বাড়ি > ঘরে বাইরে > সোশ্যাল মিডিয়া ভিডিয়োর জেরে অমানবিকতার দায়ে সাসপেন্ড ওডিশার ব্যাঙ্ক ম্যানেজার
শতায়ু মা-কে খাটিয়া সমেত টেনে নিয়ে ব্যাঙ্কে চলেছেন পুঞ্জিমাতা দেই। এই দৃশ্য দেখেই সমালোচনায় মুখর হয় সোশ্যাল মিডিয়া।
শতায়ু মা-কে খাটিয়া সমেত টেনে নিয়ে ব্যাঙ্কে চলেছেন পুঞ্জিমাতা দেই। এই দৃশ্য দেখেই সমালোচনায় মুখর হয় সোশ্যাল মিডিয়া।

সোশ্যাল মিডিয়া ভিডিয়োর জেরে অমানবিকতার দায়ে সাসপেন্ড ওডিশার ব্যাঙ্ক ম্যানেজার

  • ভিডিয়ো ক্লিপিং সোশ্যাল মিডিয়ায় চাউর হওয়ার পরে ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে অমানবিকতার অভিযোগে সরব হয় নেট দুনিয়া।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ওডিশার প্রৌঢ়া পেনশন তুলতে তাঁর শতায়ু মা-কে খাটিয়া সমেত টেনে ব্যাঙ্কে পৌঁছানোর ভিডিয়ো ভাইরাল হওয়ার জেরে সাসপেন্ড হলেন উৎকল গ্রামীণ ব্যাঙ্কের স্থানীয় শাখার ম্যানেজার।

পাঁচ দিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ওডিশার নুয়াপাড়ার এক প্রৌঢ়াকে দেখা যায়, জনধন অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলতে তাঁর অতিবৃদ্ধা মা-কে খাটিয়ায় শুইয়ে টানতে টানতে রাস্তা দিয়ে যেতে। জানা যায়, অ্যাকাউন্টধারীকে সশরীরে না দেখা পর্যন্ত টাকা দেওয়া যাবে না বলায় ব্যাঙ্ক ম্যানেজারের বিশ্বাস অর্জন করাতেই এমন কাণ্ড করেন নুয়াপাড়া জেলার বরগাঁও গ্রামের প্রৌঢ়া বাসিন্দা পুঞ্জিমাতা দেই।

আরও পড়ুন: পেনশনের টাকা পেতে শতায়ু মা-কে খাটিয়া সমেত টেনে ব্যাঙ্কে হাজির প্রৌঢ়া মেয়ে

লেই দৃশ্যের ভিডিয়ো ক্লিপিং সোশ্যাল মিডিয়ায় চাউর হওয়ার পরে ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে অমানবিকতার অভিযোগে সরব হয় নেট দুনিয়া। শেষে তার জেরে খোদ ওডিশা সরকারের চাপেই সাসপেন্ড করা হয়েছে ওই ব্যাঙ্কের বরগাঁও শাখার ম্যানেজার অজিত প্রধানকে।

উৎকল গ্রামীণ ব্যাঙ্কের বৃহত্তম শেয়ার হোল্ডার স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ‘যদিও শাখা ম্যানেজারের গ্রাহককে নাজেহাল করার কোনও উদ্দেশ্য ছিল না, যোগাযোগের অভাবে দুর্ভাগ্যজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল, যার জন্য ব্যাঙ্কের অমানবিক ও অসংবেদনশীল আচরণ প্রকাশ পেয়েছে। গোটা ঘটনার জন্য উৎকল গ্রামীণ ব্যাঙ্ক অনুতপ্ত এবং সমগ্র বিষয়টি পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

তবে নিজের আচরণ ব্যাখ্যা করে এর আগে ম্যানেজার জানিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রী গরিব যোজনায় জনধন অ্যাকাউন্টে জমা পড়া টাকা দিতে নথিপত্র দেখার জন্য সময় লাগবে। এই কারণে পরের দিন আসতে বললে খাটিয়া-সহ শতবর্ষ পেরোনো মা-কে এনে ব্যাঙ্কে হাজির করেন পুঞ্জিমাতা, যা কখনই তাঁকে বলা হয়নি। 

বন্ধ করুন