননের সরকারের বক্তব্য, কয়লার আমদানি না হলে, সোমবার পর্যন্ত এই দুর্যোগ চলতে থাকবে। উল্লেখ্য, লেবাননের সবথেকে বড় বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী সংস্থা জাহরানি এবং ডেইর আম্মার। এই দুই সংস্থার উৎপাদন কেন্দ্রগুলি দেশের ৪০ শতাংশ বিদ্যুতের চাহিদা মেটায়। এই আবহে ভয়ঙ্কর বিদ্যুৎ সঙ্কটের মুখোমুখি লেবানন। এর আগে শুক্রবার জ্বালানি সংকটের কারণে দেইর আম্মার কেন্দ্রটি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। শনিবার জাহরানি কেন্দ্রটিও বন্ধ হয়ে যায় একই কারণে। এদিকে অর্থনৈতিক সংকটের কারণে লেবাননের আমদানি করা জ্বালানি তেল ইতোমধ্যে শেষ হওয়ার পথে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরেই কয়লা সঙ্কটের পরিস্থিতি তৈরি হয় লেবাননে। এই একই ধরনে সঙ্কটের মুখে ভারতের রাজধানী দিল্লিও। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আশঙ্কা, চরম বিদ্যুৎ সঙ্কট দেখা দিতে পারে রাজধানীতে। ইতিমধ্যেই কেজরিওয়াল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখে আবেদন জানিয়েছেন যাতে দিল্লির বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রগুলিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে কয়লা ও গ্যাস পাঠানো হয়।

 

বন্ধ করুন