বাংলা নিউজ > ময়দান > ২০১৯ অক্টোবরে হুইল চেয়ারে ঘুরতেন, আর ২০২২-এ বদলে গেল হার্দিকের জীবন-দেখুন ভিডিয়ো
চোট থেকে ফেরার লড়াইটা সহজ ছিল না হার্দিক পাণ্ডিয়ার।

২০১৯ অক্টোবরে হুইল চেয়ারে ঘুরতেন, আর ২০২২-এ বদলে গেল হার্দিকের জীবন-দেখুন ভিডিয়ো

  • অস্ত্রোপচারের পর ২০১৯ সালের অক্টোবরে হার্দিক নিজে থেকে হাঁটতে পর্যন্ত পারতেন না। হুইল চেয়ারে করে ঘুরতেন। বা কারও সাহায্য নিয়ে হাঁঁটাচলা করতেন। সেখান থেকে ধীরে ধীরে নিজেকে ফিট করেছেন। রিহ্যাবের সময়কার সেই লড়াইয়ের গল্পই সকলের সঙ্গে শেয়ার করেছেন হার্দিক।

পিঠের চোট দীর্ঘদিন ভুগিয়েছে হার্দিক পাণ্ডিয়াকে। সেই চোটের কারণে অস্ত্রোপচারও করতে হয়েছিল। একটা সময়ে তো তিনিই বলও করতে পারছিলেন না। সেই অবস্থা থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অনবদ্য কামব্যাকের লড়াইটা কিন্তু সহজ ছিল না। 

এই মুহূর্তে কেরিয়ারের সেরা সময়ে রয়েছেন হার্দিক। পাচ্ছেন একের পর এক সাফল্য। তবে ভালো সময়ে দাঁড়িয়ে, তিনি কিন্তু ফেলে আসা খারাপ সময় বা সেই সময়ের তাঁর লড়াইকে ভোলেননি।

আরও পড়ুন: ‘আমাদের বেঞ্চেও দক্ষ প্লেয়ার বসে রয়েছে’, T20 WC-এর আগে বাকিদের হুঁশিয়ারি রোহিতের

হার্দিক একটি ভিডিয়ো পোস্ট করেছেন। সেখানে তাঁর সেই লড়াইয়েরই গল্প রয়েছে। অস্ত্রোপচারের পর ২০১৯ সালের অক্টোবরে হার্দিক নিজে থেকে হাঁটতে পর্যন্ত পারতেন না। হুইল চেয়ারে করে ঘুরতেন। বা কারও সাহায্য নিয়ে হাঁঁটাচলা করতেন। সেখান থেকে ধীরে ধীরে নিজেকে ফিট করেছেন। রিহ্যাবের সময়কার  লড়াইয়ের গল্পই সকলের সঙ্গে শেয়ার করেছেন হার্দিক। কঠিন পরিস্থিতিতে তাঁর পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি তাঁর পরিবারের সদস্যদেরও ধন্যবাদ জানান।

আরও পড়ুন: 'ছয় বলে ছ'টা ছক্কা খেলেও পরোয়া নেই যদি উইকেট আসে', স্পষ্টবাক সিরিজ সেরা হার্দিক

সেই ভিডিয়োর সঙ্গে তিনি লিখেছেন, ‘এই উত্থান-পতনের মাঝে আমার পরিজনেরা সব সময়ে আমার পাশে ছিল। রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠতাম নতুন উৎসাহ নিয়ে। আরও শক্তিশালী হওয়ার ইচ্ছে নিয়ে, আরও ফিট হয়ে আমার দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করার তাগিদ থেকে। যাঁরা আমার পাশে থেকেছেন, যাঁরা আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন, যাঁরা আমাকে গাইড করেছেন, তাঁদের প্রতি সব সময়ে কৃতজ্ঞ থাকব।’

চোট সারিয়ে মাঠে ফেরার পর থেকে দুরন্ত ছন্দে রয়েছেন হার্দিক পাণ্ডিয়া। ব্যাটে-বলে একেবারে কামাল করছেন। আইপিএলে অধিনায়ক হয়ে গুজরাট টাইটান্সকে চ্যাম্পিয়ন করিয়েছেন। নিজেও ভালো খেলেছেন। জাতীয় দলের অধিনায়ক হয়ে আবার আয়ারল্যান্ডে ভারতকে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতিয়েছেন। ইংল্যান্ডে একদিনের সিরিজের প্রথম ম্যাচে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছেন। সিরিজ নির্ণায়ক ম্যাচে চার উইকেট নিয়েছেন, ব্যাট হাতে ৭১ রান করেছেন। হয়েছেন সিরিজের সেরা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ যত এগিয়ে আসছে, তত হার্দিকের ফর্ম স্বস্তি দিচ্ছে ভারতকে।

বন্ধ করুন