বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > করোনার নয়া প্রজাতি আসেনি তো? তৃতীয় ঢেউ রুখতে বাড়তি নজরদারির নির্দেশ মোদীর
করোনা সংক্রান্ত বৈঠকে মোদী। (ছবি সৌজন্য এএনআই)
করোনা সংক্রান্ত বৈঠকে মোদী। (ছবি সৌজন্য এএনআই)

করোনার নয়া প্রজাতি আসেনি তো? তৃতীয় ঢেউ রুখতে বাড়তি নজরদারির নির্দেশ মোদীর

  • সম্প্রতি অভিযোগ উঠতে থাকে যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শিথিল হওয়ার পরে ভারতে জিনোম সিকোয়েন্সিং যথেষ্ট কমে গিয়েছে।

সম্ভাব্য তৃতীয় ঢেউয়ের আগে করোনাভাইরাসের নয়া প্রজাতি নিয়ে সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। নয়া প্রজাতির করোনাভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হয়েছেন কিনা, তা নির্ধারণ করতে লাগাতার জিনোম সিকোয়েন্সিং চালিয়ে যাওয়ার উপর জোর দিয়েছেন।

ভারতের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার উচ্চ-পর্যায়ের পর্যালোচনা বৈঠক করেন মোদী। বৈঠকে কেন্দ্রীয় সরকারি আধিকারিকরা মোদীকে জানান যে সারা দেশে ইন্ডিয়ান সার্স-কোভ-২ কনসর্টিয়াম অন জিনোমিক্সের ২৮ টি ল্যাবরেটরি আছে। সেই ল্যাবরেটরিগুলির সঙ্গে বিভিন্ন হাসপাতাল জুড়ে দেওয়া হয়েছে। পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, মোদীকে জানানো হয়েছে যে নিয়মিত জিনোম সিকোয়েন্সিং চালানো হচ্ছে। সেইসঙ্গে নিয়মিত ইন্ডিয়ান সার্স-কোভ-২ কনসর্টিয়াম অন জিনোমিক্সের কাছে করোনা আক্রান্তদের নমুনা পাঠানোর জন্য রাজ্যগুলিকে আর্জি জানানো হয়েছে।

ভারতের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার উচ্চ-পর্যায়ের পর্যালোচনা বৈঠক করেন মোদী। বৈঠকে কেন্দ্রীয় সরকারি আধিকারিকরা মোদীকে জানান যে সারা দেশে ইন্ডিয়ান সার্স-কোভ-২ কনসর্টিয়াম অন জিনোমিক্সের ২৮ টি ল্যাবরেটরি আছে। সেই ল্যাবরেটরিগুলির সঙ্গে বিভিন্ন হাসপাতাল জুড়ে দেওয়া হয়েছে। পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, মোদীকে জানানো হয়েছে যে নিয়মিত জিনোম সিকোয়েন্সিং চালানো হচ্ছে। সেইসঙ্গে নিয়মিত ইন্ডিয়ান সার্স-কোভ-২ কনসর্টিয়াম অন জিনোমিক্সের কাছে করোনা আক্রান্তদের নমুনা পাঠানোর জন্য রাজ্যগুলিকে আর্জি জানানো হয়েছে।|#+|

নয়া প্রজাতির করোনাভাইরাসকে চিহ্নিত করতে গত বছর ইন্ডিয়ান সার্স-কোভ-২ কনসর্টিয়াম অন জিনোমিক্স তৈরি করেছে কেন্দ্র। দেশজুড়ে সেই কনসর্টিয়ামের ২৮ টি ল্যাবরেটরিতে করোনা আক্রান্তদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নয়া কোনও করোনার প্রজাতি থাবা বসিয়েছে কিনা, তা নির্ধারণ করে হয়ে থাকে। উদ্বেগজনক কোনও প্রজাতির করোনার হদিশ মিলছে কিনা, তা জানিয়ে দেয় ইন্ডিয়ান সার্স-কোভ-২ কনসর্টিয়াম অন জিনোমিক্স। তবে সম্প্রতি অভিযোগ উঠতে থাকে যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শিথিল হওয়ার পরে ভারতে জিনোম সিকোয়েন্সিং যথেষ্ট কমে গিয়েছে। যে সংখ্যক নমুনার বিশ্লেষণ করা হচ্ছে, সেই সংখ্যাটা অনেকটা কম। তার ফলে করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা আরও বাড়ছে। যদিও গত ৬ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে জানানো বয়, জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের জন্য গত জুলাই এবং অগস্টে ১৬,০০০ নমুনা পাঠানো হয়েছে।

বন্ধ করুন