বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কুম্ভমেলায় ভুয়ো কোভিড টেস্ট কাণ্ডে প্রাক্তনের সঙ্গে সংঘাতে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী
কুম্ভ মেলা (ছবি সৌজন্যে রয়টার্স)
কুম্ভ মেলা (ছবি সৌজন্যে রয়টার্স)

কুম্ভমেলায় ভুয়ো কোভিড টেস্ট কাণ্ডে প্রাক্তনের সঙ্গে সংঘাতে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী

  • কুম্ভমেলার সময় ভুয়ো কোভিড পরীক্ষা কাণ্ডে সংঘাতে জড়ালেন উত্তরাখণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত এবং সেরাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী তীর্থ সিং রাওয়াত।

কুম্ভমেলার সময় ভুয়ো কোভিড পরীক্ষার অভিযোগ উঠতেই এই কাণ্ডে সংঘাতে জড়ালেন উত্তরাখণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত এবং সেরাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী তীর্থ সিং রাওয়াত। ঘটনার প্রেক্ষিতে ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত অভিযোগ করেন, এই ঘটনা একটি গুরুতর অপরাধ। এদিকে এর জবাবে তীর্থ সিং দাবি করেন, তিনি মার্চ মাসে ক্ষমতায় আসেন, এবং এই ঘটনাটি পুরোনো। ত্রিবেন্দ্রের ঘাড়ে দোষ চাপানোর ভঙ্গিতেই কথাটি বলেন তীর্থ সিং রাওয়াত।

উল্লেখ্য, কুম্ভমেলার সময় ভুয়ো কোভিড পরীক্ষা করার অভিযোগে বেসরকারি পরীক্ষাগারগুলির বিরুদ্ধে মামলা করতে হরিদ্বার জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে উত্তরাখণ্ড সরকার। গত সপ্তাহে, ধর্মীয় সমাবেশে এক লাখেরও বেশি জাল করোনা পরীক্ষা-নিরীক্ষার খবর প্রকাশিত হওয়ার পর হরিদ্বার জেলা প্রশাসন এ ব্যাপারে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গিয়েছে, উত্তরাখণ্ড হাইকোর্ট থেকে নির্ধারণ করে দেওয়া দৈনিক ৫০ হাজার করোনা পরীক্ষার কোটা পূরণের জন্যই পরীক্ষাগারগুলি এই ধরনের জাল পরীক্ষা করেছে।

এই বিষয়ে ত্রিবেন্দ্র সিং বলেন, 'ভুয়ো পরীক্ষা নিয়ে ওঠা এই অভিযোগ একটি গুরুতর অপরাধ। এটা কোনও অবহেলার ঘটনা নয়। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। নিরপেক্ষ তদন্ত দরকার এই ঘটনার।' এরপরই বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী এই বিষয়ে বলেন, 'আমি মার্চে মুখ্যমন্ত্রী হয়েছি। এই ঘটনাটি পুরোনো। আমরা যখন এই ঘটনার কথা জানতে পারি তখন সঙ্গে সঙ্গে এর প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করি। যারা দোষী, তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।'

কুম্ভমেলা চলাকালীন করোনা পরীক্ষার জন্য ২২টি বেসরকারি পরীক্ষাগার ভাড়া করা হয়েছিল। হরিদ্বারে অনুষ্ঠিত এই ধর্মীয় সমাবেশে কমপক্ষে ৭০ লক্ষ ভক্ত অংশ নিয়েছেন বলে ধারণা। পিটিআই সূত্রে খবর, এই ধর্মীয় সমাবেশে মেডিক্যাল কর্মীদের দ্বারা পরিচালিত প্রায় দু'লক্ষ ভক্তের করোনা পরীক্ষা করা হয়। যার মধ্যে ২ হাজার ৬০০ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে।

বন্ধ করুন