বাংলা নিউজ > ময়দান > বাবর আজমের ঐতিহাসিক ইনিংসকে সামনে রেখে কি রাজনীতি করলেন ইমরান খান?

বাবর আজমের ঐতিহাসিক ইনিংসকে সামনে রেখে কি রাজনীতি করলেন ইমরান খান?

বাবর আজম ও ইমরান খান (ছবি:এপি)

সারা বিশ্বের কিংবদন্তি ক্রিকেটাররা বাবরের প্রশংসা করছেন। এবার পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক ও দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও বাবরের প্রশংসা করলেন।

পাকিস্তান বনাম অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে করাচি টেস্টে একটি ম্যারাথন ইনিংস খেলে সকলের মন জিতেছেন বাবর আজম। দলকে পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষাও করেছেন পাকিস্তান দলের অধিনায়ক। বাবর চার রানের জন্য নিজের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি মিস করেছেন। কিন্তু রেকর্ড ৬০৭ মিনিট ব্যাট করার পর পরাজয়ের আশঙ্কা দূর করে প্যাভিলিয়নে ফেরে দলটি। ১৯৬ রান করে ন্যাথন লিয়ঁর বলে আউট হন বাবর। তার এই স্কোর চতুর্থ ইনিংসে যে কোনও অধিনায়কের করা সর্বোচ্চ স্কোর। এ জন্য সারা বিশ্বের কিংবদন্তি ক্রিকেটাররা বাবরের প্রশংসা করছেন। এবার পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক ও দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও বাবরের প্রশংসা করলেন।

ইমরান খান বাবরকে নিয়ে টুইট করেছেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দুর্দান্ত লড়াইয়ের জন্য এবং দুর্দান্ত অধিনায়কত্বের ইনিংস খেলার জন্য বাবর আজমকে অভিনন্দন। দলের বাকিদের জন্যও অনেক শুভকামনা।যেভাবে তারা ম্যাচে ফিরেছে, বিশেষ করে মহম্মদ রিজওয়ান ও আবদুল্লাহ শফিককে শুভেচ্ছা।’তবে বাবরের এই ম্যারাথন ইনিংস দেখতে পারেননি ইমরান নিজেও। তিনি তার টুইটে এটি উল্লেখ করেছেন এবং এর জন্য দেশের বিরোধী দলগুলিকে দায়ী করেছেন।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী লিখেছেন, ‘দুর্ভাগ্যবশত আমি এই ম্যাচটি দেখতে পারিনি। কারণ আমি অন্য ফ্রন্টে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের বিরুদ্ধে লড়াই করছি। যেখানে আমার খেলোয়াড়দের প্ররোচিত করতে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যবহার করা হচ্ছে!’আসলে,ইমরান খানের সরকার অনাস্থা প্রস্তাবের মুখোমুখি। এখন তার সহযোগীরাও পাশাপাশি যাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে ইমরান সম্প্রতি বলেছিলেন যে বিরোধী নেতারা এই মায়ায় আছেন যে মানুষ তাদের দুর্নীতি ভুলে গেছে। কিন্তু তারা ভুল। তিনি দাবি করেন,দুর্নীতিবাজ বিরোধী দলগুলোকে সমর্থন না করে সারা দেশ তাদের সমর্থন করতে প্রস্তুত।

করাচি টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার ৫০৬ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি পাকিস্তানের। ২১ রানে দলের দুই উইকেট পড়ে যায়। কিন্তু বাবর আজম ও আবদুল্লাহ শফিক তৃতীয় উইকেটে ২২৮ রান যোগ করে দলকে পরাজয়ের হাত থেকে বাঁচান। দুজনেই তিন সেশন ব্যাট করেছেন। ৯৬ রান করে আউট হন শফিক।কিন্তু বাবর একপ্রান্তে দাঁড়িয়ে ১৯৬ রানের ইনিংস খেলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। পঞ্চম উইকেটে মহম্মদ রিজওয়ানের সঙ্গে ১১৫ রানের জুটি গড়েন তিনি। ১০৪ রানে অপরাজিত থাকেন রিজওয়ান।

বন্ধ করুন