বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘কয়েক মাস আগে ক্রাচে ভর করে চলাফেরা করা নিয়ে মজা করছিলাম’, নাদালের সাফল্যে ফেডেরারের মেসেজ

‘কয়েক মাস আগে ক্রাচে ভর করে চলাফেরা করা নিয়ে মজা করছিলাম’, নাদালের সাফল্যে ফেডেরারের মেসেজ

রজার ফেডেরার এবং রাফায়েল নাদাল।

এ বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের আগে নাদাল-জকোভিচ-ফেডেরার তিন কিংবদন্তিই ২০টি করে গ্রান্ডস্লাম জিতে পুরুষ বিভাগে একত্রে শীর্ষে ছিলেন। রবিবার সব পরিসংখ্যানটাই পাল্টে দিলেন নাদাল।

ইতিহাস লিখে ফেললেন রাফায়েল নাদাল। রজার ফেডেরার, নোভক জকোভিচকে টপকে প্রথম পুরুষ টেনিস খেলোয়াড় হিসেবে ২১তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন তিনি। রড লেভার অ্যারেনায় ফাইনালে রাশিয়ার দানিল মেদভেদেভকে হারালেন ২-৬, ৬-৭ (৫-৭), ৬-৪, ৬-৪, ৭-৫ গেমে। এই নিয়ে দ্বিতীয় বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জিতলেন তিনি। এ বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের আগে নাদাল-জকোভিচ-ফেডেরার তিন কিংবদন্তিই ২০টি করে গ্রান্ডস্লাম জিতে পুরুষ বিভাগে একত্রে শীর্ষে ছিলেন। রবিবার সব পরিসংখ্যানটাই পাল্টে দিলেন নাদাল।

আর নাদালের এই সাফল্যে উচ্ছ্বসিত আর এক কিংবদন্তি টেনিস প্লেয়ার রজার ফেডেরার। তিনি ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘কি অসাধারণ ম্যাচ! প্রথম পুরুষ প্লেয়ার হিসেবে একক ভাবে ২১টি গ্রান্ডস্লাম জয়ের জন্য আমার বন্ধু এবং বড় প্রতিদ্বন্দ্বী @RafaelNadal -কে আন্তরিক অভিনন্দন। কয়েক মাস আগে আমরা দু'জনেই ক্রাচে ভর করে চলাফেরা করা নিয়েই মজা করছিলাম। সত্যিই এই জয় আশ্চর্যজনক।’

ফেডেক্স আরও লিখেছেন, ‘একজন মহান চ্যাম্পিয়নকে কখনই ছোট করে দেখা ঠিক নয়। ওর অবিশ্বাস্য কাজের নীতি, উৎসর্গ এবং লড়াইয়ের মনোভাব আমার এবং সারা বিশ্বের অগণিত মানুষের কাছে অনুপ্রেরণা। আমি তোমার সাথে এই যুগটি ভাগ করে নিতে পেরে গর্বিত এবং তোমার সাফল্যের পিছনে আমারও একটা ভূমিকা থাকার জন্য সম্মানিতও, যেমনটা গত ১৮ বছর ধরে আমার জন্য তুমিও করেছ। আমি নিশ্চিত যে তোমার জন্য আরও সাফল্য অপেক্ষা করছে। কিন্তু আপাতত এই সাফল্য উপভোগ করো।’

ফেডেরারের মেসেজ।
ফেডেরারের মেসেজ।

আসলে মাস ছয়েক আগে যাঁকে ক্রাচ নিয়ে হাঁটার ছবি পোস্ট করতে দেখা গিয়েছিল, তিনিই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে যে ইতিহাস রচনা করে ফেলবেন, কে ভেবেছিল! নাদাল নিজেও হয়তো ভাবেননি। ভাবতে পারেননি ফেডেরারও।

মাস ছয়েক আগে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন তো দূরের কথা, ভবিষ্যতে আর কোনও প্রতিযোগিতাতে নামতে পারবেন কি না, সেটা নিয়েই প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। যখন তিনি ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছিলেন, তখন আক্রান্ত হলেন কোভিডে। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলা নিয়ে আরও বড় সংশয় তৈরি হয়ে গেল। কিন্তু গোটা বিশ্ব যখন নোভক জকোভিচকে নিয়ে ব্যস্ত, তখন নীরবে অনুশীলন করে গিয়েছেন রাফা। পায়ের চোট ভুগিয়েছে এই প্রতিযোগিতাতেও। কিন্তু সব যন্ত্রণা দাঁতে দাঁত চেপে সহ্য করে গিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত মনের তাঁর মনের জোরের কাছে হার মানল সব কিছু। ইতিহাসটা নাদাল লিখেই ফেললেন।

বন্ধ করুন