বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > One Nation One Election: এক দেশ এক ভোট, এক সুরে আপত্তি সিপিএম-তৃণমূলের, মিটিং হল কোবিন্দ কমিটির সঙ্গে

One Nation One Election: এক দেশ এক ভোট, এক সুরে আপত্তি সিপিএম-তৃণমূলের, মিটিং হল কোবিন্দ কমিটির সঙ্গে

সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি। ফাইল ছবি

মিটিংয়ের পরে কল্যাণ বন্দ্য়োপাধ্য়ায় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ধরা যাক একটা রাজ্য সরকার পড়ে গেল। বিভিন্ন জায়গায় এটা হয়। সেখানে কীভাবে সরকার চলবে নাকি রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হবে? এক্ষেত্রে মানুষের মতামত আর থাকবে না।

সপ্তর্ষি দাস

এক দেশ এক ভোট। উচ্চ পর্যায়ের কমিটি প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের নেতৃত্বে। মঙ্গলবার তিনি তৃণমূল, সিপিএম, সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে মিটিং করেন। কেন ওই দলগুলি এই নীতিতে আপত্তি জানাচ্ছেন তা জানার চেষ্টা করেন তিনি। তাঁদের মতামত শুনেছে কমিটি। 

তৃণমূলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে তারা এই নীতির বিরোধিতা করছেন। কারণ আসলে এই ওয়ান নেশন ওয়ান ইলেকশনের মাধ্য়মে ভারতে একনায়কতন্ত্র চালানোর চেষ্টা করা হবে।

তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্য়ায় ও সাংসদ সুদীপ বন্দ্য়োপাধ্য়ায় এই আলোচনায় অংশ নিয়েছিলেন। তাঁদের মতে এই নীতির মাধ্য়মে দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোতে হস্তক্ষেপ করা হবে।

মিটিংয়ের পরে কল্যাণ বন্দ্য়োপাধ্য়ায় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ধরা যাক একটা রাজ্য সরকার পড়ে গেল। বিভিন্ন জায়গায় এটা হয়। সেখানে কীভাবে সরকার চলবে নাকি রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হবে? এক্ষেত্রে মানুষের মতামত আর থাকবে না।

এদিকে এর আগে বাংলার মুখ্য়মন্ত্রীর এই মিটিংয়ে উপস্থিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তিনি শেষ মুহূর্তে সেই সফর বাতিল করেন। এরপর তিনি দুই সাংসদ যাবেন বলে জানিয়েছিলেন।

এদিকে মমতা আগেই এই নীতি মানতে চাননি। তাঁর মতে এর মাধ্যমে সংবিধানের সাধারণ পরিস্থিতিকেই ভেঙে দেওয়া হবে।

সিপিএমের তিন সদস্যের প্রতিনিধি তার মধ্যে সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি, পলিটব্যুরোর সদস্য নীলোৎপল বসু ও কেন্দ্রীয় সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মুরলীধরন ছিলেন। 

ইয়েচুরি বলেন, আমাদের দল এর আপত্তি করছে। তাঁর মতে, এই নীতি ভারতের সংবিধানের পরিপন্থী। যখন কোনও সরকার ভেঙে যায় তখন তা চলতে পারে না। তিনি বলেন যখন গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ভারতে শুরু হয়েছিল প্রথম ভোট হয়েছিল ১৯৫২ সালে। এরপর ৫৭ সালে সেটা ভেঙে গেল কেন? কারণ রাজ্য সরকার ৩৫৬ ধারার অপপ্রয়োগের মাধ্যমে ভেঙে গিয়েছিল।

সমাজবাদী পার্টির কেকে শ্রীবাস্তব ও হরিশচন্দ্র সিং যাদব ছিলেন। তাঁদের মতে, এটা অসাংবিধানিক। একনায়কতন্ত্র স্থাপনের একটা প্রচেষ্টা। 

এদিকে বাণিজ্যিক সংস্থা ফিকির দাবি, এই ধারনার মাধ্যমে যে টাকা বাঁচবে তা উন্নয়নের খাতে খরচ করা যেতে পারে। তাঁদের মতে বার বার ভোট হলে ব্যবসার ক্ষতি হয়। সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে আরও বেশি সময় লাগে। তবে শেষ পর্যন্ত এবার কোবিন্দ কমিটির মাধ্যমে এই নীতি আসলে বাস্তবায়িত হয় কি না সেটাই দেখার। 

ঘরে বাইরে খবর

Latest News

‘সন্ত্রাসবাদীদের জন্য কেন কেঁদেছিলেন’, বাটলা হাউস নিয়ে সোনিয়াকে আক্রমণ নড্ডার ‘‌টাকা কত লাগবে দেখে নিন’‌, টিকিট পেতে অর্থ দেওয়ার অভিযোগ, কবিরের অডিয়ো ফাঁস দ্বিতীয় বিয়ের পর মিলেছে খোঁটা! অপমান ভুলে রাতুলে মজে রূপাঞ্জনা, বউভাতের ঝলক বান্ধবীর জন্য অর্ডার করা বার্গার খাওয়ায় পাকিস্তানে বন্ধুকে গুলি করে খুন যুবকের ইডেন থেকে চিপক, হোম অ্যাডভান্টেজ কাজে লাগাতে কতটা সহায়তা করছে পিচ? রাগের মাথায় পুলিশকেই গাড়ি চাপা দিতে গেলেন! পাকিস্তানি মহিলার ভাইরাল কাণ্ড Mango Benefits: আম স্বাদ ও স্বাস্থ্যের ভাণ্ডার, আম খেলে কী কী উপকার পাবেন দেখুন হেলথ ফুড ক্যাটাগরি থেকে বাদ পড়ল হরলিক্স! ছোটদের জন্য আর স্বাস্থ্যকর নয় এটি? দশম শ্রেণিতে ৯৩.৫% নম্বর দেখে অজ্ঞান শিক্ষার্থী, আইসিইউতে ভর্তি সন্দেশখালির ছায়া আমতায়, রাতে মহিলাদের ডেকে নির্যাতনের অভিযোগ TMCর বিরুদ্ধে

Latest IPL News

ইডেন থেকে চিপক, হোম অ্যাডভান্টেজ কাজে লাগাতে কতটা সহায়তা করছে পিচ? 'Don't spread nonsense', মিথ্যে উদ্ধৃতির অভিযোগে এক ওয়েবসাইটকে ধুয়ে দিলেন রায়াডু তুমি কত টাকা চাও, জিজ্ঞেস করেছিল স্কাই স্পোর্টস, উত্তর শুনে পালিয়েছে, বললেন বীরু কোন যোগ্যতায় IPL-এর কমেন্ট্রি করেন প্রেরণা? ট্রোল হতেই জবাব এল, 'লোকের ফেটেছে' DC vs GT: রোহিতের কথায় সায় অক্ষরের,ইমপ্যাক্ট প্লেয়ারের নিয়মে বিপাকে অলরাউন্ডাররা পরীক্ষিত সৈনিকেই ভরসা, বিশ্বকাপে জায়গা হচ্ছে না রিয়ান, মায়াঙ্কদের প্রথমে ভেবেছিলাম ১৮০ করব, তারপর পন্ত বলল… ঋষভের আত্মবিশ্বাস দেখে অবাক আমরে বিধ্বংসী মেজাজে ব্যাট করার পরেও ক্ষমা চাইলেন পন্ত, কিন্তু কার কাছে, কেন? -ভিডিয়ো ‘আমি অনুরোধ করেছিলাম,তবে ও শোনেনি’,উথাপ্পার কোন ব্যবহার এখনও মনে রয়েছে কুম্বলের? ফুটবল খেলে,বাচ্চাদের সঙ্গে কেক কেটে জন্মদিনের সপ্তাহের শুরু সচিন তেন্ডুলকরের

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.